রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২
ওপার বাংলা
কোলকাতায় সভার অনুমতি না পেলে আদালতে যাবে বিজেপি
কাগজ ডেস্ক :
Published : Sunday, 23 February, 2020 at 7:48 PM
কোলকাতায় সভার অনুমতি না পেলে আদালতে যাবে বিজেপিপশ্চিমবঙ্গের শহীদ মিনার ময়দানে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সভার অনুমতি পুলিশ না দিলে আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে বিজেপি ৷ ভারতীয় গণমাধ্য কোলকাতা ২৪ এ এই তথ্য পাওয়ো গেছ।
শনিবার সেই ইঙ্গিত দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। সিএএ ও এনআরসি নিয়ে সভা করতে ১ মার্চ কলকাতায় আসছেন অমিত শাহ। সভা করার কথা শহীদ মিনারে। তাকে সংবর্ধনা দেওয়ার কর্মসূচিও রয়েছে এই রাজ্যের বিজেপি নেতাদের।
অমিত শাহর সভায় সেনাবাহিনীর অনুমতি মিলেছে বৃহস্পতিবারই। যদিও ওই দিন লালবাজারে জনসভা করার অনুমতির জন্য আবেদন করা হলেও তা এখনো পায়নি রাজ্য বিজেপি।
সায়ন্তন জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ অমিত শাহর সভার অনুমতি না দিলে আদালতে মূলত তিনটি যুক্তিকে তুলে ধরবে তারা।
প্রথমত, ২০১৪ সালের ২৫ মার্চ শহিদ মিনার ময়দানে সভা করেছিলেন রাহুল গান্ধী। সেইসময় উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা চলছিলো৷ পরীক্ষা শেষ হয়েছিলো ২৭ মার্চ৷ বিজেপির প্রশ্ন, একই পরিস্থিতিতে রাহুল গান্ধী যদি সভা করার অনুমতি পান তাহলে অমিত শাহ পাবেন না কেন? তারাও এটাও উল্লেখ করেছে যে, ১ মার্চ অমিত শাহর সভার দিন কোনও পরীক্ষা নেই। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষাও পরে শুরু হচ্ছে।
দ্বিতীয়ত, সভার অনুমতি না দেয়ার জন্য কলকাতা পুলিশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ পরিষদের নিয়মকে হাতিয়ার করছে৷ তাদের বক্তব্য, পরিষদের নিয়ম অনুযায়ী, পরীক্ষা চলাকালীন রাজ্যের কোনও প্রান্তেই মাইক বাজানো যায় না। কিন্তু বিজেপির যুক্তি দূষণ নিয়ন্ত্রণ পরিষদে নির্দেশিকায় রয়েছে, পরীক্ষার তিনদিন আগে মাইক বাজানো যাবে না। এক্ষেত্রে তাদের দাবি, ২৭ ফেব্রুয়ারি মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হয়ে যাচ্ছে। আর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ১২ মার্চ। তাহলে ১ মার্চ সভার ক্ষেত্রে কোনও অসুবিধা হচ্ছে না। উল্লেখ্য, শুক্রবারই দূষণ নিয়ন্ত্রণ পরিষদের সঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তারা বৈঠক করার পর জানিয়েছেন, শহিদ মিনারে ওই সময়ে কোনও সভারই অনুমতি দেয়া যাবে না।
তৃতীয়ত, প্রতি বছরই পরীক্ষার মৌসুমের আগে রাজ্য সরকার একটা নির্দেশিকা জারি করে। সেখানে লেখা থাকে, পরীক্ষার মৌসুমে ‘রেসিডেন্সিয়াল’ এলাকায় মাইক বাজানো যাবে না। এক্ষেত্রে বিজেপি নেতাদের দাবি, শহীদ মিনার ময়দান ‘নন রেসিডেন্সিয়াল’ এলাকা। এই তিনটি যুক্তিকে দাড় করিয়েই হাই কোর্টে মামলা দায়ের করবে বিজেপি। তবে সবটাই নির্ভর করছে কলকাতা পুলিশের অনুমতি দেয়া না দেয়ার উপর।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft