রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি বোর্ড চেয়ারম্যানের
কলেজে অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়
জাহিদ আহমেদ লিটন
Published : Sunday, 20 September, 2020 at 12:21 AM

কলেজে অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়  একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিতে আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের নীতিমালা মানছে না যশোরের কলেজগুলো। তারা ইচ্ছেমতো শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে গলাকাটা ভর্তি ফি আদায় করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন বেসরকারি কলেজে ভর্তি ফি দু’ হাজার টাকার স্থলে সর্বোচ্চ প্রায় ১৬ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করছে। কলেজগুলোর এ জাতীয় কর্মকান্ডে হিমশিম খাচ্ছেন অভিভাবকরা। এনিয়ে যশোর শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষও নিরব ভূমিকা পালন করছেন।
আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গত ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি শুরু হয়েছে। এ কার্যক্রম ১৫ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়ার কথা থাকলে দু’দিন বাড়িয়ে ১৭ সেপ্টেম্বর করা হয়। এরপর সর্বশেষ শিক্ষার্থী ভর্তির সময়সীমা পুনঃনির্ধারণ করা হয়েছে ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। একইসাথে শিক্ষার্থীর একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি শুরুর আগেই বেসরকারি কলেজের ফিসহ মাসিক বেতন ও সব খরচের বিষয়ে কলেজগুলোতে ভর্তির নির্দেশনা পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়া, ভর্তিযোগ্য শিক্ষার্থীদের তালিকা কলেজগুলোকে তাদের নোটিশ বোর্ড ও ওয়েবসাইটে প্রকাশের ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে।
যশোর শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা যায়, গত ৮ সেপ্টেম্বর আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এতে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে মফস্বল, পৌর ও মেট্রোপলিটন এলাকার বেসরকারি কলেজগুলোকে ভর্তি নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে উপজেলা এলাকার মফস্বল শহরের কলেজগুলোতে সেশন ফিসহ ভর্তি ফি সর্বসাকুল্যে এক হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। জেলা সদরের পৌর এলাকার কলেজগুলো দু’ হাজার টাকা এবং ঢাকা মহানগর ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকার কলেজগুলো সর্বোচ্চ তিন হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না।
এছাড়া, মেট্রোপলিটন এলাকায় অবস্থিত এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে পাঁচ হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না। উন্নয়ন খাতে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবার দেড় হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না। কলেজগুলো প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে রেড ক্রিসেন্ট ফি বাবদ ১২ টাকা হারে নিতে পারবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। কোনো শিক্ষার্থীর পাঠ বিরতি থাকলেও দেরিতে ভর্তি হলে তাকে একশ’ ৫০ টাকা বিলম্ব ফি এবং একশ’ টাকা বিলম্ব ভর্তি ফি দিতে হবে।
সরকারি কলেজগুলোকে সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী ফি সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের অনুমোদিত ফির বেশি না দেয়ার নির্দেশনা দিয়ে সব ফি রশিদের মাধ্যমে নিতেও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ভর্তি কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর বোর্ডের বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে শিক্ষার্থীরা বোর্ডের অনুমতি নিয়ে প্রয়োজনীয় ফি জমা দিয়ে কলেজ, গ্রæপ ও বিষয় পরিবর্তন করতে পারবে।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ভর্তি নীতিমালা না মেনে শিক্ষার্থী ভর্তি করালে সেই কলেজের পাঠদানের অনুমতি বা স্বীকৃতি বাতিলসহ কলেজের এমপিওভুক্তি বাতিল করা হবে।
কিন্তু আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের এ নীতিমালার থোড়াই কেয়ার করছে যশোরাঞ্চলের কলেজগুলো। তারা সর্বনি¤œ দু’ হাজার সাতশ’ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১৫ হাজার আটশ’ ৮০ টাকা ভর্তি ফি বাবদ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করছে। অথচ নীতিমালা অনুযায়ী তাদের সর্বোচ্চ নেবার কথা দু’ হাজার টাকা। তারা ইচ্ছা মাফিক সিদ্ধান্ত শিক্ষার্থীদের ওপর চাপিয়ে দিয়েছে।
ভর্তি ফি আদায়ের সর্বোচ্চ তালিকায় থাকা কলেজের একটিতে বিজ্ঞান বিভাগে সর্বোচ্চ ভর্তি ফি ১৫ হাজার আটশ’ ৮০ টাকা এবং মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ১৪ হাজার আটশ’ ৮০ টাকা। অপর দু’টির ফি হচ্ছে ১০ হাজার সাতশ’ ৭২ টাকা। অপর একটি কলেজে নেয়া হচ্ছে তিন হাজার সাতশ’ ৩৮ টাকা। ভর্তি ফির ব্যাপারে কলেজগুলোতে যোগাযোগ করা হলে তারা কথা বলতে রাজি হচ্ছে না। তারা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার কথা বলছেন। এমনকী তাদের ভর্তি ফি কত টাকা সেটাও জানাচ্ছেন না।
বিষয়টি জানতে পেরে যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মোল্লা আমির হোসেন স¤প্রতি সর্বোচ্চ ভর্তি ফি আদায়কারী কলেজগুলোর একটির অধ্যক্ষের সাথে ফোনে কথা বলেন। এসময় অধ্যক্ষ তাকে জানান, এ ফি তারা কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গ্রহণ করেছেন। অন্যান্য কলেজের তুলনায় তাদের কলেজের বেতন কম। তিনি জানান, এ টাকা শুধুমাত্র ভর্তি ফি নয়। এরমধ্যে একমাসের বেতনসহ নানা খাত রয়েছে।
এদিকে, সর্বনি¤œ ভর্তি ফি আদায়ের তালিকায় রয়েছে উপশহর এলাকার একটি কলেজ। তারা মানবিক ও ব্যবসা শিক্ষায় ভর্তি ফি নিচ্ছে দু’ হাজার সাতশ’ টাকা ও বিজ্ঞান বিভাগে নিচ্ছে তিন হাজার টাকা। একই এলাকার একটি মহিলা কলেজ ভর্তি ফি নিয়েছে তিন হাজার তিনশ’ টাকা।
সরকারি কলেজগুলোও তাদের শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা অনুসরণ করছে না। পরিপত্র অনুযায়ী সরকারি কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তিতে সর্বোচ্চ দু’ হাজার টাকা নেয়ার কথা থাকলেও যশোর সরকারি মহিলা কলেজে ভর্তি ফি বাবদ  নেয়া হচ্ছে দু’ হাজার দু’শ’ টাকা। তারা বলছে ভর্তি বাবদ শিক্ষার্থী প্রতি নেয়া হচ্ছে দু’ হাজার টাকা ও বাকি দু’শ’ টাকা নেয়া হচ্ছে স্যুভেনির, ফি বুকসহ অন্যান্য কাগজপত্রের জন্যে। বিষয়টি নিয়ে কলেজের অধ্যক্ষ আহসান হাবিব বলেন, তারা নীতিমালা যথাযথ মেনেই নির্ধারিত ফিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করছেন। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত কোনো টাকা তারা নিচ্ছেন না।



যশোর সরকারি সিটি কলেজে বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি ফি আদায় করা হচ্ছে দু’ হাজার তিনশ’ ৭৫ টাকা, মানবিক বিভাগে এক হাজার নয়শ’ ২৫ টাকা ও ব্যবসা শিক্ষা বিভাগে দু’ হাজার একশ’ ৫০ টাকা। এবিষয়ে সিটি কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বলেন, আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের নীতিমালা মেনেই তারা কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি করছেন। এ কাজে তাদের কোনো অনিয়ম হচ্ছে না বলে তিনি দাবি করেন।
সরকারি এম এম কলেজে বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি ফি নেয়া হচ্ছে দু’ হাজার ছয়শ’ ৩৪ টাকা, মানবিক ও ব্যবসা শিক্ষায় দু’ হাজার পাঁচশ’ ৩৫ টাকা।
অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়ের ব্যাপারে যশোর শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক কে এম রব্বানী বলেন, সরকারি কলেজগুলোতে ২০১৪ সালের পরিপত্র অনুযায়ী নির্ধারিত ফিতে শিক্ষার্থী ভর্তি হবে। আর বেসরকারি কলেজে আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ফি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। এর বাইরে কোনো কলেজ ভর্তি বাবদ অতিরিক্ত ফি আদায় করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  
এ ব্যাপারে যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর মোল্লা আমীর হোসেন বলেন, বিশেষ বাহিনী পরিচালিত কলেজগুলো তাদের নীতিমালা অনুযায়ী পরিচালিত হয়। এক্ষেত্রে, যশোর শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ কোনো হস্তক্ষেপ গ্রহণ করে না। এর বাইরের বেসরকারি কলেজগুলোকে শিক্ষার্থী ভর্তিতে আন্তঃশিক্ষাবোর্ডের নীতিমালা মেনে চলতে হবে। এর ব্যতয় হলে বা ভর্তিতে অতিরিক্ত ফি আদায় করলে তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রয়োজনে অতিরিক্ত টাকা শিক্ষার্থীদের ফেরত দেয়া হবে।




আরও খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft