রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২
আন্তর্জাতিক সংবাদ
ইভিএমে কারচুপির অভিযোগ, উদ্বিগ্ন প্রণব
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Wednesday, 22 May, 2019 at 12:40 PM
ইভিএমে কারচুপির অভিযোগ, উদ্বিগ্ন প্রণবভারতে লোকসভা নির্বাচনের ভোট পর্ব শেষ হওয়ার পর ইভিএমে কারচুপির অভিযোগ ওঠায় উদ্বিগ্ন দেশটির সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়।
মঙ্গলবার (২১ মে) ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির এডিটোরিয়াল ডিরেক্টর সোনিয়া সিংয়ের লেখা বই ‘ইন্ডিয়া থ্রু দেয়ার আইজ'-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে তিনি এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
প্রণব বলেন, সাংবিধানিক সংস্থা হিসেবে নিজের গ্রহণযোগ্যতা বজায় রাখার দায় নির্বাচন কমিশনের। এখন ইভিএম নির্বাচন কমিশনের দায়িত্বে আছে। সেগুলো যাতে সুরক্ষিত থাকে তার দায় কমিশনের।
এর আগে সম্পূর্ণ ভিন্ন অবস্থান নেন দেশের সাবেক এবং এ পর্যন্ত একমাত্র বাঙালি রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। উ
দ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রণব বলেন, আমরা যদি আমাদের দেশের সাংবিধানিক সংস্থাগুলোকে মজবুত করতে চাই তাহলে মনে রাখতে হবে এ ধরনের সংস্থা আসলে দেশের কাজে লাগে। আমাদের দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা যদি সাফল্য পেয়ে থাকে তাহলে তার সিংহভাগ জুড়ে রয়েছে নির্বাচন নির্বিঘ্নে আয়োজন করতে পারার বিষয়টি। সে ব্যাপারে সুকুমার সেন থেকে শুরু করে এখনকার মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সকলেরই ভূমিকা রয়েছে। তারা নিজেদের কাজ ঠিক করে পালন করছেন। তাদের সমালোচনা করা যায় না। নির্বাচন আয়োজনে কোনওরকম ত্রুটি হয়নি।
তিনি বলেন, দেশের সংস্থাগুলো নিজেদের মতো কাজ করছে। দীর্ঘ অভিজ্ঞতায় সেগুলো আরও সমৃদ্ধ হয়েছে। আমি বিশ্বাস করি যার কাজের দক্ষতা নেই সে যন্ত্রপাতি এবং সরঞ্জাম নিয়ে প্রশ্ন তোলে। যার কাজের দক্ষতা আছে সে জানে কোন যন্ত্রকে কীভাবে ব্যবহার করতে হয়।
উত্তর প্রদেশ এবং বিহারের কিছু জায়গায় ইভিএম মেশিনে কারচুপির অভিযোগ উঠে। আর তার প্রতিবাদে স্ট্রং রুমের বাইরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা।
পূর্ব উত্তর প্রদেশের গাজিপুরের বিএসপি প্রার্থী প্রার্থী আফজাল আনসারী স্ট্রং রুমের বাইরে অবস্থানে বসেন। তিনি ও তার সহযোগিদের দাবি ইভিএমে কারচুপির চেষ্টা হয়েছে। তবে তার অভিযোগ মানতে রাজি হয়নি পুলিশ। হরিয়ানা থেকেও একই রকমের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এরই মধ্যে চেন্নাইয়ের একটি সংস্থা দাবি করে ইভিএমের সঙ্গে ১০০ শতাংশ ভিভিপ্যাট মিলিয়ে দেখতে হবে। সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থও হয় তারা। এই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত।
বিচারপতি অরুণ মিত্রের নেতৃত্বাধীন অবসরকালীন ব্যাংক জানায়, এমন দাবি হাস্যকর। তাই তা নিয়ে শুনানির কোনও প্রয়োজন নেই।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft