বুধবার, ১৬ জুন, ২০২১
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
জীবন আগে না কিস্তি আগে ?
Published : Friday, 12 June, 2020 at 10:40 PM
জীবন আগে না কিস্তি আগে ?এক সুমায় গ্রাম গঞ্জের মানুষির কাছে আতংকের নাম ছিল কাবলীয়ালা। হাতনেই বসে মিঠে মিঠে কতা কয়ে সুখ দুকির খবর নিয়ে টাকা কড়ি ধার দিত। ছালে ছুতোয় আবার কড়ায় গন্ডায় সুদি আসোলি সে টাকা তুলেও নিত। কাবলীয়ালারা চলে গিলিও থাকে গেছে সেই সুদে কারবার। খাই খালাসী, জয়সুদী, পাট্টা, কবুলিয়ত, ক্ষুদেঋণ এ রকম নানান নামে চলে আসছে সুদে কারবার । এনজোগের ভাষায় যা কেডিট, গ্রামের টাকাওয়ালাগের ভাষায় তাই  দাদন।  সুমায়ের সাথে সাথে এই সব সুদে কারবারের শুধু নামে পাল্টায়েছে কিন্তু কামে পাল্টায়নি। সুদির ফান কারেন জালের চায়েও চিকন। চোকি দেকা যায়না কিন্তু একবার জালে জড়ায়  গেলি তাগের জান পয়মাল। জমি জুমা ভিটে মাটি বেচে ভিটেছাড়া হয়েও এই সব্বনাশা জালেত্তে বের হতি পাচ্চেনা। কতজনতো এ জ্বালা জুড়োতি বিষখায়ে,গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা পর্যন্ত কত্তেচ্চে। মানসির জীবন থাইমে গিলিও থামছে না সুদে কারবার। কাজের সুযোগ , জিনিসপত্র কিনা বেচা, পড়ালিখা, বিদেশ যাওয়া হেন কোন খাত নেই যেখানে নেই এই সুদির মায়াজাল। একন সাতদিনির বদলি সপ্তাহ হচ্চে আটদিনে । শুক্রুরবার, শনিবার, রবিবারের মতো আছে কিস্তিবার। কিস্তিবারের চিন্তায় মানসির খাওয়া ঘোম হারাম। মুকি মুকি যে হারে সুদির কতা কয় তলশুড়া করে কাগজে কলমে কাটে নেয় আরো বেশী। সদস্য হওয়া, টাকা জমানো, বই খুলা এই সব ঝামেলা জন্যি যারা এনজোগের কাছে যাতি চায়না তাগের জন্যি রয়েছে দাদন। চালিই টাকা পাওয়া যায় তবে হাজারে পতি মাসে একশ, দেড়’শ, দু’শো করে সুদ দিতি হয়। যে টাকা সুদ হয় সে সুদির টাকা দিতি ফেল কল্লি সিডা আবার যোগ হয় আসলের সাথে। বাড়ে যায় আরো সুদ।  কেউ দশ হাজার টাকা নিয়ে পঞ্চাশ হাজার টাকা দিয়েও শোধ মেলেনা সুদির হাত থেকে। গরিবগুরো মানসির অভাবের সুযোগে এইভাবে রক্তচুষে নিলিও কারো এ নিয়ে কেন মাথা ব্যাতা নেই। কিস্তির জালে কিস্তি ডুবার জোগাড় তবু কারু সেদিকি খিয়াল নেই। শুনতিলাম এই করোনার মদ্দি এনজোরও ক্ষুদে লোনের কিস্তি তুলা বারণ তবু চাপনিতি তা চইলেই যাচ্চে। কিডা মইল্লো কিডা বাইচলো তা দেকার সুমায় তাগের নেই। জালে যকন জড়ায়চাও টানা তুমার লাগবেই। জীবন আগে না কিস্তি আগে ?
ইতি
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮ ৮৭১০০৩




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft