শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে করোনার হানা
আতঙ্ক, নিরাপত্তা জোরদার
শিমুল ভূইয়া
Published : Thursday, 18 June, 2020 at 10:40 PM
যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে করোনার হানাকরোনা হানা দিয়েছে যশোর কেন্দ্রীয় কারাকারে। বুধবারে যবিপ্রবি থেকে আসা ফলাফল থেকে জানা যায় যশোর কারাগারের ৩৫ বছর বয়সী এক কারারক্ষী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি কারাগারের ভেতরের ক্যান্টিনে কর্মরত ছিলেন। তিনি বন্দিদের বাজার করতেন। কারাকর্তৃপক্ষের ধারণা বাজার থেকেই কারও সংস্পর্শে আসার পর তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।
এদিকে, বিষয়টি নিয়ে কারাগারের সকলের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। এক কারারক্ষী আক্রান্তের পর কর্তৃপক্ষ সতর্কতা আরও জোরদার করেছে। আক্রান্ত ব্যক্তির সরকারি কোয়াটারসহ আশপাশের আরও চারটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। ওই এলাকায় বিশেষ পাহারা বসিয়েছে কারাকর্তৃপক্ষ। জোরদার করা হয়েছে কারাচত্ত¡রের সতর্কতা।
এ বিষয়ে আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি গ্রামের কাগজকে জানান, গত ১০ জুন তার শরীরে প্রথম জ্বর আসে। ১৪ তারিখে পরীক্ষা করান। ১৭ তারিখে ফলাফল পজেটিভ আসে। এরপর থেকেই তিনি বাড়িতে চিকিৎসাধীন আছেন। তবে এখন তার শরীরে জ্বর নেই। কিন্তু তার পরিবারে বৃদ্ধা মা, শিশু সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তিনি আতঙ্কিত। তিনি সবার কাছে দোয়া প্রার্থণা করেছেন।
যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের কয়েকজন কারারক্ষীর সাথে কথা বললে তারা জানান, করোনা মহামারীর শুরু থেকেই কারাগারে যথেষ্ট নিয়মকানুন মেনে চলতে হচ্ছে তাদের। প্রধান ফটকে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, স্প্রের মাধ্যমে জীবাণুনাশক ছিটিয়ে প্রবেশ করতে হচ্ছে। এছাড়া, কারাগারের বন্দিদের সাথে দেখা বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ। মাস্ক ছাড়া কারা চত্ত¡রে চলাচল নিষেধ রয়েছে। মূল ফটকের বাইরে যাওয়ায় তাদের জন্য রয়েছে কঠোর নিষেধাজ্ঞা। এতসব নিয়ম কানুনের মধ্যেও  তাদের এক সহকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যা অত্যন্ত দুখঃজন। এতে তারা চরম আতঙ্কিত।
এ বিষয়ে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা বলেন, সতর্কতার কোনো কমতি ছিলনা, তারপরেও একজন সদস্যর আক্রান্তের সংবাদে মর্মাহত।
তিনি জানান, আক্রান্ত ব্যক্তি ভেতরের ক্যান্টিনের বাজার করতেন। ফলে তার অন্য কারারক্ষী ও বন্দিদের সংস্পর্শে আসার তেমন সম্ভাবনা নেই। আক্রান্তের বাড়িসহ আশপাশের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এছাড়া কারাগারের ডাক্তারদের নির্দেশনা দেয়া রয়েছে যে কারও উপসর্গ দেখা দিলেই তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতে হবে। কারাগারের প্রধান ফটকসহ প্রতিটি পয়েন্টে সতর্কতা আরও জোরদার করা হয়েছে বলে জানান মি. সুব্রত।
উল্লেখ্য, যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার, জেলার, ডেপুটি জেলার, কারাসার্জেন্ট ইন্সট্রাক্টর, ডাক্তারসহ ১০ জন কর্মকর্তা রয়েছেন। কারারক্ষী, সর্বপ্রধান রক্ষী, প্রধান রক্ষী, সহকারী প্রধান রক্ষী, মহিলা মেট্রোন, মহিলা কাররক্ষী, চিফ মেট্রোন ও সহকারী মেট্রোনসহ পাঁচশ’ ৩৮ জন স্টাফ রয়েছেন। এছাড়া, এর বাইরে সিভিল অফিস স্টাফ প্রধান সহকারী, উচ্চমান সহকারী, কারা সহকারীসহ রয়েছেন আরও সাতজন স্টাফ রয়েছেন। যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এক হাজার তিনশ’ ১০ জন বন্দি আটক ছিলেন।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft