আজ মঙ্গলবার, ৯ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৪ অক্টোবর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম: কলেজ স্টুডেন্ট শেড এখন চায়ের দোকান!       সীতাকুন্ডে জেলেদের জালে ১৩ মহিষ       সীতাকুন্ডে বিপুল অস্ত্রসহ মশিউর বাহিনীর প্রধান ও তার সহযোগী গ্রেফতার       স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ৩ দিনের সফরে মিয়ানমারে        হঠাৎ হিরো বনে গেলেন পাক পেসার উসমান       পিএসজির পয়েন্ট কেড়ে নিলো মার্সেই       অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফুটবলের সেমিতে ব্রাজিল       মাশরাফি-মুশফিক ব্যর্থ॥ সাকিবের দিকে নজর       রিয়াল মাদ্রিদকে জয় এনে দিলো তরুণরাই       বুধবার থেকে দলগুলোর অনুশীলন শুরু      
দেবের কারণে রুক্মিণীর দুঃখ!
বিনোদন ডেস্ক :
Published : Thursday, 12 October, 2017 at 6:38 PM
দেবের কারণে রুক্মিণীর দুঃখ!দেব ও রুক্মিণী মৈত্র অভিনীত ‘ককপিট’ এখনো রমরমিয়ে চলছে পশ্চিম বঙ্গে সিনেমা হলে। কিন্তু নায়িকার মুখ থেকে মিলিয়ে গিয়েছে হাসি। আর ব্যাপারটি ঘটল দেবের কারণে। খবর এবেলা ডটকম।
এখনো পশ্চিমবঙ্গের বহু সিনেমা হল থেকে নামেনি হাউসফুল বোর্ড। সংখ্যায় কম হল পেলেও, দেব খুশি তার দর্শকের স্বতঃস্ফূর্ত অভিব্যক্তিতে। নিজেই জানিয়েছেন অভিনন্দন, টুইটার হ্যান্ডল থেকে।
অভিনন্দন জানিয়েছেন তার উচ্ছ্বসিত বান্ধবী রুক্মিণীও। কিন্তু এরই মধ্যে রুক্মিণীর সব উচ্ছ্বাস উধাও। মিলিয়ে গিয়েছে মুখের হাসি।
কারণটা বেশ ‘গুরুতর’! ‘ককপিট’-এর বোঝা নামতে-না নামতেই প্রোডিউসার দেব রুক্মিণীর হাতে একটি মোটাসোটা স্ক্রিপ্ট ধরিয়েছেন। উপরে লেখা নাম ‘কবীর’।
অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের পরের ছবি ‘কবীর’-এর প্রি-প্রোডাকশন শুরু হয়ে গিয়েছে জোরকদমে। রুক্মিণীকে এবার ৫৫ পাতার একটা স্ক্রিপ্ট পড়তে হবে।
এসব ব্যাপারে প্রোডিউসার দেব খুবিই কড়া। সেটা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন বান্ধবী রুক্মিণী। তাই নিজেই পোস্ট করেছেন টুইটারে বিধ্বস্ত চেহারার ছবি! ৫৫ পাতার স্ক্রিপ্ট এখন বসে বসে পড়তে হবে তাকে। দেব কী নিষ্ঠুর!





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : gramerka@gmail.com, editor@gramerkagoj.com
Design and Developed by i2soft