শনিবার, ১৫ আগস্ট, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
‘বাংলার টাইগার’র সাথে ছাগল ফ্রি : তবুও হলোনা বিক্রি
হাট থেকে ফিরে গেলো নিজ খামারে
তারিম আহমেদ, নওয়াপাড়া (যশোর) থেকে :
Published : Wednesday, 29 July, 2020 at 10:09 AM
‘বাংলার টাইগার’র সাথে ছাগল ফ্রি : তবুও হলোনা বিক্রিঅভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া গরুহাটে বিক্রির জন্য আনা হয়েছিল ৩০মণ ওজনের ‘বাংলার টাইগার’কে। মঙ্গলবার ছিল এবছরের কোরবানি ঈদের গরুহাটের বেচাকেনার শেষ দিন। ‘বাংলার টাইগার’কে বিক্রির জন্য হাটে ওঠানো হয়েছিল ১০হাজার টাকা মূল্যের একটি ছাগল উপহার হিসেবে। গরু মালিকের প্রতিশ্রুতি ছিল ‘মানানসই মূল্যে ‘বাংলার টাইগার’টি বিক্রি হলে তার সাথে ফ্রি দেয়া হবে এই ছাগলটিকে। মালিকের যে কথা সেই কাজ। মঙ্গলবার বিকালে ‘বাংলার টাইগার’কে রঙ্গিন সাঁজে সাঁজিয়ে হাটে ওঠানো হয় গরুহাটে। তার সাথে নিয়ে যাওয়া হয় ৮-১০হাজার টাকা মূল্যের ছাগলটিকে। বিষয়টি গরুহাটে ছড়িয়ে পড়লে ‘বাংলার টাইগার’সহ ছাগলটিকে একনজর দেখতে শত শত মানুষের ভীড় জমে। এবছরের কোরবানি ঈদ উপলক্ষে উপজেলার সরখোলা-ধোপাদি গ্রামের মাঝ এলাকায় অবস্থিত দারুল আসাদ খামার বাড়িতে ৩০মণ ওজনের “বাংলার টাইগার” নামের গরুটির দাম চাওয়া হয়েছিল ১০লাখ টাকা। দারুল আসাদ খামার বাড়ির উদ্যোক্তা মো. আসাদুর রহমান জানান, কোরবানির হাটে গরুটির দাম হাঁকানো হয়েছিল ১০লাখ টাকা। হাটে গরুটির দাম উঠেছে মাত্র ৫লাখ ৩০হাজার টাকা। এত অল্প দাম উঠায় তিনি গরুটিকে বিক্রি করেননি। রাত সাড়ে ৮টার সময় ‘বাংলার টাইগার’টিকে ফেরত নেয়া হয় নিজ খামারে। মহামারি করোনাকালে গরুর দাম নেই বললে চলে বলে তিনি দাবি করেন। তিনি আরও জানান, ‘বাংলার টাইগা’রের দাম ন্যায্য মূল্য ৭লাখ টাকা হলে তিনি তা বিক্রি করে দিতেন। তাছাড়া সাথে ১০হাজার টাকা মূল্যের ছাগলটিকেও উপহার হিসেবে ফ্রি তুলে দিতেন। মাত্র ৫লাখ ৩০হাজার টাকা দাম হওয়ায় তিনি তা বিক্রি না করে খামারে তুলেছেন। তিনি আশা করছেন, এবারের কোরবানি ঈদে হয়তবা ‘বাংলার টাইগার’টিকে বিক্রি করতে পারবেন না। তাই তিনি খামারে আবার ফেরত নিয়েছেন।  তিনি ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আরও জানান, গত সাড়ে তিন থেকে চার বছর যাবৎ তার খামারে পোষা এই ‘বাংলার টাইগার’কে  অতি যতেœ লালন পালন করেছেন তিনি। তার ধারনা, গরুটির ওজন ২৮ থেকে ৩০ মণ হবে। তার দাঁতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ছয়টিতে। ওই খামারের সবচেয়ে বড় গরু হল এটি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে নওয়াপাড়া গরুহাটে গিয়ে দেখা যায়, ‘বাংলার টাইগার’কে একনজর দেখার জন্য গরুহাটের প্রায় সিংহভাগ মানুষ ভীড় জমিয়েছে। গরুটিকে দেখতে আসা মো. আছিব মোল্যা বলেন, এত বড় ধরণের গরু সাধারণত গরুহাটে দেখতে পাওয়া যায়না। খবর শুনে তিনি ‘বাাংলার টাইগার’সহ ছাগলটিকে দেখতে এসেছেন। গরুহাটের ইজারাদার আকতার হোসেন জানান, মহামারি করোনায় এবারের কোরবানির ঈদে গরুর বাজার মন্দা তাই ‘বাংলার টাইগার’টি বিক্রি হয়নি।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft