সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
বালিয়া ভেকুটিয়ার চাঞ্চল্যকর রাসেল হত্যা মামলা
প্রধান আসামিসহ ৬ জনের জামিন করাতে দৌড়ঝাঁপ
বিশেষ প্রতিনিধি
Published : Monday, 2 November, 2020 at 8:49 PM
প্রধান আসামিসহ ৬ জনের জামিন করাতে দৌড়ঝাঁপবঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ নেতা যশোরের বালিয়া ভেকুটিয়ায় সাব্বির আহমেদ রাসেল হত্যা মামলায় আটক প্রধান আসামি শহিদুজ্জামান শহীদসহ ৬ জনকে জামিন করাতে দৌড়ঝাঁপ করছে একটি বিশেষ মহল। ওই মহলের হস্তক্ষেপে তাদের রিমান্ড মঞ্জুর হয়নি। যে কারণে হত্যা মামলাটির তদন্ত কার্যক্রম হোঁচট খেতে পারে বলেও দাবি পুলিশের। নিহতের বাবা ও মামলার বাদী আবু সালেক মৃধার দাবি, আবার তাদের রিমান্ড চাওয়া হোক, আর দ্রুত আটক করা হোক পলাতক ৩ সন্ত্রাসীকে।
গত ১৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় যশোরের বালিয়া ভেকুটিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা সালেক মৃধার সামনেই তার ছেলে সাব্বির আহমেদ রাসেলকে গলা কেটে হত্যা করে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী চক্র। অপর ছেলে আল আমিনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এ ঘটনায় ১৬ এপ্রিল রাতে বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামের মৃত শাহাদত হোসেনের ছেলে শহিদুজ্জামান শাহীদকে প্রধান আসামি করে মামলা করা হয়। ওই মামলায় বালিয়া ভেকুটিয়া মাঠপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলাম মঙ্গলের ছেলে সামিরুল ইসলাম (২৮), মাধঘোপপাড়ার ফজলুর রহমানের ছেলে পিচ্চি বাবু (২৪), বালিয়া ভেকুটিয়ার সিদ্দিকুর রহমান ওরফে শিয়াল সিদ্দিকের ছেলে শাহিন, শ্মশানপাড়ার শানু ফকিরের ছেলে সোহাগ, সাগর ও সোহেল, দ্বীনছে আলীর ছেলে জনিসহ ২৪ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা শাখা আটক অভিযান চালিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় একে একে ১২ আসামি আটক করে। আর আটক এড়িয়ে চলা শুরু করে ১২ আসামি। এ নিয়ে নিহতের বাবার অভিযোগে দৈনিক গ্রামের কাগজে সংবাদ প্রকাশিত হলে ডিবি পুলিশ আটক অভিযান জোরদার করে। এক পর্যায়ে গত ২২ অক্টোবর আদালতে আত্মসমর্পণ করে প্রধান আসামি শাহিদুজ্জামান শহীদসহ ৯ আসামি। অন্যরা হচ্ছে একই এলাকার খাইরুল ইসলাম, সবুজ হোসেন, শামীম, সেলিম মিয়া, মোহাম্মদ আলমগীর, রমজান সরদার, আশিক হোসেন ও আজাদ। এদের ৫ দিনের রিমান্ড চান তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি ইন্সপেক্টর মাসুম কাজী। ২৭ অক্টোবর রিমান্ড শুনানী শেষে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দিন হোসাইন ৯ জনের মধ্যে সেলিম মিয়া, আশিক হোসেন ও আজাদের এক দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করলেও প্রধান আসামি শহীদসহ ৬ জনের রিমান্ড না মঞ্জুর করেন।
এ ব্যাপারে নিহত রাসেলের বাবা সালেক মৃধা গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ করায় তার ছেলে রাসেল খুন হয়েছে। অথচ এখন আসামি পক্ষ একটি রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মী পরিচয়কে সামনে এনে বাঁচার চেষ্টা করছে। অনেকের সামনে তার ছেলেকে তুলে নিয়ে গলা কেটে হত্যা করার মত একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনার প্রধান আসামির রিমান্ড হলো না। এখন এমন হয়েছে যে, বাদী পক্ষে কোনো অ্যাডভোকেট মুভ করতে ভয় পাচ্ছেন। এই অবস্থায় তিনি ভীষন দূর্বিসহ সময় পার করছেন। ৩১ অক্টোবর সকালে কাগজ দপ্তরে এসে এসব কথা বলতে বলতে  কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।
নিহত রাসেলের মা জোৎস্না বেগম জানিয়েছেন, তার একটি ছেলে খুন হয়েছে। একই দিন একই সন্ত্রাসীরা তার অপর ছেলে আল আমিনকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। সে ঢাকায় বেঁচে থেকেও মরে আছে। কাউকে চিনতে পারছে না। আর অনেক আসামি এখনও আটক এড়িয়ে চলছে। হত্যার হুমকি দিচ্ছে। আবার শুনছি প্রধান আসামি শহীদসহ ছয়জনকে জেল থেকে ছাড়িয়ে আনতে খুব দৌড়ঝাঁপ করছে আসামি পক্ষের লোকজন। একটি বিশেষ মহলকে ম্যানেজ করে সব চলছে। শহীদ চক্র এলাকায় ফিরলে তাদের প্রাণ সংশয় আছে বলেও জানান জোৎস্না বেগম। তিনি হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft