শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
আদালতে ভার্চ্যুয়াল প্রদ্ধতির অবসান হচ্ছে আজ
শিমুল ভূইয়া
Published : Wednesday, 5 August, 2020 at 1:27 AM
আদালতে ভার্চ্যুয়াল প্রদ্ধতির অবসান হচ্ছে আজ মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৬ মার্চ যশোরের আদালতে স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ার চার মাস পর আজ আবার আদালতে স্বাভাবিক বিচারকাজ শুরু হতে যাচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোটের এক বিজ্ঞপ্তিতে সারা দেশে এ নির্দেশনা জারি হয়েছে বলে আদালত সূত্র জানিয়েছে। এক্ষেত্রে অবশ্যই আদালত প্রাঙ্গন এবং এজলাসকক্ষে সুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ সংক্রান্ত নিদের্শনা মেনে আদালত পরিচালনা করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
এদিকে, যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ধীরেন্দ্র নাথের মৃত্যুর কারণে যশোরে আজ আদালতে ফুল কোর্ট রেফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে। সে কারণে আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে এখানে স্বাভাবিকভাবে আদালতে বিচারকাজ শুরু হবে বলে আাইনজীবী সমিতির নেতারা জানিয়েছেন।
নানা আন্দোলন কর্মসূচির পর স্বাভাবিকভাবে বিচার কার্যক্রম চালুর নির্দেশনায় যশোরের আইনজীবীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দ জানান, যশোরের আইনজীবীরা দির্ঘ দিন ধরে স্বাভাবিক কার্যক্রমের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিলসহ একাধিকবার মানববন্ধন করেছের। বিভিন্ন দপ্তরে আবেদনও জানানো হয়েছে। অবশেষে তাদের চাওয়া পাওয়া পুরণ হয়েছে।
এবিষয়ে যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এম ইদ্রিস আলী জানান, আইনজীবী ধীরেন্দ্র নাথের মৃত্যুর কারণে বৃহস্পতিবার ফুল কোর্ট রেফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে। একইসাথে সকাল ১১টায় জেলা আইনজীবী সমিতির এক নম্বর ভবনের মিলনায়তনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শোক সভা অনুষ্টিত হবে। সে কারণে আগামী রোববার থেকে যশোরের আদালত আগের রূপ ফিরে পাবে বলে তিনি জানান।
নিহত ধীরেন্দ্র নাথ পাল বেজপাড়া তালতলা এলাকার বাসিন্দা ও মৃত পতিরাম পালের ছেলে। ১৯৯৪ সালের ১৬ মে তিনি যশোরে আইনজীবী হিসেবে যোগদান করেন।
আদালত সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ হাইকোর্ট বিভাগের বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, আদালতে কোনো জনসমাগম করা যাবেনা। আদালত অঙ্গনে এবং এজলাস কক্ষে কমপক্ষে ছয়ফুট শারীরিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে। এজলাস কক্ষে একসাথে সর্বোচ্চ ছয়জনের বেশি সমাগম করা যাবেনা। একই মামলার একাধিক আসামি হলে প্রয়োজনে একাধিক ডাকে শুনানি সম্পূর্ণ করতে হবে। মামলা শুনানির সময় অভিযুক্ত ব্যক্তির সাথে নিযুক্ত আইনজীবী ব্যতিত অন্য কেউই এজলাস কিংবা এজলাস চত্ত্বরে আসতে পারবেন না। একইসাথে প্রত্যেককে মাস্ক পরে আদালত চত্ত্বরে আসা, আদালতে প্রবেশের সময় প্রত্যেক ব্যক্তির তাপমাত্রা পরীক্ষা করার ব্যবস্থার করার কথাও বলা হয় ওই বিজ্ঞপ্তিতে। যা পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বহাল থাকবে বলে জানানো হয়।
উল্লেখ্য, করোনাকালে ২৬ মার্চের পর দফায় দফায় সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয়। সর্বশেষ গত ১৬ মে দেয়া বিজ্ঞপ্তিতে সাধারণ ছুটির মেয়াদ ৩০ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়। তবে সরকার ৩০ মের পর সাধারণ ছুটি আর না বাড়ালেও আদালত অঙ্গনে নিয়মিত কার্যক্রমের পরিবর্তে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ভার্চ্যুয়াল প্রদ্ধতিতে বিচার কাজ পরিচালনার নির্দেশনা আসে। এর মধ্যে গত ৯ মে ভার্চ্যুয়াল কোর্টে শুনানির জন্য অধ্যাদেশ জারি করা হয়। পরদিন ১০ মে উচ্চ আদালতের সব বিচারপতিকে নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে ফুলকোর্ট সভা করেন প্রধান বিচারপতি। ওইদিনই নিম্ন আদালতের ভার্চ্যুয়াল কোর্টে শুধু জামিন শুনানি করতে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। এরপর থেকে নিম্ন আদালতে ভার্চ্যুয়াল কোর্টে জামিন শুনানি শুরু হয়। পরবর্তীতে আত্মসমর্পণসহ বিভিন্ন মামলার শুনানির সুযোগ দেয়া হয়।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft