শিরোনাম: ব্র্যাক ব্যাংকের সঙ্গে এসএমই ফাউন্ডেশনের চুক্তি       দেশকে বাঁচাতে হলে দুর্বার গণআন্দোলন গড়তে হবে : ফখরুল       নির্ভয়ার ৪ ধর্ষকের ফাঁসির জন্য জল্লাদ চাইল তিহার জেল       দায়িত্ব নিয়ে কাজ করুন : তাজুল ইসলাম       মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ফেরাতে উঠেপড়ে লেগেছে পাকিস্তান        সুস্থ পাটমন্ত্রী, হাসপাতাল ছাড়তে পারেন কাল       চীনের ভাইরাস ছড়িয়ে পড়বে ভারতেও       ৩০ জানুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় অস্ত্র বহন নিষিদ্ধ       ভারত হিন্দুদের, দেশের ১৩০ কোটি মানুষই হিন্দু : আরএসএস       পানি রপ্তানি করবে বাংলাদেশ      
চালের দাম মোটেও বাড়ছে না : কৃষিমন্ত্রী
কাগজ ডেস্ক :
Published : Friday, 6 December, 2019 at 4:41 PM
চালের দাম মোটেও বাড়ছে না : কৃষিমন্ত্রীকৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, চালের দাম মোটেও বাড়ছে না। চিকন চালের দাম একটু বেড়েছে। এক মণ ধান উৎপাদনে কৃষকের লাগে ৭০০ টাকা। তাহলে চালের দাম কম হলে কৃষক বাঁচবে কীভাবে? কৃষককে তো বাঁচাতে হবে। সুতরাং চালের কোনো সমস্যা নেই, দাম এখনো কমই আছে।
মোটা চালের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, মোটা চালের দাম এক টাকাও বাড়েনি। মোটা চালের চাহিদা নেই, সেগুলো কেউ খেতে চায় না, এটা নিয়ে আমরা টেনশনে আছি। চিকন চাল কেন খেতে হবে? মোটা চালে তো কোনো সমস্যা নেই, আমরা মোটা চাল খেতে পারি।
শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউ সেচ ভবনে ‘কৃষকের বাজার’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। এ বাজারে কৃষক সরাসরি নিজেদের উৎপাদিত নিরাপদ সবজি বিক্রি করতে পারবে। কোনো মধ্যসত্ত্বভোগী এখানে ফায়দা লুটতে পারবে না। ফলে লাভবান হবে কৃষক।  
পেঁয়াজ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজ সাধারণত দু’টি মৌসুমে হয়। বাজারে পেঁয়াজের অস্বাভাবিক দামের কারণে যতোটুকু বড় হওয়ার কথা, তার আগেই পেঁয়াজ তুলে বেশি দামে বিক্রি করছেন চাষিরা। এটি একটি শঙ্কার বিষয়। আমরা মনে করি, নতুন পেঁয়াজ ওঠার পরে দামটা কমে আসবে। অন্যান্য দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে।
‘কৃষকের বাজার’ সম্পর্কে তিনি বলেন, এখানে আমাদের তত্ত্বাবধানে কিছু কৃষককে প্রণোদনা দিয়ে নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনে উৎসাহিত করছি। কৃষকের বাজারে তারাই নিরাপদ খাদ্য নিয়ে এসেছেন। নিরাপদ সবজি উৎপাদনের এ বাজার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এটাকে আমরা মডেল হিসেবে চিন্তা করতে পারি। পর্যায়ক্রমে রাজধানীর অন্যান্য জায়গায়ও এ ধরনের নিরাপদ সবজির বাজার স্থাপন করা হবে।
‘কৃষকের বাজার’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক (বাঁ থেকে তৃতীয়), ছবি: বার্তা২৪.কম
দানা জাতীয় খাদ্য বাংলাদেশ উদ্বৃত্ত আছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমরা এখন উদ্বৃত্ত দানা জাতীয় খাদ্যের দেশ। এ বছর বাংলাদেশ থেকে ৮০০ মিলিয়ন ডলারের শাকসবজি ও কৃষি পণ্য বিদেশে রপ্তানি হয়েছে। এটি অব্যাহতভাবে বাড়ছে। গত অর্থবছরে কৃষি ক্ষেত্রে রপ্তানি অগ্রগতি হয়েছে ৩৪ ভাগ। অন্যান্য সব সেক্টরের চেয়ে কৃষি সেক্টরে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নিরাপদ সবজির এ ধরনের বাজার কূটনৈতিক পাড়ায় করার আহ্বান জানিয়েছেন বিশ্ব খাদ্য সংস্থার বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর রবার্ট ড. সিমপন।
এর আগে কৃষিমন্ত্রী সেচ ভবনে অবস্থিত কৃষকের বাজার ঘুরে দেখেন। নতুন এ বাজার সপ্তাহে দুই দিন শুক্র ও শনিবার সকাল ৭টায় খুলবে।
কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নাসিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএডিসির চেয়ারম্যান মো. সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. আবদুল মুঈদ, বিপণন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফসহ অনেকে।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft