রবিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১
অর্থকড়ি
খুলনার ৯ পাটকলে ৩২৫ কোটি টাকার পণ্য মজুদ
বিদেশে বাজার মন্দার কারণে হচ্ছে না বিক্রি
খুলনা ব্যুরো :
Published : Tuesday, 21 May, 2019 at 6:33 AM

বিদেশে বাজার মন্দার কারণে হচ্ছে না বিক্রিখুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব ৯টি পাটকলে প্রায় ৩২৫ কোটি টাকা মূল্যের পাটজাত পণ্য মজুদ রয়েছে, বিক্রি হচ্ছে না।
বিদেশে বাজার মন্দাই এর কারণ। এসব পণ্য মজুদ পড়ে আছে প্রায় বছরজুড়ে। ফলে কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং শ্রমিকদের বেতন ও মজুরি বাবদ ৭৫ কোটি ১৪ লাখ ৭শ’ টাকা দেনা হয়ে পড়েছে পাটকলগুলো।
এদিকে, শ্রমিকদের অব্যাহত ধর্মঘটের কারণে খুলনা অঞ্চলের  রাষ্ট্রায়ত্ব ৯টি পাটকলে অন্তত ৬ কোটি টাকার লোকসান হয়েছে বলছেন সংশ্লিষ্টরা। শ্রমিকদের ধর্মঘট সময় যত বাড়বে, লোকসানের পরিমাণও তত বাড়বে- বলছেন তারা।
বকেয়া মজুরি প্রদান ও মজুরি কমিশন বাস্তবায়নসহ ৯দফা দাবিতে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব ৯টি জুটমিলের ৩৩হাজার শ্রমিক মিলগুলোতে উৎপাদন বন্ধ রেখে সড়ক ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে। শ্রমিকদের এ আন্দোলনের কারণে খালিশপুর শিল্পাঞ্চলসহ খুলনা অঞ্চলের পাটকলগুলোতে বর্তমানে ‘অগ্নিগর্ভ’ অবস্থা।
বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশন (বিজেএমসি) সূত্র জানায়, খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব ৯টি জুটমিলের শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের ১২ সপ্তাহের মজুরি ও বেতনসহ  প্রায় ৬৫ কোটি টাকা বকেয়া পড়েছে। এরমধ্যে শুধুমাত্র শ্রমিকেদের বকেয়া পাওনা রয়েছে ৫৮ কোটি ৭০লাখ ৫০হাজার টাকা। এছাড়া কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গত চারমাসে ১৬ কোটি ৪৪লাখ ১৭ হাজার টাকা বকেয়া পড়েছে। দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া মজুরি ও বেতন না পেয়ে পাটকলগুলোর শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।
মিল সূত্র জানায়, খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব ৯টি জুটমিলের প্রতিদিনের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ২৭২ মেট্রিক টন। সেখানে প্রতিদিন উৎপাদন হচ্ছে ১০০ দশমিক ২৯ মেট্রিক টন। প্রতিদিনের উৎপাদিত এই পাটজাত পণ্যের বাজার মূল্য ৮০ থেকে ৮৫ লাখ টাকা। বর্তমানে পাটকলগুলোতে মাত্র ৪৭হাজার ৭৪৭ কুইন্টাল কাঁচাপাট মজুদ রয়েছে। যা দিয়ে মাত্র ১৫দিন পাটকলগুলোর উৎপাদন চলতে পারে। এছাড়া উক্ত মিলগুলোতে ৩২ হাজার ৬৬০ মেট্রিক টন হেসিয়ান, সেকিং, সিবিসি ও ইয়ার্ন পাটজাতপণ্য মজুদ আছে।
এদিকে, খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলে প্রায় ৩২৫ কোটি টাকার পাটজাত পণ্য মজুদ রয়েছে। বাংলাদেশের পাটজাত পণ্যের মূল বাজার হচ্ছে, সুদান, ঘানা, সিরিয়া, ইরান ও ভারত। কিন্তু গত এক বছর ধরে ওই দেশগুলোতে বাংলাদেশের পাটজাত পণ্য রপ্তানি বন্ধ রয়েছে। ফলে পাটকলগুলো চরম আর্থিক সংকটে পড়েছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দাবি করছেন।
বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশন খুলনা অঞ্চলের সমন্বয়কারী (লিয়াজোঁ কর্মকর্তা) মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোর শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের মজুরি ও বেতন বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ কারণে তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। তবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ শ্রমিক-কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোধ করার চেষ্টা করছেন। আশা করি খুব দ্রুতই এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।’
উল্লেখ্য, বর্তমানে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলে ১৪ হাজার ৫২৫জন স্থায়ী, ১৮ হাজার অস্থায়ী এবং ৫২২জন বদলি শ্রমিকসহ ৩৩ হাজার ৪৭জন শ্রমিক এবং ১ হাজার ১৮৭জন কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft