বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
সব চাইতি কম দামি ছিলাম একমাত্তর আমি !
Published : Friday, 9 October, 2020 at 10:37 PM
সব চাইতি কম দামি ছিলাম একমাত্তর আমি !পোতিদিন মানুস ফেসবুকি ফান পাইতে রাইকে। আমরা যিরাম এক সুমায় খালে বিলে ঘুনি কিম্বা চারো পাততাম ঠিক সিরাম। ফেসবুকি একাকদিন এটাট্টা জিনুস নিয়ে হৈচৈ বাদে। এট্টা কিচু পালি স¹লি তাই নিয়ে মাইতে ওটে। আজ যিডা নিয়ে হৈ জকার, কালকে আরাট্টা আসলি আজকেরডা ধামার তলে চাপা খাইয়ে যায়। সিডা নিয়ে কারো আর মাতাব্যাতাই থাকে না। একন স¹লি ভাব নিতি চাই কিডা কতডা আপডেট। আমি খাইটে খাওয়া সাধারন মানুস। কাজ না কল্লি প্যাটে ভাত যায় না তাই ঐ সব ভানাচি নিয়ে পইড়ে থাকলি আমাগের মত মানসির চলে না। ফেসবুকি নিয়ে গবেষুনার মদ্দি দিয়ে মজি মজি বাজারে জিনুস পত্তরের দাম যেভাবে বাইড়ে চইলেচে সেদিকি যেন কারোরি খিয়াল নেই। মাছ গোস্তোর দাম বাদই দিলাম। চালির দাম, ডালির দাম, শাক সবজি, নুন তেল সব জিনুসির দাম কেরমে কেরমে ওপর মুকো ওটচে।  একন মন চালিও ঝাল পিয়েজ দিয়েও দুডো ভাত খাওয়ার জো নেই। পিয়েজ নিয়ে কত কি হইয়ে গ্যালো। বাজারে পিয়েজের চোক গরম ঠেকাতি মুন্ত্রি মিনিস্টারেত্তে শুরু কইরে পাড়া মহল্লার গিরাম পুলিশ পন্তিক কত পাহরা খেলা দেকালে তাগের আঙাচ পিপার পত্রিকা আর টিবিতি যতডা পোভাব পইড়লো বাজারে যেন তার কানাকড়িও পইড়লো বিলে মনে হলো না। কালকেও পিয়েজ কিনলাম ৯০ টাকা কেজি। আর কাচা ঝাল কিনতি যাইয়ে চোক দিয়ে পানি গড়ায় পড়ার জুগাড়। পেত্তেক কেজি বিক্কির কত্তেচে ২৪০ টাকা কইরে। তার মানে ১০০ গিরাম কাচাঝাল গুনলি হয়ত ১০/১২ডা বা এট্টা আদ্দেক বেশী হতি পারে তার দাম ২৪ টাকা। তার মানে পেত্তেকটা কাচাঝালের দাম গড়ে ১ টাকার বেশী। দেকতি দেকতি আলুর কেজি উইটে গেল পিরায় ৪০ টাকা কেজিতি। ইরাম কোন সবজি নেই যার দাম  ২০ টাকার নীচেয় আচে। বাগানে শাক পাতাড়িও দামও একন চড়া। তালি আমার মতো যারা গরীবগুরো মানুস আচে তারা খাবেডা কি? খইতে হাতে বাজারের এ মাতা ও মাতা ঘুইরেও কিনার কিচ্চু পাচ্চিনে পকেটের সাইজ ছোট বিলে। বাজারে সবই ডবডব কত্তেচে কিন্তুক কিনার ক্ষেমতা নেই। সারাবাজার চক্কর দিয়ে মনে হইলো আমার দাম বাজারের আলু, পিয়েজ আর কাচা ঝালের চাইতিও কম!
ইতি
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft