শিরোনাম: আত্মমানবতার সেবায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইচ্ছাপূরণ       ইলিয়াস কাঞ্চনের ‘মুখোশ উন্মোচনের’ হুংকার শাজাহান খানের       দুর্নীতি প্রতিরোধে রাজনৈতিক অঙ্গীকার পেয়েছি : টিআইবি       খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ বন্ধ করে দিয়েছে সরকার : রিজভী       পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ ইস্যুতে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই : উ. কোরিয়া       হট্টগোলে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইনি নোটিশ       আমরা চমক সৃষ্টি করতে পেরেছি : এলজিআরডি মন্ত্রী       তাপস বলার কে, প্রশ্ন দুদক চেয়ারম্যানের       মামলা লড়তে হেগের উদ্দেশে সু চি       ‘রিটার্ন দাখিলে বাধ্য করা হবে’      
এ সরকারের পতনের আগে যেন আমার মৃত্যু না হয়
কাগজ ডেস্ক :
Published : Friday, 8 November, 2019 at 7:23 PM
এ সরকারের পতনের আগে যেন আমার মৃত্যু না হয়জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, আল্লাহর কাছে দোয়া করি-এ সরকারের পতন হওয়ার আগে যেন আমার মৃত্যু না হয়।
শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে স্বাধীনতা ফোরামের উদ্যোগে অবিভক্ত ঢাকার নির্বাচিত মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।
রব বলেন, মানুষের কণ্ঠরোধ করে স্বাধীনতা হরণ করে, বেশিদিন যদি ক্ষমতায় থাকেন আমি কিন্তু বলতেছি না কি হবে । তবে মানুষ যদি রাস্তায় নেমে যায় আপনাদের কিন্তু খুঁজে পাওয়া যাবে না।
তিনি বলেন, ছাত্রের গুন্ডামির প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে পানিতে ডুবানো হয়েছে, এটা কি? চার মাস থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। প্রধানমন্ত্রী বিদেশে থাকা অবস্থায় থেকেই তারা আন্দোলন করছে। একটা ভাইস-চ্যান্সেলর একটা মহিলার যদি লজ্জা না থাকে, যদি আপনি ভুলও না করেন তারপরেও দায়িত্বে থাকেন কীভাবে? প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যদি দুর্নীতি খুঁজে পাওয়া যায় তাহলে ব্যবস্থা নেবেন। আপনি ব্যবস্থা নিয়েন তার আগে ভিসিকে সরান একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে, তারপরে ব্যবস্থা নেন। আসামিকে ক্ষমতায় রেখে কোনো সুষ্ঠু তদন্ত হয় না। কি আশ্চর্য ব্যাপার দেশের প্রধানমন্ত্রী কথা বলছেন উল্টাপাল্টা।
সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, মানুষ যখন রাস্তায় নামবে। কখন যে কি হবে তা বলা যায় না। কখন সে পায়ের তলার মাটি সরে যাবে, বসার চেয়ার সরে যাবে-তা বলা যায় না। তাই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন তা না হলে কি যে হবে চিন্তাও করতে পারবেন না।
এ সময় সবাইকে মাঠে নামার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, স্বৈরাচারের পতন একমাত্র ওষুধ হলো ঐক্য। মাঠের আন্দোলন ঘরে বসে স্মরণ সভা করে স্বৈরাচারের পতন হয় না। আপনারা যুবসমাজ ছাত্রসমাজ শ্রমিক-কৃষক সবাই মাঠে নামেন আমি এই বয়সেও আপনাদের সঙ্গে মাঠে নামব। আমাদের এই লড়াই চলবে, এই লড়াই বাঁচার লড়াই। রক্ত কত চায়? রক্ত ততই দিব তারপরেও দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবো।
স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শিমুল বিশ্বাস, নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী, কৃষক দলের সদস্য এম জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft