শিরোনাম: সেপ্টেম্বরেই ‘যশোর রোডে’ উজ্জীবিত শিল্পকলা       শুক্রবার যশোরে ১০ জনের করোনা শনাক্ত        চৌগাছার আলোচিত লিপির গডফাদার তরিকুল আটক       শারদীয় দূর্গাপূজাঁয় তিন দিনের সরকারি ছুটির দাবিতে নড়াইলে মানববন্ধন        ফুলতলায় আল শেফা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের উদ্বোধন       মোরেলগঞ্জে চা দোকানিকে হত্যার ঘটনায় ৩ যুবক গ্রেফতার       মাকে হত্যার পর পুড়িয়ে লাশ গুমের অভিযোগে ছেলে গ্রেপ্তার       ইরানে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আরও ২০৭ জন       করোনা মোকাবিলায় সার্কের সহযোগিতা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী       বিএনপি নেতাদের চোখের চিকিৎসা করানোর পরামর্শ হানিফের      
সন্দেহ হলিই কি বাড়োয় লোক মারা যাবে?
Published : Tuesday, 8 October, 2019 at 6:06 AM
সন্দেহ হলিই কি বাড়োয় লোক মারা যাবে?চিটিডা লিকতি যাইয়ে দুক্কি পরানডা ফাইটে যাচ্চে। যাগের ছাবাল মাইয়ে আছে, তারাই এর মরমো বোঝবে। বুয়েটের মিধাবী ছাত্তর আবরাররে বাড়োয়ে মাইরে ফেলা হয়েছে। যারা মাইরেচে তারা বাইরির কেউ না। একই বিশ্ববিদ্যালয়তি পড়ে। তফাত হচ্চে যে মার খাইয়ে মইরেচে সে দলদারী করে না। আর যারা মাইরেচে তারা দলদারী করে।
এট্টা ছাবালরে বুয়েট পন্তিক পাটাতি মা বাপের কত কষ্ট আর ত্যাগ স্বীকার কত্তি হয় তা যারা করে তারাই জানে। হটাস কোন দূরঘটনায় মইরে গেলি তাও এট্টা জানে বুঝ থাকে। কিন্তুক জলজ্যান্ত এট্টা জুয়ান ছাবালরে ডাইকে নিয়ে যাইয়ে ঘরের দরজা বন্দ কইরে দিয়ে আট দশ জনে যদি এক সাথে বাইড়োনো হয়, তালি কত কষ্ট পাইয়ে তার জানডা বারোয় গেচে ভাবদি চোকি পানি চইলে আসতেচে। মানুষ ইরাম নিষ্টুর কিরাম কইরে হয়! শিবির সন্দেহ কইরে বাইড়োনো হয়েচে ইডা নিতাগের কতা। চোকির সুমকি ইরাম খুন হবে নিতারা কবেন বিষয়ডা খতায় দেকতেচি! তারপর কবেন দলের মদ্দি অনুপ্রবেশকারীরা এই কাজ কইরেচে! কয়দিন বাদে কবে ইরা দলের কেউ না, ইরা বিরোদীদলের লোক দলের বইদরাম করার জন্যি এই খাইন বাদায়েচে! ছল্লিবল্লি কইরে ঘটনাডারে ধামাচাপা দিয়ে দেবে। আর আমাগের দেশের লোকের আবেগও ঠুনকো। এট্টা ঘটনার পর আরাট্টা ঘটনা সুমকি আসলি পাছেরডার কতা আর মনেই থাকপেনা। স্মিতির তলে হারায় যাবে ইরাম ঘটনা।
কিন্তুক বিবেকের আদালোতে এট্টা পোশ্ন রাকলাম, সন্দেহ কল্লিই কি এট্টা মানুষরে বাড়োয় মারা যাবে? দেশে কি কোন আইন কানুন নেই? পিরায় শুনা যায় রোহিঙ্গা সন্দেহ কইরে পাগল আর মাতায় সমিস্যায়ালা মানুসগুলোরে পিটোয়ে পাটায় ফেলতেচে। ছাবাল ধরা সন্দেহ কইরে বাইড়োয়ে লোক মাইরে ফেলতেচে। গুজব ছড়ায় দিয়ে নানা রকম সন্দেহ কইরে ধমাধম বাড়োয়েই জ্যান্ত লোক মারার যে অভ্যেস দাড়ায় যাচ্চে, ইডা কি কোন সভ্য সমাজে হওয়া সম্ভব?  
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft