সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১
ক্রীড়া সংবাদ
ফাইনালে মুম্বাই
ক্রীড়া ডেস্ক :
Published : Friday, 6 November, 2020 at 4:20 PM
ফাইনালে মুম্বাইআইপিএল ইতিহাসের অন্যতম সফল দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। প্রথম পর্বের দাপট প্লে-অফেও ধরে রেখেছে তারা। প্রথম কোয়ালিফায়ারে দিল্লি ক্যাপিটালসকে ৫৭ রানে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে আইপিএলের ফাইনাল নিশ্চিত করল রোহিত শর্মার দল। আগের পাঁচবার ফাইনাল খেলা দলটি চারবারই শিরোপা জিতেছিল।
বৃহস্পতিবার দুবাইয়ে টস হেরে ব্যাটিংয়ে আসা মুম্বাই ৫ উইকেট হারিয়ে করে ২০০ রান। ২০১ রানের টর্গেট তারা করতে নেমে ৮ উইকেটে ১৪৩ রানে থামে দিল্লি ক্যাপিটালসের ইনিংস। আইপিএলে নিজের সেরা ফিগার করে বুমরাহ ৪ ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। এই ম্যাচ হারলেও ফাইনালে যাওয়ার আরেকটা সুযোগ থাকছে রিকি পন্টিংয়ের শিষ্যদের। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর-সানরাইজার্স হায়দরবাদের মধ্যে এলিমিনেটর জয়ীদের বিপক্ষে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলবে তারা।
টস হেরে ব্যাটিংয়ে আসা মুম্বাইয়ের শুরুটা ভালো হয়নি। ২য় ওভারে আশ্বিনের বলে অধিনায়ক রোহিত শর্মা শূন্য রানে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন। এরপর ডি কককে সঙ্গ দিতে সুবিরাকুমার ক্রিজে আসেন। এই জুটি থেকে আসে ৭৪ রান। ২৫ বলে ৪০ রান করে আশ্বিনের বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন ডি কক। ডি কক অর্ধশত মিস করলেও সুরিয়াকুমার ঠিকই অর্ধশত পূর্ণ করেছেন। ১২ ওভারে ৩৮ বলে ৫১ রানে আনরিখ নারকিয়ার বলে আউট হন তিনি।
১৩তম ওভারে কাইরন পোলার্ড বিদায় নিলে ১০১ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে মুম্বাই। এরপর ক্রুনাল পান্ডিকে সাথে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় ব্যাট করতে থাকে ইশান কিশান। এই জুটি থেকে আসে ৩৯ রান। তবে ক্রুনাল ১৩ রানে প্যাভিলনে ফিরে যান। ক্রুনালের বিদায়ের পর হার্দিক পান্ডিয়া ক্রিজে এসে আক্রমণাত্মক ব্যাটি শুরু করে। কিশানের সাথে মাত্র ২৩ বলে ৬০ রানের জুটি গড়েন তিনি। ইনিংসের শেষ বলে ছক্কা মেরে নিজের অর্ধশত পূরণ করেন ইশান। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০০ রানের বড় স্কোর গড়ে মুম্বাই।
২০১ রানের স্কোর তাড়া করতে এসে প্রথম ওভারেই দুই উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে দিল্লি। দিল্লির পৃথ্বী ইনিংসের ট্রেন্ট বোল্টের ২য় বলে ডি ককের হাতে বন্দি হয়ে আউট হন। ওভারের ৫ম বলে আজিঙ্কা রাহানেকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন। এরপরের ওভারেই শিখর ধাওয়ানকে বোল্ড করে দিল্লির টপ অর্ডার গুটিয়ে দেন বুমরাহ।
স্কোরবোর্ডে কোন রান যোগ না করেই তিন উইকেট হারিয়ে বসে দিল্লি। দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়াস ও স্টয়নিস দলের বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেও পারেনি। আবারও বুমরাহর বলে ১২ রানে সাজঘরে ফেরেন শ্রেয়াস। এরপর রিশাব পান্ট মাত্র ৩ রানে আউট হলে ৪১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে পরাজয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলে দিল্লি।
তবে ৬ষ্ঠ উইকেটে কিছুটা আসার আলো দেখান স্টয়নিস ও আক্সার। এই দুজনের ৭১ রানের জুটিতে ভর করে ১০০ রান পার করে দিল্লি। দলীয় সর্বচ্চ ৬৫ রান করে বুমরার বলে আউট হন স্টয়নিস। এর দুই বল পরে স্যামসনকে শিকার করে নেন বুমরাহ। বাকি সময়ে আক্সার ও প্যাটেল পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়েছে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪৩ রানে থামে দিল্লির ইনিংস।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft