শিরোনাম: নারীর ক্ষমতায়নে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে : স্পিকার       বিমান বিধ্বংসী অত্যাধুনিক অস্ত্র যুক্ত হলো সেনাবাহিনীতে       দুর্নীতি সহনীয় পর্যায়ে আছে : খাদ্যমন্ত্রী       উত্তাল কাশ্মীর, যে কোনো মুহূর্তে ভয়ানক সহিংসতার আশঙ্কা       ছাত্ররাজনীতি নয়, শিক্ষকরা পেশাজীবী রাজনীতি বন্ধ করুন : হানিফ       চীন বিরোধীদের কঠোর হুমকি শি জিনপিংয়ের       কর না দিলে ব্যবস্থা : অর্থমন্ত্রী       মিয়ানমারে ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গারা নিজ গ্রামে যেতে পারছেন না        মাইন বিস্ফোরণে কেনিয়া পুলিশের ১০ সদস্য নিহত       ২২ অক্টোবর সোহরাওয়ার্দীতে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ      
রোহিঙ্গাদের এনআইডি তৈরিতে ইসির ২০ জন
কাগজ ডেস্ক :
Published : Monday, 23 September, 2019 at 6:45 AM
রোহিঙ্গাদের এনআইডি তৈরিতে ইসির ২০ জনরোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাইয়ে দেয়ার ঘটনায় গ্রেফতার নির্বাচন কমিশনের অফিস সহায়ক জয়নাল ও অস্থায়ী কর্মচারী মোস্তফা ফারুক ভয়ঙ্কর সব তথ্য দিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে।
এর বাইরে দুর্নীতি দমন কমিশন ও খোদ নির্বাচন কমিশনের তদন্তেও ওঠে এসেছে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতিতে কমিশনের ২০ কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংশ্লিষ্টতা। এই ২০ জনের মধ্যে জড়িত আছেন অন্তত দু’জন উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) উইংয়ের তিনজন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট।
চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে লাকি আক্তার নামে এক রোহিঙ্গা নারীর কাছ থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাওয়ার ঘটনায় চলতি মাসের ১১ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার থেকে তদন্তে নামে দুর্নীতি দমন কমিশন। টানা পাঁচ দিনের সেই অভিযানে রোহিঙ্গা দালালসহ সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়।
তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ১৬ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম নগরের ডবলমুরিং থানা নির্বাচন অফিসের অফিস সহায়ক জয়নাল আবেদিন (৩৫), তার সহযোগী বিজয় দাস (২৬)ও তার বোন সুমাইয়া (২৪) ওরফে সীমা দাসকে গ্রেফতার করা হয়। এর মধ্যে সুমাইয়ার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় নির্বাচন কমিশনের একটি খোঁয়া যাওয়া ল্যাপটপ (আইপি নম্বর ৪৩৯১)।
রোহিঙ্গাদের এনআইডি পাইয়ে দেয়ার মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন অফিস সহায়ক জয়নাল
পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল জালিয়াত চক্রের সঙ্গে জড়িত নির্বাচন কমিশনের উচ্চমান সহকারী আবুল খায়ের, আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসের মোজাম্মেল, মিরসরাই নির্বাচন অফিসের অফিস সহকারী আনোয়ার, পাঁচলাইশ থানা নির্বাচন অফিসের হোসাইন পাটোয়ারি ও বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের টেকনিক্যাল সাপোর্ট স্টাফ মোস্তফা ফারুকের নাম প্রকাশ করে।
জয়নালের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ১৯ সেপ্টেম্বর রাতে চট্টগ্রাম নির্বাচন অফিসের কর্মচারী মোস্তফা ফারুক (৩৫)কে গ্রেফতার করে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। মোস্তফা ফারুক চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের অধীন হালনাগাদ কার্যক্রমে টেকনিক্যাল সাপোর্ট স্টাফ হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
রোহিঙ্গাদের এনআইডি পাইয়ে দেয়ার মামলায় রিমা-ে আছেন ইসির অস্থায়ী কর্মচারী মোস্তফা
১৯ সেপ্টেম্বর রাতেই ফারুকের হামজারবাগের বাসায় অভিযান চালিয়ে নির্বাচন কমিশনের দু’টি ল্যাপটপ, রেজিস্টার্ড একটি মডেম, তিনটি সিগনেচার প্যাড ও জাতীয় পরিচয়পত্র লেমেনিটিং মেশিন জব্দ করে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। এর মধ্যে ডেল মডেলের একটি ল্যাপটপ নির্বাচন কমিশনের রেজিস্টার্ড ল্যাপটপ বলে শনাক্ত করে নির্বাচন কমিশনের টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট।
এনআইডি জালিয়াতিতে ইসির ২০ জন
রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তি ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাইয়ে দেয়ার মামলায় দায় স্বীকার করে ২১ সেপ্টেম্বর আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের অফিস সহায়ক জয়নাল আবেদিন। জবানবন্দিতে জয়নাল এই জালিয়াতির সঙ্গে ঢাকা ও চট্টগ্রামের নির্বাচন অফিসের বেশ কয়েকজন পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারীর নাম প্রকাশ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী সংস্থার এক কর্মকর্তা।
এদিকে গত ২০ সেপ্টেম্বর বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আবু ছালেহ মোহাম্মদ নোমানের আদালত রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাইয়ে দেয়ার মামলায় গ্রেফতার নির্বাচন কমিশনের কর্মচারী মোস্তফা ফারুকের পাঁচ দিনের রিমা- মঞ্জুর করেন। আদালতের অনুমতি পেয়েই মোস্তফা ফারুকে নিজেদের হেফাজতে নেয় কাউন্টার টেররিজম ইউনিট।
এ বিষয়ে সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, ‘জয়নাল আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে অনেক তথ্য দিয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এসব তথ্য প্রকাশ করা যাবে না। আমরা জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত থাকার তথ্য পেয়ে বেশ কয়েকজনের বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছি। এছাড়া রিমা-ে থাকা মোস্তফাও বেশ কিছু তথ্য দিয়েছে, প্রকাশ করেছে জড়িত ব্যক্তির তথ্য।’
জালিয়াতিতে জড়িত উপজেলা নির্বাচন অফিসার!
নির্বাচন কমিশন গঠিত তদন্ত কমিটি সূত্রে জানা গেছে, এ পর্যন্ত পাওয়া তথ্যে রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাইয়ে দেয়ায় জড়িত চক্রে চট্টগ্রাম অঞ্চলের অন্তত দুই উপজেলা নির্বাচন অফিসার সরাসরি জড়িত আছেন। এছাড়া রোহিঙ্গাদের ভোটার করা ও জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত সহায়তা দিচ্ছে এনআইডি উইংয়ের তিনজন টেকনিক্যাল এক্সপার্ট।
ইসি সার্ভারে রোহিঙ্গাদের ডাটা ইনপুট হতো রাতে
গ্রেফতারের পর পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল জানিয়েছিলেন, অফিস সহকারী হলেও ২০১৮ সাল থেকে নির্বাচন কমিশনের লাইসেন্সধারী ল্যাপটপের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকায় নিবন্ধনের কাজ শুরু করেন তিনি।
জয়নাল বাসায় বসে থানা নির্বাচন অফিসের সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করে রোহিঙ্গাদের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) তৈরির প্রাথমিক কাজ করতেন। নির্বাচন কমিশন থেকে চাকরিচ্যুত টেকনিক্যাল এক্সপার্ট সাগর এনআইডি সার্ভারে তথ্য আপলোড করতেন। তার কাছে ইসি সার্ভারের দেশের সব উপজেলার ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড জানা থাকার সুবাদে সে নির্বাচন কমিশনের সেন্ট্রাল সার্ভারে ডাটা ইনপুট দিতো। একই কায়দায় জয়নালের সরবরাহ করা তথ্যে নির্বাচন কমিশনের সেন্ট্রাল সার্ভারে প্রবেশ করে রোহিঙ্গাদের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) তৈরি করতেন সত্যসুন্দর। যিনি রাজধানীর লালাবাগে নির্বাচন কমিশনের সহযোগী প্রযুক্তিবিদ হিসেবে কর্মরত।
মোস্তফার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে নির্বাচন কমিশনের দু’টি রেজিস্টার্ড ল্যাপটপ, একটি মডেম, তিনটি সিগনেচার প্যাড ও জাতীয় পরিচয়পত্র লেমেনিটিং মেশিন। 




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft