মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ ঘোষণা
কাগজ সংবাদ :
Published : Sunday, 9 August, 2020 at 1:06 AM
যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ ঘোষণা লাইসেন্স নবায়নের জন্যে বৈধভাবে পরিচালিত বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিদর্শনের পাশাপাশি অবৈধ প্রতিষ্ঠান গুলোতে সাড়াশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে যশোর স্বাস্থ্য বিভাগ। গতকাল শনিবার সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীনের নেতৃত্বে বিশেষজ্ঞ টিম শহরের দু’টি হাসপাতাল ও একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিদর্শন করেছেন। একতা এবং মর্ডান হাসপাতালের কার্যক্রম সন্তোষজনক হওয়ায় তাদের লাইসেন্স নবায়নের সুপারিশ করার সিন্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামের প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অভিযোগ- অবৈধভাবে এবং স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করে পরিচালিত  হচ্ছিল এটি। এনিয়ে দু’সপ্তাহের ব্যবধানে ১৭টি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করলো স্বাস্থ্য বিভাগ। সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গুলো বৈধভাবে পরিচালনার স্বার্থে লাইসেন্স নবায়নের জন্যে নিয়মিত পরিদর্শন করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় শনিবার সকালে একতা ও মর্ডান হাসপাতাল এবং যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিদর্শন করা হয়। টিমে ছিলেন যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালর সার্জারি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাক্তার আব্দুর রহিম মোড়ল, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার রেহেনেওয়ার রনি ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান। হাসপাতাল দু’টির কর্তৃপক্ষ অনলাইন আবেদনপত্রে যে তথ্য দিয়েছেন তা যাচাই-বাছাইয়ে সত্যতা পাওয়া ও সরেজমিন পর্যবেক্ষণে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম সন্তোষজনক হওয়ায় লাইসেন্স নবায়নের জন্যে সুপারিশের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কিন্তু যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টারের অনলাইন আবেদনপত্রে দেয়া তথ্যে জাল জালিয়াতি করাসহ অসংখ্য অনিয়ম ধরা পড়ায় সেটি স্থায়ীভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে সিভিল সার্জন জানিয়েছেন।
সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি ভিজিলেন্স টিম আকস্মিক পরিদর্শনে গিয়ে যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নানা অনিয়ম ও সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণার প্রমাণ পেয়ে শোকজ নোটিশ জারি করে। তিন কর্মদিবসের মধ্যে জবাব দেয়ার নির্দেশ দেয়া হলেও তা অমান্য করে ব্যবসা পরিচালনা করছিল যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্তৃপক্ষ। লাইসেন্সের জন্যে মালিকপক্ষ অনলাইনে আবেদন করেছে এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শনের নির্দেশনাও এসেছে।
শনিবার সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীনের নেতৃত্বে বিশেষজ্ঞ টিম পরিদর্শনে গিয়ে দেখতে পান নোংরা ও ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে ডায়াগনস্টিক সেন্টারটি পরিচালনা করা হচ্ছে। টিমের সদস্যরা জানান, স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষা করে মানুষের সাথে অব্যাহত প্রতারণার সু-নির্দিষ্ট প্রমাণও পাওয়া যায়। বিভিন্ন প্যাথলজিক্যাল টেস্টের জন্যে মূল্য তালিকার থেকে বেশি টাকা নেয়া হচ্ছে রোগীদের কাছ থেকে। প্যাথলজি বিভাগটি যে কক্ষে করা হয়েছে তা কোনোভাবেই আইন সম্মত নয়। এমনকি কোনো ডাক্তারও নিয়োগপ্রাপ্ত নেই রিপোর্ট প্রদানের জন্যে। এক্স-রে বিভাগটি পরিচালনা করা হয় টেকনোলজিস্ট ছাড়াই। অর্থাৎ অনলাইন আবেদনপত্রে মিথ্যা তথ্য দেয়া হয়েছে বলে টিম অভিযোগ করে। পরে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন আরও জানান, শনিবার চৌগাছা উপজেলা শহরের তিনটি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করা হয়েছে। সাথে ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার লুৎফুন্নাহার এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান ।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft