রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০
জাতীয়
বন্যার পানি আবারও বাড়তে পারে
কাগজ ডেস্ক :
Published : Tuesday, 11 August, 2020 at 11:06 AM
বন্যার পানি আবারও বাড়তে পারেআগামী ১৬ আগস্টের পর আবারও বন্যার পানি বাড়তে পারে। বিশেষ করে কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী, বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি, গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি, সিরাজগঞ্জ জেলার সিরাজগঞ্জ ও কাজিপুর, জামালপুর জেলার বাহাদুরাবাদ, টাঙ্গাইল জেলার এলাসিন এবং মানিকগঞ্জ জেলার আরিচা পয়েন্টের পানি আগামী ১৬ আগস্টের পর বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে।
এছাড়া নারায়ণগঞ্জের লাক্ষা নদীর পানি আগামী ১৫ আগস্টের পর বাড়তে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছে বন্যা ও আবহাওয়া সংশ্লিষ্টরা।
আবহাওয়া অধিদফতরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়, দেশের উত্তরাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি হতে হতে চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে একেবারে স্বাভাবিক হয়ে আসতে পারে। তবে মাসের শেষ দিকে আবারও মৌসুমি বায়ুর কারণে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। ভারী বৃষ্টির কারণে দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি বন্যা হতে পারে।
বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও পূর্বাভাস কেন্দ্রের একজন কর্মকর্তা জানান, মধ্য আগস্ট থেকে আবার পানি বাড়তে পারে। ফলে মাসের শেষে আবার একটি স্বল্পমেয়াদি বন্যার আশঙ্কা করছি আমরা। ১০ দিনের পূর্বাভাসে বলা হয়, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদীর পানি আগামী ২৪ ঘণ্টায় কমতে পারে এবং তারপর বাড়া শুরু করতে পারে। গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি বাড়তে পারে। রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ পয়েন্ট, মুন্সীগঞ্জ জেলার ভাগ্যকূল পয়েন্ট এবং শরীয়তপুর জেলার সুরেশ্বর পয়েন্টের পানি আগামী ৪৮ ঘণ্টায় কমতে পারে। যার ফলে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় এসব জেলার বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হতে পারে।
এদিকে ঢাকার আশপাশের নদীগুলোর পানি স্থিতিশীল থাকতে পারে। আগামী ১৫ আগস্ট পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জে লাক্ষা নদীর পানি স্থিতিশীল থাকতে পারে এবং তারপর বাড়তে পারে। যার ফলে আগামী ৬ দিন এসব জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল থাকতে পারে। মিরপুর পয়েন্টের তুরাগ নদী এবং রেকাবি বাজার পয়েন্টে ধলেশ্বরী নদীর পানি আগামী ৫ দিন স্থিতিশীল থাকতে পারে। ঢাকা জেলার নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি আগামী ৭ দিন পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। আজ ৭ নদীর ৮ পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ওপরে অবস্থান করছে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র।
আজ গুড় নদীর পানি সিংড়া পয়েন্টে ৪৩ থেকে কমে ৩৪, আত্রাই নদীর বাঘাবাড়ি পয়েন্টে এখন ২৭ থেকে কমে ১৩, ধলেশ্বরী নদীর এলাসিন পয়েন্টে ৩৬ থেকে ২৩, জাগির পয়েন্টে ৩৭ থেকে কমে ২৮, তুরাগ নদীর মিরপুর পয়েন্টে ৩২ থেকে কমে ২২, টঙ্গী খালের টঙ্গী পয়েন্টে ৩৭ থেকে কমে ২৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এদিকে কালিগঙ্গা নদীর পানি তারাঘাট পয়েন্টে ৪৬ থেকে কমে ৩৬, পদ্মা নদীর পানি গোয়ালন্দ পয়েন্টে এখন বিপৎসীমার ২৯ থেকে কমে ১৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান বলেন, এখন বৃষ্টি কমে এলেও মধ্যভাগ থেকে আবারও বৃষ্টি বাড়বে। প্রবল মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে এই বৃষ্টি হতে পারে। ভারী বৃষ্টির কারণে মাসের শেষ ভাগে বন্যার আশঙ্কা করা হয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft