শিরোনাম: জনগণের তাড়ায় পালাবার পথ পাবেন না : ফখরুল       জাপার কমিটি চূড়ান্ত করবেন জিএম কাদের-রওশন       আইএসের একজন জঙ্গিও পালাতে পারবে না : এরদোয়ান       ফের রাস্তায় নামল বিনিয়োগকারী       তুরস্কে বিমান বিধ্বস্ত       নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেটের বিরুদ্ধে রুল       ঢাকা কলেজ ছাড়লেন আবরারের ছোট ভাই       আসামের পর গোটা ভারতেই হবে এনআরসি : অমিত শাহ       পুলিশের কাজে বাধা : আব্বাস-আলাল-সোহেলদের বিচার শুরু       পাত্তা পাননি নেতানিয়াহু, এবার প্রেসিডেন্ট অনুরোধ করলেন পুতিনকে      
“যুবলীগ নেতা সোহাগের বিরুদ্ধে কলাপাড়ার পাঁচ ভূমিহীন পরিবারের অভিযোগ”
কলাপাড়া (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা :
Published : Saturday, 21 September, 2019 at 8:34 PM
“যুবলীগ নেতা সোহাগের বিরুদ্ধে কলাপাড়ার পাঁচ ভূমিহীন পরিবারের অভিযোগ”যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামিম আল সাইফুল সোহাগের বিরুদ্ধে পাঁচ পরিবারের জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। শনিবার দুপুরে পটুয়াখালীর কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন উপজেলার বালিয়াতলী ইউনিয়নের ইনারা বেগম। তবে যুবলীগ নেতা সোহাগ এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
ইনারা বেগমের অভিযোগ, পাঁচটি বন্দোবস্ত কেসের মাধ্যমে সরকার তাদের এই সাড়ে সাত একর জমি বন্দোবস্ত দেয় এবং তারা ওই জমিতে বসবাসকরাসহ চাষাবাদ করে আসছিলেন। যার প্রকৃত মালিক তাঁরা পাঁচটি পরিবার। যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা হওয়ায় ক্ষমতার অপব্যবহার করে শামিম আল সাইফুল সোহাগ সোনাপাড়া মৌজার খাস খতিয়ান ৩১৯১/৩১৯নং দাগের পাঁচ একর জমি ভূমি অফিসকে ভুল বুজাইয়া ডিসিআর নিয়ে মাছের ঘের করে। সাত বছর পূর্বে তাঁর ডিসিআরের মেয়াদ শেষ হলে তিঁনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে তাঁদের জমি দখলে নেয়ার চেষ্টা করে। এর প্রতিবাদ করায় ঢাকা,পটুয়াখালী ও কলাপাড়ায় তাদের নামে ১১টি মামলা করা হয় হয়রানী করার জন্য।
তাঁদের অভিযোগ, আদালত তাদের দখলে থাকা জমিতে কাউকে অনুপ্রবেশ করার নিষেধাজ্ঞা প্রদান করলেও যুবলীগ নেতা সোহাগ তাদের জমির উপর বাঁধদিয়ে জলাবদ্ধাতা সৃষ্টি করে। এ জলাবদ্ধতা নিরসনে কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করলে তাঁর নির্দেশে সরেজমিনে সত্যতা পেয়ে ভূমি কর্মকর্তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বাঁধ কেটে তাঁদের জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জনৈক মাকিত হোসেনকে বাদী বানিয়ে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ভূমিহীন নুর ছায়েদ হাওলাদার, তহশিলদার কামরুল ইসলাম,সোহেল, নোয়াব আলী, নুর মোহাম্মদ, নুর ইসলাম, ও ইনারা বেগমকে আসামী কলাপাড়া জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা করেন।
ইনারা বেগমসহ ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবারগুলোর আর্তি, যুবলীগ নেতা হওয়ায় তার সন্ত্রাসী বাহিনী মাকিত, রিপন, মাসুদ ও খলিল বহিনী দিয়ে তাঁদের প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। একেরপরএক মামলা দিয়ে হয়রানী করছে শুধু জমি দখলের জন্য। তাঁরা যুবলীগ নেতা সোহাগের রোষানল থেকে মৃক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামিম আল সাইফুল সোহাগ, তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিঁনি ওই পাঁচ পরিবারের জমিতে কোন ধরনের কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন না।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft