সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
বাঁকড়া নতুন কৌশলে মাদক ব্যাবসা
বিক্রয় ও ক্যারিয়ার মহিলা
আবুল কাশেম, বাঁকড়া (ঝিকরগাছা) থেকে :
Published : Wednesday, 16 September, 2020 at 3:09 PM
বাঁকড়া নতুন কৌশলে মাদক ব্যাবসাঝিকরগাছার দক্ষিনে বাঁকড়া এলাকায় নতুন কৌসলে হঠাৎ তৎপরতা বেড়ে গেছে মাদক ব্যাবসায়ীদের। কপোতাক্ষ নদের ধার ঘেষা ও কয়েকটি উপজেলা সীমান্ত এলাকায় গড়ে উঠেছে মিনি বাজার ও পাচার সিন্টিগেট। নানা কৌশলে যেমন সেবনকারীদের হাতে পৌচাচ্ছে মাদক ও পাচারকারি দলে প্রশাসনের নজর ফ্াঁকি দিতে মহিলাদের ব্যাবহার করা হচ্ছে। পুলিশ মাঝে মধ্যে সেবকারি ও বহনকারিদের গ্রেফতার করলেও এর সিন্টিগেটের মুল হোতারা থাকছে ধরা ছোয়ার বাইরে। মাদকের মুল সেন্টিগেট ও ব্যাবসায়ীরা ধরাছোয়ার বাইরে থাকবার কারনে মাদক তৎপরতা কোন প্রকার বন্ধ হচ্ছে না। অনেকে বলছে ধরা পড়া: ক্যারিয়ারদের ও সেবনকারিদের” মাধ্যেমে মুল হোতাদের আইনের আওতায় না আনতে পারলে এ তৎপরতা ঠেকানো যাবে না। পুলিশের মাদকের বিরুদ্ধে ”জিরো টলারেন্স” নীতি মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়ন দেখা যাচ্ছে না।
গত ৮ সেপ্টম্বর বাঁকড়া পারবাজার থেকে ১৫০ পিচ ইয়াবা সহ এক মহিলাকে আটক করে পুলিশ। আটক তানজিলা খাতুন  ঝিকরগাছা উপজেলার  বাঁকড়া বাজার সংলগ্ন আলীপুর  গ্রামের ফরিদ আহমেদের স্ত্রী। আটক তানজিলা খাতুন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় দক্ষিন বাঁকড়ার গন্ধুর মোড় জৈনক এক কাল ব্যাক্তি তাকে এ ইয়াবাগুলো দিয়েছে।
মণিরামপুর উপজেলার ঝাঁপা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই অসিম আকরাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত  ৯ টার দিকে সঙ্গীয় ফোর্স বাঁকড়া পারবাজার নামক স্থান থেকে ১৫০ পিচ ইয়াবা সহ তানজিলা খাতুনকে আটক করে।পুলিশ ওই রাতে ধৃত মহিলাকে সাথে নিয়ে পারবাজার এক বাসায় তল্লাসী চালায়,কিন্তু সেখান থেকে কোন কিছু উদ্ধার হয়নি।ঘটনা স্থাথে উপস্থিত অনেকে জানান,আটক তানজিলা পায়ে হেটে ব্রীজ পার হওয়া মাত্রই পুলিশের হাতে আটক হয়। তাকে মনিরামপুর থানায় মাদক মামলা দিয়ে চালাণ দিয়েছে পুলিশ।
 এদিকে আটক মহিলার বিষয়ে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে নানা অজানা কাহিনি। পুলিশের নজর ফাঁকি দিয়ে একটি শক্তিশালি  সেন্টিগেট মহিলা সদস্য দিয়ে অবাদে মাদক বেচাকেনা ও বহন কাজে নিযোজিত করেছে । ধৃত মহিলা তানজিলা বেগমের স্বামী এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক ব্যাবসায়ী। তার নামে আছে মাদক সহ অনেক মামলা সেও কয়েকবার গ্রেফতার হয়ে আইনের ফাঁকফোকড় দিয়ে বেরিয়ে এসেছে। নাম প্রকাশনা করবার শর্তে বাঁকড়া বাজার সংলগ্ন আলিপুর গ্রামের কয়েক জন জানায় সন্ধা পর তাদের মহল্লায় অপরিচিত মানুষ এসে তানজিলা বেগমের কাছ থেকে মাদক ক্রয় করে। প্রতিবেশিরা অনেকে দেখলেও একটি প্রভাবশালি মহলের ভয়ে কেউ কিছু বলতে পারেনা। এমনি হঠাৎ করে এলাকায় মাদক তৎপরতা বেড়ে গেছে।এদিকে লোকাল পুলিশের নাকেরডগায় হওয়ায় পুলিশের অবস্থা রহস্যজনক বলে অনেকে জানান।
 মাদকের মুল হোতারা ধরা ছোয়ার বাইরে থাকার কারনে সেবনকারীরা হাতবাড়ালেই পাচ্ছে মাদক, ঝিকরগাছার দক্ষিনে বাঁকড়া বাজার কেন্দ্রীক বাঁকড়া, হাজিরবাগ, শংকরপুর, কপোতাক্ষ নদের ওপার হরিহরনগর,মশ্বিমনগর, ঝাপা ইউনিয়নের কপোতাক্ষ নদের  সীমানা ও প্রত্যন্ত অজ্ঞলের কয়েকটি স্পটে   হরহামেসা মাদক বিক্রি হচ্ছে। এদিকে বাঁকড়া পারবাজার বাজার কমিটির সভাপতি ইউপিসদস্য আবুবক্কার জানান, তার এলাকায় অনেক অপরিচিত লোক নিজের ভোল পাল্টিয়ে বাসা নিয়ে অবস্থান করছে তাদের ছত্রছায়ায় যুবসমাজ হাত বাড়ালে ইয়াবা,গাজা সহ সব ধরানের মাদক পাচ্ছে।হরিহর নগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান উপঅধ্যক্ষ গাজি আব্দুর ছাত্তার  জানান, আকস্যিক মাদকের প্রবনতা ব্যাপক হারে বাঁকড়া পারবাজার সহ এলাকায়  বৃন্ধি পেয়েছে। মাঝেমধ্যে ক্যরিয়ার ম্যান ও সেবকারি ধরা খেলেও মুল হোতারা থাকছে বাইরে সে কারনে মাদকের প্রবনতা থেকানো যাচ্ছে না। মাদকের প্রবনতা বেড়ে যাওয়ার ব্যাপারে শংকরপুর ইউপি চেয়ারম্যান নিছার আলি বর্তমান সময়ে নতুন করে প্রবনতা বৃন্ধিপাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন,বিষয়টি নিয়ে আমি প্রশাসনকে অবহিত করেছি,পাশাপাশি গত ৯ সেপ্টম্বর আমার পরিষদে এমপি প্রতিনিধি সহ মিটিং করে আমরা কঠোর অবস্থানের সিন্ধান্ত নিয়েছি।
এদিকে আকষ্যিক মাদকের প্রবনতা বেড়ে যাওয়ার কথা অনেকে বলছে। অথছ কিছুদিন পূর্বেও পুলিশের মাদক বিরোধী অবস্থানে এলাকার অনেক মাদক সেন্টিগেট ভেঙ্গেপড়েছিল।এখনও লোকাল পুলিশ মাদকের বিরুদ্ধে ”জিরো টলারেন্স”এর কথা বললেও বর্তমানে কিছুটা স্থবিরতা লক্ষ করা যাচ্ছে। সে কারনে মাদক ব্যাবসার নেপথ্যে থাকা সেন্টিগেট মহিলা সহ নানা কৌশলে মাদক পাচার ও সেবনকারিদের হাতে পৌছে দিচ্ছে। বাঁকড়া অজ্ঞলে বিভিন্ন সুত্রথেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে বাঁকড়া বাজার হাসপাতাল মাঠ, পারবাজার, বাঁকড়া গন্দুর মোড়, ঝাপা ঘাট, দিগদানা বাজার, মাটশিয়া কপোতাক্ষ তীর, হাজিরবাগের এক ইউপি সদস্য জানান, দেউলি- সামটা বেত্রবতি ব্রীজ,বরুনাল মাটিকুমরা, বিষœুপুর বাটকুমারী মাঠ,হাড়িখালী পাঁচপোতা,  শংকরপুরের নাইড়া পুরাতন বাজার, শংকরপুর ফেরিঘাট এলাকা সন্ধার পর থেকে মাদক সেবিদেরআখড়ায় পরিনত হয়ে গেছে। লোকাল সেন্টিগেটের সহযোগিতায় বেচাকেনান বাজার বসছে বলে অনেকে জানান।
পুলিশের অভিযানে ক্যারিয়ার;রা বা সেবনকারি ধরা পড়লেও মুল হোতারা থাকছে ধরা ছোয়ার বাইরে।
উদ্ধার কৃত ইয়াবা বা মাদকের উৎস ও এর নেপথ্য প্রবাশালি মহলকে আইনের আওতায় আনবার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসি।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft