শিরোনাম: নারীর ক্ষমতায়নে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে : স্পিকার       বিমান বিধ্বংসী অত্যাধুনিক অস্ত্র যুক্ত হলো সেনাবাহিনীতে       দুর্নীতি সহনীয় পর্যায়ে আছে : খাদ্যমন্ত্রী       উত্তাল কাশ্মীর, যে কোনো মুহূর্তে ভয়ানক সহিংসতার আশঙ্কা       ছাত্ররাজনীতি নয়, শিক্ষকরা পেশাজীবী রাজনীতি বন্ধ করুন : হানিফ       চীন বিরোধীদের কঠোর হুমকি শি জিনপিংয়ের       কর না দিলে ব্যবস্থা : অর্থমন্ত্রী       মিয়ানমারে ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গারা নিজ গ্রামে যেতে পারছেন না        মাইন বিস্ফোরণে কেনিয়া পুলিশের ১০ সদস্য নিহত       ২২ অক্টোবর সোহরাওয়ার্দীতে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ      
চামড়ার দাম নির্ধারণ হয়নি, পানির দরে বিক্রি
কাগজ ডেস্ক :
Published : Wednesday, 18 September, 2019 at 9:07 PM
চামড়ার দাম নির্ধারণ হয়নি, পানির দরে বিক্রিগেল ঈদে চামড়ার দাম না পাওয়ার রেশ কাটিয়ে উঠতে পারেনি রাজশাহীর চামড়া ব্যবসায়ীরা। এখনো নির্ধারণ করা হয়নি দাম। তাই ঈদের মতোই নামমাত্র দামে চামড়া বেচা-বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। খাসির চামড়া পিস প্রতি ১৫ থেকে ২০ টাকায় আর গরুর চামড়া আকার ভেদে ১৫০ থেকে ৩০০ টাকায় কিনছেন তারা।
চামড়া ব্যবসায়ীরা জানান, গত পাঁচ-ছয় বছরের মধ্যে এবারই কোরবানির পশুর চামড়া সবচেয়ে নিম্ন দামে বিক্রি হয়েছে। ঈদ মৌসুম শেষ হলেও এখন নতুন দামে চামড়া কিনতে বা বিক্রি করতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা। তাদের মতে, চামড়া শিল্পের প্রাণ নেই বলেই চলে। এখন এটি মৃত প্রায়।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকার এখনো দাম নির্ধারণ করে না দেওয়ায় নতুন করে জবাই হওয়া পশুর চামড়া কিনতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা। চামড়া বেচাকেনা নিয়ে খানিকটা জটিলতা তৈরি হয়েছে মৌসুমি ব্যবসায়ী এবং চামড়ার আড়তদার ও ট্যানারির মালিকদের মধ্যে।
মৌসুমি ব্যবসায়ীরা বেশি দামে চামড়া কিনেছেন। আবার বাড়তি দামের এই চামড়ার কিছু অংশ কিনেছেন আড়তদারেরাও। তবে বাড়তি দামে কেনা এসব চামড়া বেশি দাম দিয়ে কিনতে রাজি হচ্ছেন না ট্যানারির মালিকেরা। ফলে মৌসুমি ব্যবসায়ী ও আড়তদারদের একটি অংশ লোকসানের আশঙ্কায় আছেন।
নগরীর তেরখাদিয়া এলাকার চামড়া ব্যবসায়ী জুলফিকার আলী বলেন, 'ব্যবসা বাদ দিয়েছি ভাই। যে ব্যবসায় স্ত্রী-সন্তানের পেটে খাবার জোটে না তা করে কী লাভ? ঈদে যে চামড়া কিনছিলাম, তাতে ব্যাপক লস হয়েছে। প্রতিজ্ঞা করেছি- রিকশা চালিয়ে রুটি-রুজি জোগাড় করব, তবুও চামড়া ব্যবসা করব না।'
হামিদুল ইসলাম নামে আরেক ব্যবসায়ী বলেন, 'ব্যবসা বলে কিছু নেই। টাকা খাটাইলে লস হবে জেনেও চামড়া কেনা-বেচা করা পাগলামি ছাড়া আর কিছুই না। আমি চামড়া কেনা বন্ধ করে দিয়েছি। আমার দেখা মতে, রাজশাহীতে কেউ তো এখন চামড়ায় কিনছেন না।'
রাজশাহী জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ বলেন, 'স্থানীয়ভাবে চামড়া বেচা-কেনা বন্ধ রয়েছে। তবে নাটোরে চামড়া ব্যবসায়ীরা কিছু খাসির চামড়া ১০ থেকে ১২ টাকা করে পিস হিসেবে বিক্রি করেছেন। এখন রাজশাহীতে কেনা-বেচা হচ্ছে না বললেই চলে।' যা হচ্ছে তা ঈদের সময়ের দামে কেনা হচ্ছে বলে জানান তিনি।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft