বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১
সারাদেশ
বোয়ালমারীতে খাল দখল নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় ফের উত্তেজনা
দীপঙ্কর পোদ্দার অপু, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি :
Published : Thursday, 30 July, 2020 at 10:31 AM
বোয়ালমারীতে খাল দখল নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় ফের উত্তেজনাফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নের টুংরাইল খাল দখল নিয়ে সময় টিভির অনলাইন পোর্টালে একটি ভিত্তিহীন  মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনকে কেন্দ্র করে এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।
টিভিটির অনলাইন পোর্টালে কাজ করা সাংবাদিক প্রভাষ চৌধুরী তার এক নিকট আত্মীয় টুংরাইলের পুতুল রানী বিশ্বাষের খালের সরকারী জমি দখল করাকে বৈধতা দিতে উঠে পড়ে লেগেছে। সময় টিভি অনলাইনকে পুঁজি করে প্রভাস চৌধুরী সরকারি খালকে ব্যক্তিগত জায়গা বলে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে বিষয়টি নিয়ে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনা জানাজানি হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে এ নিয়ে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রভাষ চৌধুরী নিজের আত্মীয়কে সুবিধা পাইয়ে দিতে পার্শ্ববর্তী  উপজেলার এক প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতাকে ব্যবহার করে এবং মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে সরকারের বিভিন্ন কর্তা ব্যক্তিকে বিভ্রান্ত করেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, টুংরাইল খালের দক্ষিনপাড় সড়ক ঘেষা প্রায় ২০ টি দোকান দিয়ে ব্যবসা করছে স্থানীয় গ্রামবাসী। কয়েক মাস আগে খালটি সংস্কারের সময় দোকানগুলো সরিয়ে দেয় স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান। খাল খনন শেষে অন্যান্য ব্যাবসায়ীরা নিজ স্থানে বসতে পারলেও আনন্দ বিশ্বাষসহ বেশ কয়েকজনের জায়গা দখল করে নেয় পুতুল রানী বিশ্বাস।
নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ছত্রছায়ায় জায়গাটি দখল করে নেন পুতুল। তবে পুতুল রানীর দাবি খাল পাড় দিয়ে যাওয়া সড়কটি তার পৈতৃক সম্পত্তির উপর দিয়ে গেছে। বর্তমানে জায়গাটি সরকারিভাবে রাষ্ট্রের সম্পদ হলেও এখানে দোকান তোলায় তার অধিকার বেশি তাই সে এ জায়গায় দোকান দিয়েছে। বেশ কিছুদিন বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খালটি দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নেয়া হলে ঢাকায় বসে ওই সাংবাদিক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীকে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করেন।
এ ব্যাপারে রূপাপাত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আজিজুর রহমান বলেন, "খাল সংস্কারের স্বার্থে দোকানগুলো সরিয়ে দিয়েছিলাম আমি। খাল খননের পর আগে যাদের দোকান ছিল তারা অনেকেই আর আগের জায়গায় আসতে পারেনি। জায়গা নিয়ে যেহেতু বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে তাই ওই জায়গা কারো দখলে না থাকাই ভাল।"
বনমালীপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং বোয়ালমারী উপজেলা রক্ষা কমিটির সভাপতি বদিউজ্জামান খান টুলু বলেন, "খাল দখল নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। আমি স্থানীয়দের বলেছি প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে। সেক্ষেত্রে আমি তাদের সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি।"
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক ব্যক্তি বলেন, "টুংরাইল খালকেন্দ্রিক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এটির সমাধান না হলে ভবিষ্যতে অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।"
টুংরাইল গ্রামের বাসিন্দা নিত্য গোপাল দাস বলেন, পরিবেশ রক্ষা ও এলাকায় শান্তি বজায় রাখার জন্য আমরা চাই খালটি দখলমুক্ত হোক।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft