শিরোনাম: নারীর ক্ষমতায়নে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে : স্পিকার       বিমান বিধ্বংসী অত্যাধুনিক অস্ত্র যুক্ত হলো সেনাবাহিনীতে       দুর্নীতি সহনীয় পর্যায়ে আছে : খাদ্যমন্ত্রী       উত্তাল কাশ্মীর, যে কোনো মুহূর্তে ভয়ানক সহিংসতার আশঙ্কা       ছাত্ররাজনীতি নয়, শিক্ষকরা পেশাজীবী রাজনীতি বন্ধ করুন : হানিফ       চীন বিরোধীদের কঠোর হুমকি শি জিনপিংয়ের       কর না দিলে ব্যবস্থা : অর্থমন্ত্রী       মিয়ানমারে ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গারা নিজ গ্রামে যেতে পারছেন না        মাইন বিস্ফোরণে কেনিয়া পুলিশের ১০ সদস্য নিহত       ২২ অক্টোবর সোহরাওয়ার্দীতে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ      
দুই ধর্ষককে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ
খুলনা ব্যুরো :
Published : Thursday, 19 September, 2019 at 6:10 AM
দুই ধর্ষককে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশএক দশক পর খুলনার খালিশপুরের বাস্তুহারা কলোনির শিশু আফসানা মিমিকে (১৪) গণধর্ষণের পর হত্যার দায়ে দুইজনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তদের এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।
বুধবার বিকেলে খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এর বিচারক মোহাম্মদ মহিদুজ্জামান আলোচিত এ গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার রায় দেন।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন খালিশপুরের বাস্তুহারা এলাকার মৃত আব্দুল কাদের হাওলাদারের ছেলে মো. বাবুল হাওলাদার ওরফে কালা বাবুল (৩৮) ও সাদেক হোসেনের ছেলে এমদাদ হোসেন (৩৭)।
এ মামলায় চারজনকে খালাস দিয়েছেন বিচারক। তারা হলেন খালিশপুরের বাসিন্দা মোজাফ্ফর আহমেদের ছেলে মো. আশা মিয়া (২২), মো. আব্দুল বাশার হাওলাদারের ছেলে মো. জাহাঙ্গীর আলী (২৪), মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে মো. জাহিদুল ইসলাম ওরফে জাহিদ (৪০) ও আব্দুল মোতালেব হাওলাদারের ছেলে মো. নজরুল ইসলাম (৩৫)। রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন সব আসামি।
মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০০৯ সালের ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টার দিকে খালিশপুর থানাধীন বাস্তুহারা কলোনির রোড নম্বর-৯, বাড়ি নম্বর-৪৯৮-এর বাসিন্দা মো. ইমাম হোসেনের ১৪ বছরের শিশুকন্যা আফসানা মিমি দুই টাকা নিয়ে ঝালমুড়ি কিনতে যায়। দীর্ঘক্ষণ পরও বাড়ি ফিরে না আসায় খোঁজাখুঁজি করে মিমিকে না পেয়ে থানায় জিডি করা হয়।
পরের দিন বিকেলে মাদরাসার খাদেম কুদ্দুস পুকুরে আফসানা মিমির মরদেহ পেয়ে বাবা ইমাম হোসেনকে খবর দেন। এ ঘটনায় ইমাম হোসেন খালিশপুর থানায় অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে মামলা করলেও ইমাম হোসেন এজাহারে উল্লেখ করেন, এলাকার কালা বাবুল, কাদের ও এমদাদসহ কয়েকজন তার মেয়ে আফসানা মিমিকে উত্ত্যক্ত করতো। ২০১০ সালের ২৩ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খালিশপুর থানার ওসি আবু মোকাদ্দেশ আলী আদালতে ছয়জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দেন। মামলায় ১৮ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জন সাক্ষ্য দেন।
রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট ফরিদ আহমেদ ও বাদীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন মোমিনুল ইসলাম।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft