শনিবার, ০৮ মে, ২০২১
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শংকরপুর চোপদারপাড়া আকবরের মোড়
কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের নামে বেশুমার অর্থবাণিজ্যে
অভিজিৎ ব্যানার্জী
Published : Wednesday, 16 September, 2020 at 11:53 PM

কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের নামে বেশুমার অর্থবাণিজ্যে বৈধ কোনো কমিটি নেই, নিজেদের ইচ্ছেমতো একই পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়দের নিয়ে মনগড়া কমিটি করে যশোরের শংকরপুর চোপদারপাড়া আকবরের মোড়ে কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের নামে চলছে বেশুমার অর্থবাণিজ্য। শান্তিশৃঙ্খলা সমুন্নত রাখার নামে কমপক্ষে চারশ’ বাড়ি থেকে টাকা তুলে একজন কর্মকর্তা পকেটে ভরছেন। টাকা আদায়ের জন্যে অনেক সময় এলাকাবাসীর ওপর জোরজবরদস্তিও করা হচ্ছে। এব্যাপারে স্থানীয়রা দ্রুত পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম দেখভালের দায়িত্বে থাকা কোতোয়ালি থানার ইন্সপেক্টর ইন্টেলিজেন্স এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং সুমন ভক্তের দাবি, ওই কমিটি বৈধ নয়। অভিযোগের ব্যাপারে তিনি দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন।
যশোর পৌরসভার সাত নম্বর ওয়ার্ডের চোপদারপাড়া আকবরের মোড় এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণিপেশার প্রায় পাঁচশ’ পরিবারের বাস। ওই এলাকায় কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম নামে মনগড়া কমিটি করে মাঠ চষছে একটি চক্র। থানার অনুমোদন ছাড়াই বছর জুড়ে নানা অনিয়ম ও অসঙ্গতি আর নিজেদের পকেট ভর্তি করতে নামকাওয়াস্তে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে আছে তারা।
এলাকার আইনশৃঙ্খলা সমুন্ন রাখতে রাতে ডিউটি দেয়ার নামে, অফিস রক্ষণাবেক্ষণের  নামে বাড়ি প্রতি ৫০ টাকা থেকে দু’শ’ টাকা করে আদায় করছেন কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের ব্যানারে। মাসে একবার করে প্রতি বাড়ি থেকে একজন করে ডিউটি করার নিয়ম করেছে কমিটির নেতারা। কোনো কারণে ওই পরিবারের কেউ নির্ধারিত রাতে ডিউটি দিতে না পারলে তাকে জরিমানা দিতে হবে দু’শ’ টাকা। কিন্তু, বদলি ডিউটিতে রয়েছে জালিয়াতি। প্রতিরাতে ২০ থেকে ২৫ জনের ডিউটি করানোর নিয়ম নিজেরা করলেও সেখানে ডিউটি করাচ্ছেন ১০ থেকে ১২ জনকে দিয়ে। দু’শ’ টাকা করে মাথাপিচু নিলেও বদলি ডিউটি করাকে দেয়া হচ্ছে একশ’ ৫০ টাকা। বাকি টাকা চলে যাচ্ছে কমিটির দপ্তর সম্পাদক মশিয়ার রহমানের পকেটে।
আকবরের মোড়ের অনুমোদনহীন কমিটির সভাপতি শুকুর আলী এবং সাধারণ সম্পাদক ইউনুস আলী, দপ্তর সম্পাদক মশিয়ার রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল ইসলাম এবং উপদেষ্টা নজীর আলী। উপদেষ্ঠা নজির আলীর ভাইপো হচ্ছেন দপ্তর সম্পাদক মশিয়ার রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইউনুস আলী মশিয়ারের বেয়াই, সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল ইসলাম সভাপতি শুকুর আলীর ছেলে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, এক সময় কোনোভাবে সংসার চালানো মশিয়ার রহমান বর্তমানে বাস করেন টাইলসের বাড়িতে, চড়েন দামি মোটরসাইকেলে। রাত, দিন কমিটির পক্ষে বাড়িতে বাড়িতে চাঁদার টাকা আদায়ে বেরিয়ে পড়েন নয়া, মিন্টুসহ আরও কয়েকজন। এভাবে মাসে লক্ষাধিক টাকা ওঠাচ্ছে মশিয়ার চক্র। ওই টাকার বেশিরভাগই যাচ্ছে মশিয়ারের পকেটে।
শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার নামে এলাকাবাসীর ওপর জবরদস্তিমূলকভাবে অশান্তি চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে অভিযোগে এলাকাবাসী তা প্রতিকারের জন্যে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে গ্রামের কাগজ দপ্তরে এসে অনেকেই অভিযোগ করেছেন। তাদের অভিযোগ, এসব ফোরামের দায়িত্বে থাকা পুলিশ কর্মকর্তাকে কয়েকদফা জানালেও অজ্ঞাত কারণে কোনো ফল আসছেনা বলেও অভিযোগ করেন তারা।
বিষয়টি নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে দপ্তর সম্পাদক মশিয়ার রহমান গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন কমিটির অনুমোদন হয়ে গেছে। অনেক দিন স্বচ্ছতার সাথে জনগণের সেবা দিয়ে আসছে কমিটি। ২৬ দিন পর পর ডিউটি না দিলে বিপরীতে লোক বা টাকা নেয়া হয় দু’শ’ করে। আবার ফোরামের ঘর ভাড়া ও আনুসঙ্গিক খরচের জন্যে মাসে কিছু চাঁদা তোলা হয়। তবে কারও সাথে জরবদস্তি করা হয়না। সব টাকার হিসেব আছে। এলাকায় চারশ’র বেশি পরিবার থাকলেও সবাই টাকা দেয়না, ডিউটিও করেনা। আদায় করা অর্থ পকেটে ভরার কোনো সুযোগ নেই। এলাকার হাতেগোনা কিছু লোক বিভিন্ন মহলে মিথ্যা অভিযোগ করে বেড়াচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।   
যশোর কোতোয়ালি থানার ইন্সপেক্টর ইন্টেলিজেন্স এন্ড কমিউিনিটি পুলিশিং সুমন ভক্ত গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, যে কমিটির কথা বলা হচ্ছে ওটির অনুমোদন নেই। তারা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের নাম ভাঙিয়ে অর্থবাণিজ্য করলে তা খুবই  দুঃখজনক। ওই কমিটি  লোকজনের কাছ থেকে ডিউটি করিয়ে দেয়ার নামে (লোক কেনার কথা বলে) যে টাকা ওঠায় তার চেয়ে কম লোক লাগিয়ে বাণিজ্য করে এমন অভিযোগ তার কাছেও এসেছে। আবার ডিউটি দেয়ার পরও বাড়ি বাড়ি চাঁদা আদায় করা হচ্ছে এবং ওই টাকার বেশিরভাগ ব্যক্তিবিশেষের পকেটে যাচ্ছে এ অভিযোগের খোঁজ খবর নেবেন। এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের তিনি সতর্ক করবেন বলেও জানিয়েছেন। ওই চক্রদ্বারা ক্ষতিগ্রস্তরা সরাসরি থানায় গিয়ে তার সাথে কথা বলতে পারেন বলেও আহবান জানিয়েছেন তিনি।  
তিনি জানান, চোপদারপাড়া আকবরের মোড় এলাবাসীর পক্ষে একটি আহ্বায়ক কমিটি থানায় জমা দেয়া হয়েছে, তা যাচাই বাছাই চলছে।




আরও খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft