শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১
আন্তর্জাতিক সংবাদ
মনিপুরের স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়া সেই দুই নেতার বিরুদ্ধে মামলা
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Thursday, 31 October, 2019 at 8:49 PM
মনিপুরের স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়া সেই দুই নেতার বিরুদ্ধে মামলাযুক্তরাজ্যে মনিপুরের স্বাধীনতা ও প্রবাসী সরকার গঠনের ঘোষণা দেওয়া দুই রাজনীতিকের বিরুদ্ধে ভারতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় ভারতের জাতীয় তদন্ত সংস্থার (এনআইএ) একটি তদন্তের জন্যও রাজ্য সরকার অনুরোধ জানিয়েছে কেন্দ্রকে।
মঙ্গলবার লন্ডনে নির্বাসিত দুই মনিপুরী নেতা ইয়ামবিন বিরেন ও নরেংবাম সমরজিত রাজ্যটির স্বাধীনতা ও প্রবাসী সরকার ঘোষণা করেন।
লন্ডনের প্রবাসী সরকারের নাম দেওয়া হয়েছে মনিপুর স্টেট কাউন্সিল। কাউন্সিলের মুখ্যমন্ত্রী করা হয়েছে ইয়ামবিন বিরেন-কে। আর পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন নরেংবাম সমরজিত। তারা দুইজনই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। তারা দাবি করেন, মনিপুরের মহারাজা লিয়েশেম্বা সানাজায়োবার হয়ে তারা এই ঘোষণা দিয়েছেন।
দুই নেতার বিরুদ্ধে ‘রাজ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার’ অভিযোগে পুলিশের কাছে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মনিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বিরেন সিং। তিনি আরো জানিয়েছেন, রাজ্যের অপরাধ শাখা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে। এছাড়া রাজ্য সরকার বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়কে ঘটনাটি জানিয়েছে এবং এনআইএ’র তদন্ত চেয়ে অনুরোধ করেছে।
এদিকে, মনিপুরের রাজা লেইশেম্বা সানাজাওবা তার পক্ষ থেকে প্রবাসী সরকার গঠনের ঘোষণায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি দাবি করেছেন, তার পক্ষ থেকে কাউকে কথা বলার দায়িত্ব তিনি দেননি। তিনি শুধু ব্রিটিশ শাসনামলের কিছু নথি সংগ্রহ করতে বলেছিলেন।
এর আগে এক ঘোষণায় তারা বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সামনে মনিপুর সরকারের স্বাধীনতা ঘোষণার এটাই সঠিক সময়। আমরা জাতিসংঘের প্রতিটি সার্বভৌম সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছি যে, তারা আজ থেকে যেন মনিপুরের নির্বাসিত সরকারকে স্বীকৃতি দেয়।’ মনিপুরের ৩০ লাখ বাসিন্দা স্বাধীনতার স্বীকৃতি চায় বলেও উল্লেখ করেন তারা।
মনিপুরের এই দুই নেতা জানিয়েছেন, ভারত সরকারের কাছ থেকে তারা ঘৃণা এবং শত্রুতা ছাড়া আর কিছুই পাননি। তারা বলেন, ভারতে অবস্থানকালে তাদের পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণা মোটেও সহজ ছিল না।
কারণ এমন কিছু ঘটলে ভারত সরকার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিত। তাদের নেতাদের ভারত সরকারের হাতে আটক, নির্যাতন বা বিচারবর্হিভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার হতে হতো।
তারা বলেন, নরেন্দ্র মোদি সরকার হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠায় ছোট জাতি এবং সম্প্রদায়ের প্রতি অসহিষ্ণু আচরণ করছে। তারা এসব সম্প্রদায়ের বিনাশ সাধনে বিশ্বাসী। তাই ভারতে থেকে নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করা তাদের জন্য মোটেও নিরাপদ ছিল না।
মনিপুরের এই নেতারা বলেন, মনিপুরে গত ১০ বছরে অন্যায়ভাবে প্রায় সাড়ে চার হাজার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া আরও দেড় হাজারের বেশি মানুষকে অবৈধভাবে বন্দি করা হয়েছে। ভারতী সেনাদের হাতে গত কয়েক দশকে প্রায় ১৫ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছে বলেও তারা জানান।
প্রসঙ্গত, ভারতের সেভেন সিস্টার্সের সবচেয়ে ক্ষুদ্র রাজ্য মনিপুর। এই রাজ্যের লোকসংখ্যা মাত্র ২৮ লাখ। প্রায় ২.৮ মিলিয়ন লোকের জনসংখ্যার সাথে ভারতের অন্যতম মণিপুর তথাকথিত "সেভেন সিস্টার্স" - উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রতিরোধী একটি দল। কয়েক দশক ধরে স্বায়ত্ত্বশাসনের দাবিতে আন্দোলন করছে রাজ্যের শতাধিক বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী। তাই সহিংসতা মনিপুরের জনগণের নিত্যসঙ্গী।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft