শিরোনাম: বোয়ালমারীতে মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিতের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন       কাঠালিয়ায় জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন       জিয়া আমাকে মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল : রাষ্ট্রপতি       বিএনপি সবসময় বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারে বিরোধিতা করেছে : কাদের       মোরেলগঞ্জে শোক দিবসে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা       নির্বাচনে হারলেও ট্রাম্প নীরবে ক্ষমতা ছাড়বেন না : হিলারি       খোকসায় আ.লীগ সভাপ‌তি বাবুল আখতা‌রের নেতৃ‌ত্বে শোক র‌্যালী       দিনাজপুরে বঙ্গবন্ধু'র শাহাদাত বার্ষিকী        স্বাধীনতা দিবসে চীন-পাকিস্তানকে মোদির হুঁশিয়ারি       আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখুন : রিজভী      
ডিম যেন ঘুড়ার ডিম না হইয়ে যায় !
Published : Tuesday, 14 July, 2020 at 10:15 PM
ডিম যেন ঘুড়ার ডিম না হইয়ে যায় !বাজারে মজিমজি ডিমির দাম বাইড়েই চলেচে। ফারমের কুকড়োর ডিমির দাম নয়টাকা, কোনটোয় তার চাইতেও বেশী দামে বিক্কির হচ্চে। দেশী হাস কুকড়োর ডিম তো একন ডুমোরির ফুল হতি চইলেচে। যাও বা দুডো এট্টা পাওয়া যাচ্চে তার দামও চড়া। এই দুযযোগের মদ্দি মানুস খাবেডা কি কও দিনি বাপু। ডিম রে এক সুমায় কওয়া হইতো গরীবির গোস্ত। যারা ছাবাল মাইয়েরে গোস্ত খাওয়াতি পাইত্তো না তারা কুটুম সাক্কেত আসলি তারা বাড়ি ডিম রাইনতো। ইরামও সুমায় গেচে আমরা যারা গিরামে থাকি তারা আস্তো ডিমও খাতি পাত্তাম না। বাড়ি ডিম রান্দা হলি এট্টা ডিম ভাইঙ্গে দোভাগা, তিনভাগা কইরে খাতি হইতো। এ সব কলি অনেকে একন বিশ্বাসও কত্তি চাবে না। দেশে একন যিরাম টাকার অভাবও নেই সিরাম ডিমিরও অভাব নেই। বরং দরকারের চাইতি দেড়ী ডিম পাড়তেচে কুকড়োয়। দেশী কুকড়ো ডিম পাড়ায় হাইবিড কুকড়োর কাচে হ্যারেজও খাইয়ে যাচ্চে। আগে মানুস মনে কইত্তো দেশী কুকড়োর ডিমি পুস্টি বেশী কিন্তুক  পুষ্টিবিদরা কচ্চেন হাইবিড কুকড়োর ডিমি পুস্টি বেশী। তাগের মতে যে ডিম সাইজি বড় তা পুস্টিতিও বড়। আমি মুক্কু সুক্কু মানুস হ্যাতো জ্ঞাণ গরিমে আমার নেই। আমি শুদু এট্টা জিনুস নিয়ে দু কতা লিকার জন্যি বইলাম। সিডা হচ্চে একন সব কিচুতি পাল্লাপাল্লি। কুকড়োর ডিম পাড়ানো নিয়েও চলচে পাল্লাপাল্লি। যারা বিদেশী জাতের ডিম পাড়া কুকড়োর খামার করেন তারাও চান কুকড়ো ডিম পাড়ায় জিপিএ পাচ কিম্বা গোল্ডেন পাক। বেশী ডিম, বড় ডিম পাড়ানো চিস্টার সাতে সাতে চিস্টা চালাচ্চে দেড়ী ডিম পাড়ানোর। খামারে ইরাম দশা গাই দুয়ানোর মত সকাল বিকেল দু’বার ডিম পাড়াতি পাল্লি ভালো হয়। এ পাল্লা দিতি যাইয়ে কুকড়োরে যা খাওয়ানো হচ্চে তার মদ্দি কেমিকেল,এন্টি বায়টিক আর বিষাক্ত জিনুস  ব্যবহার দিনকে দিন বাড়েই যাচ্চে। যা মানসির শরীলির জন্যি ক্ষেতিকর। বড়গের চাইতে গুড়–লেগের জন্যি ইরাম ডিম বেশী ক্ষেতিকর। ডিম খাতি মানসির উসসাহ দেচ্চেন তারা যদি দয়া কইরে এই বিষয়ডার দিকি খিয়াল দেন তালি কিতাত্ত হই। না হলি টাকা দিয়ে ডিম কিনে তার ফল ঘুড়ার ডিম হইয়ে যাতি পারে।
ইতি
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft