শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
কিষি পোনোদনার টাকা পইড়ে আচে ব্যাংকে!
Published : Saturday, 22 August, 2020 at 11:52 PM
কিষি পোনোদনার টাকা পইড়ে আচে ব্যাংকে!করোনা মহামারীতি কিষি খাতের ক্ষেতি মুকোবেলায় পোধানমুন্ত্রীর ঘোষনা দিয়ার পাচ হাজার কোটি টাকার মুটাদাগই আটকায় আচে ব্যাংকে। সহজ শত্তে মাত্তর ৪ শতাংশ সুদি বাংলাদেশ ব্যাংকেত্তে চাষীগের জন্যি পোনোদনার এই টাকা দিয়ার কতা ছিলো। পাঁচ হাজার কোটি টাকার মদ্দি চারমাসে বিতরন কইরেচে মাত্তর ৪শ’৯৮ কোটি টাকা। আর ব্যাংকের তহবিলি একনো পইড়েই আচে বাকি সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা। ইরাম কি টাকা বিতরন করার চুক্তি করা ১৩ডা ব্যাংক একন পন্তিক একটাকাও লোকরে দিইনি।
কি সব্বেরাশে কতা কও দিনি বাপু! করোনা মহামারী শুরু হলি কিষি খাতের জন্যি ১২ এপ্রিল ডেইরি, পোলটি, মৌসুমি ফল ফুল ও মসসো খাত চালু রাকতি পাচ হাজার কোটি টাকার বিশেষ পোনোদনা ঘোষনা করিলেন পোধানমুন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিষি পোনোদনার পাচ হাজার কোটি টাকা বিতরনে এপ্রিল মাসে ব্যাংকগুলোর সাতে চুক্তি করিল কেন্দ্র ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের পোতিবেদন অনুযায়ী মধ্য এপ্রিলেত্তে ৩১ জুলাই পন্তিক ৩৮ টে বানিজ্যিক ব্যাংক বিতরন কইরেছে মাত্তর ৪৯৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা। এই টাকা ১৭ হাজার ৯৮০ জন চাষীগের মদ্দি ছাড়া হইয়েচে। সরকারের টাকা বিতরন কল্লি ওই ব্যাংক হিসেব কিতেব রাকার জন্যি পাচ শতাংশ সুদ পাবে। কিন্তুক অধিকাংশ ব্যাংকই চুক্তি করার সুমায় যত আগ্রহ ছিলো, চুক্তি কইরে টাকা দিয়ার সুমায় আর আগ্রহ দেকাচ্চে না। কোনো কোনো ব্যাংক বাইদ্যবাধকতার কারনে কিচু টাকা বিতরন কল্লিও তা গা বাচানোর জন্যি নামমাত্তর।
ব্যাংকের দিয়া পোতিবেদনতে জানা গেচে, এপ্রিলির মাঝমাঝিত্তে ৩০ জুলাই পন্তিক এট্টা আবেদনও পড়িনি কইয়ে কোন ঋনির টাকা বিতরন করিনি জনতা ব্যাংক, আইএফআইসি, যমুনা, মধুমতি, ওয়ান, সীমান্ত আর ইউনিয়ন ব্যাংক। এছাড়া স্টান্ডাড, সাউথইস্ট, এনআরবি গেøাবাল, এনআরবি, এনসিসি ও বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকে আবেদন আসলিও টাকা দিয়ার কোন গাহক তারা দেকাননি।
সরকারের কাচেত্তে টাকা আইনে জনগনরে না দিয়ে ফেলায় রাকলি কাগের লাভ হয় তা আমার মতো মুক্কুসুক্কু মানুসও বোজে। দুক্কির কতা হচ্চে, যাগের এ সব দেকার কতা তাগের কি এই সব নিয়ে কোন মাতাব্যাতা আচে?
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft