রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
দু’ মাসে পুলিশের কাছে অর্ধশত অভিযোগ, জমিজমা নিয়ে বিরোধ বাড়ছে যশোরে
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Thursday, 24 September, 2020 at 1:22 AM
দু’ মাসে পুলিশের কাছে অর্ধশত অভিযোগ, জমিজমা নিয়ে বিরোধ বাড়ছে যশোরেযশোরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ ও সংঘাত বেড়েই চলেছে। কেউ গায়ের জোরে, কেউ রাজনৈতিক ক্ষমতাবলে এবং কেউ ভূমি অফিসকে ম্যানেজ করে ভুয়া ডকুমেন্ট তৈরি করে জমি জবরদখল করে চলেছে। এতে প্রতিদিনই  নিজ পরিবার, গোষ্ঠী ও প্রতিবেশিদের সাথে বাকবিতন্ডা, মারামারির ঘটনা ঘটছে। গত দু’ মাসে যশোর সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে থানায় অর্ধশত অভিযোগ দেয়া হয়েছে জমিজমাসংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, প্রায় প্রতি দিনই যশোর পৌরসভা ও সদর উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে জমিজমা নিয়ে গোলযোগ লেগেই আছে। একাধিক পক্ষ জমির দাবিদার হওয়ায় এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এনিয়ে এলাকার শান্তিশৃঙ্খলারও অবনতি হচ্ছে। বাড়ছে পেশিশক্তির বলে জমি জবরদখল করে রাখার নজির। ব্যক্তিগত জমির পাশাপাশি সরকারি জমি জবরদখল নিয়েও শুরু হয়েছে নৈরাজ্য। জমি না থাকলেও অনেকে অন্যের জমি হাতিয়ে চলছেন ঠাঁটেবাঠে।
গত ৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় সদর উপজেলার ওসমানপুর গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে মাসুদুর রহমানের জমি জবর দখল নিয়ে হামলায় জড়িয়ে পড়েন কয়েক প্রতিবেশি। বিরোধের জের ধরে মাসুদুর রহমান ও তার স্ত্রী রেশমা খাতুনকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে জখম করে ওই গ্রামের মৃত আয়ুব আলীর ছেলে আমিনুর রহমান, মৃত শাহাদৎ হোসেনের ছেলে মামুন হোসেন, আমিনুর রহমানের স্ত্রী হাওয়া বিবি, মৃত শাহাদৎ হোসেনের স্ত্রী কোহিনুর বেগম এবং মৃত শাহাদৎ হোসেনের ছেলে তানিয়া খাতুন। এ ঘটনায় ১২ সেপ্টেম্বর রাতে কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়।
১১ সেপ্টেম্বর বিকেলে বাহাদুরপুরে জমি নিয়ে বিরোধে সদর উপজেলার রহেলাপুর মাঠপাড়া গ্রামের সোহরাব হোসেনের স্ত্রী মাজেদা বেগম (৩২) ও  শহিদুলের স্ত্রী ফুলমতিকে (৪৫) মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করা হয়। এ ঘটনায় ওই গ্রামের মৃত রোস্তম শিকদারের ছেলে শহিদুল ইসলম মামলা করেন। ওই গ্রামের আজিজ মোল্লার ছেলে সোহরাব হোসেনের সাথে ওই গোলযোগ।
২ সেপ্টেম্বর সকালে সদর উপজেলার বিজয়নগর গ্রামে জমিজমা ও রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে প্রতিবেশী সুমন নামে এক ছাত্রকে মারপিট করে জখম করা হয়। এ ঘটনায় আহত যুবকের বাবা নিছার আলী বিশ^াস মামলা করেন। অভিযুক্তরা ওই গ্রামের সামাদ আলী বিশ^াসের ছেলে বিদ্যুৎ ও একই গ্রামের নিছার আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান।
জমিসহ একটি বাড়ি কিনলেও ওই পরিবারকে সেখানে বসবাস করতে দেয়া হচ্ছেনা যশোরের পালবাড়ি নতুন খয়েরতলা এলাকার এক বাসিন্দাকে। থানায় অভিযোগ করা হয়েছে যে, স্থানীয় সংঘবদ্ধ একটি চক্রের অপতৎপরতায় শিকার হয়ে আতঙ্কের মধ্যে সময় কাটাচ্ছে পরিবারটি। একটি ভাড়া বাসা থেকে তাদের বিড়াড়িত করা হয়েছে। কেনা বাড়িতে একজন ভাড়াটে ওঠালেও তাকে হুমকি দিয়ে নামিয়ে দেয়া হয়েছে। বাড়ির বৈদ্যুতি সংযোগ গ্রহণে বাধা ও বাড়ি আসা-যাওয়ার রাস্তা না দিয়ে অর্থ দাবি করা হয়েছে।
জমিজমাসংক্রান্ত বিেেরাধে যশোরের দত্তপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক নির্মাণ কাজে বাধা সৃষ্টি করে চলেছে স্থানীয় একটি অসাধু চক্র। বানোয়াট অভিযোগ তুলে মামলা ঠুকে প্রধান শিক্ষককে হয়রানি করাসহ নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে ওই চক্রের হোতা শফিয়ার রহমান। এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অফিসার এমনকী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপও কাজে আসছেনা। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসকসহ সরকারে ওপর মহল ভিষয়টি আমলে নিয়ে প্রতিকারের চেষ্টা করছে। 
২২ জুলাই সকালে বাগডাঙ্গা গ্রামে জমি জবর দখল অপতৎপরতায় হামলা চালিয়ে একই পরিবারের তিনজনকে মারপিট করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই গ্রামের গোলক বিশ্বাসের ছেলে পিতিশ, নিতিশ বিশ^াস ও মৃত সুবলের ছেলে গোলক বিশ^াসকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এঘটনায় জমির মালিক গোলক বিশ^াস ৬ আগস্ট কোতোয়ালি থানায় এজাহার দেন।
অবস্থা এতটাই বেগতিক যে যশোরের নাটুয়াপাড়ায় একটি সংঘবদ্ধ চক্র এক অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের ৪১ শতক জমি জবরদখল করে নিয়েছে। একইসাথে ওই শিক্ষক ও তার পরিবারের সদস্যদের ওপর দফায় দফায় হামলা করে হয়রানি করছে। ওই চক্রের অব্যাহত হুমকিতে তটস্থ রয়েছে পরিবারটি। এ ব্যাপারে শান্তিপ্রিয় ওই শিক্ষক পরিবার আদালতে মামলা করাসহ স্থানীয় চেয়াম্যানের কাছে অভিযোগ করেছেন। এরপরও কোনো কিছুই মানছেনা দখলবাজ চক্রটি। এ নিয়ে টান টান উত্তেজনা চলমান রয়েছে।
যশোর কোতোয়ালি থানা সূত্রে জানা গেছে, জমিজমাসংক্রান্ত বিরোধের এ ধরনের আরও কয়েক ডজন অভিযোগ জমা পড়েছে থানায়। বেশিরভাগ নিস্পত্তি হয়েছে। মামলা রেকর্ড হয়েছে অনেকগুলোর। আর কয়েকটি নিস্পত্তিও হয়েছে।
এ ব্যাপারে যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধগুলো নিস্পত্তি করবে মূলত আদালত। জমিজমা নিয়ে যেখানে গোলযোগ হচ্ছে বা হয়েছে সেখানে আইনশৃঙ্খলা সমুন্তত রাখতে পুলিশ কাজ করছে। উভয় পক্ষকে  সাথে নিয়ে মিমাংসা করা হচ্ছে। তবে যেখানে মারামারি বা সংঘাত ঘটে গেছে সেখানে ধারা অনুযায়ী মামলা নেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে যেসব অভিযোগ এসেছে তার তদন্তও চলছে যথাযথভবে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft