বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
সংগঠনে পদ না পেয়ে আত্মহত্যা!
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
Published : Saturday, 7 November, 2020 at 12:56 PM
সংগঠনে পদ না পেয়ে আত্মহত্যা!সংগঠনে কোনো পদ না পেয়ে আত্মহত্যা করেছেন রিয়াদ হোসেন বাবু (২৫) নামে ছাত্রলীগের এক কর্মী। শুক্রবার (৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় তিনি নিজের ফেইসবুক আইডিতে এ সংক্রান্ত একটি পোস্ট শেয়ার করে বিষপানে আত্মহত্যা করেন। বাবু সাতক্ষীরার তালা উপজেলার হনিসচন্দ্রকাটি গ্রামের শেখ মঞ্জুরুল রহমানের ছেলে।
আত্মহত্যার আগে দেয়া পোস্টে রিয়াদ হোসেন বাবু লেখেন, ‘নিজের কাছেই অবাক লাগছে। আজ এক সপ্তাহ হলো..., বিষের বোতলটা আমার বালিশের নিচে পড়ে আছে স্পষ্ট দেখতে পারছি। সবাই নির্বাক হয়ে গেছে। ছোট ভাইটা পাগলপ্রায়। জানি ছোট বোনটা খুব কাঁদছে। অনেক বড় ভুল করে ফেলেছি হয়তো! এমনটা তো হবার কথা ছিল না। জানেন, সেদিন খুব কেঁদেছিলাম আমি। যেদিন আমার হাতটা ছেড়ে দিয়েছিলেন সোহাগ দাদা। আমার বাঁচার শেষ আশাটুকু ছিলেন উনি। অঝোরে কেঁদেছি সারা রাত এই কদিন। প্রতি রাতে বালিশ ভিজিয়েছি চোখের জলে। একটিবারও খোঁজ নাওনি কেমন ছিলাম আমি। আর, দোস্ত তোদের অনেক ধন্যবাদ। ফেসবুকে আমাকে নিয়ে লেখালেখি করেছিস। তবে কি জানিস, বাস্তবে এতটা সময় তোরা যদি দিতি... তাহলে, না থাক কিছু না, জানি তোমরা খুব কাঁদছো। জানি খুব ভালোবাসতে আমাকে, হয়তো ঘৃণাও করতে অনেকে। যদি আর একটু খোঁজ করতে, আমার সমস্যাগুলো শুনতে... যদি আমার দিকে আর একটু খেয়াল রাখতে... যদি সবকিছু নির্ভয়ে বলতে পারতাম তোমাদের... তাহলে আজ হয়তো... ছোট বোন, কাঁদিস না লক্ষীটি। হয়তো সব থেকে বড় অন্যায়টা তোর সঙ্গে হলো! মাফ করে দিস তোর এই অপরাধী ভাইটিকে।’
রিয়াদ পোস্টে আরও লেখেন, ‘ক্ষমা করে দেবেন বাজে ছেলেটাকে। আমি নাকি খারাপ, হুম মানলাম। বাট হয়তো এমন কাউকে পাবেন না, যে প্রমাণ করতে পারবে আমি খারাপ। কারণ আমি আজ অবধি এমন কোনও কাজ করিনি, যে প্রমাণ করতে পারবেন। ছোটবেলা থেকে আমার রক্তে মিশে আছে রাজনীতি। আমি বঙ্গবন্ধুর রাজনীতিতে বিশ্বাসী। তার দেখানো পথেই চলে আসছি।’
তিনি পোস্টে অভিযোগ করেন, ‘চাকরি বা বিয়ে কোনোটাই করিনি ছাত্রলীগ করবো বলে। বাট আজ দলও টাকার কাছে জিম্মি। আমার জীবনে আর কী বাকি আছে, হয়তো বেঁচে থাকতাম দু’মুঠো ভাতের জন্যে। কিন্তু যখন অসহায় মানুষগুলো কাঁদে, আমি তাদের কান্না সহ্য করতে পারি না। আমার নেতা বঙ্গবন্ধুও পারেননি। তাইতো সে নিজের জীবন দিছে তবুও হার মানেনি, লড়াই করে গেছে অন্যায় এর বিপক্ষে সারা জীবন। আমিও অন্যায় কে প্রশ্রয় দিতে পারিনি তাই আমি খারাপ।’
রিয়াদ হোসেন বাবু পোস্টে আরও বলেন, ‘জীবনের শেষ সময়ে, কেন জানি মনে হচ্ছে ছাত্রলীগের নেশাটাই আমাকে শেষ করে দিলো। হারিয়েছি সব, ঘর, পরিবার, ভালোবাসার মানুষ, কাছের মানুষ। সবকিছু হারিয়েছি রাজনীতির জন্যে। তাই চলে গেলাম এই নিষ্ঠুর স্বার্থের পৃথিবী থেকে, ক্ষমা করে দেবেন আমাকে।’
তালা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ সাদী বিষয়টি সম্পর্কে বলেন, ‘উপজেলা কমিটি মাত্র দু’ সদস্যের, সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক। সাতক্ষীরা জেলা কমিটি বিলুপ্ত হওয়ায় উপজেলা কমিটি সেভাবেই আছে। আমরা সম্প্রতি কোনো কমিটিও দেইনি। সে কারণে টাকা লেনদেনের কোনো প্রশ্নই আসে না। রিয়াদ উপজেলা ছাত্রলীগের আগের কমিটিতে ছিল, কিন্তু কোনো পদে ছিল, বলতে পারবো না। আমার কমিটিতে আসার পর তাকে ছাত্রলীগে সক্রিয় দেখা যায়নি। তবে সে কেনো এ ধরনের স্ট্যাটাস দিলো, বিষয়টি বুঝতে পারছি না’।
তালা থানার ওসি মেহেদী রাসেল পারিবারিক কলহের জেরে রিয়াদ আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করছেন।
নিহতের চাচা শেখ মেজবাহুর বলেন, কী কারণে রিয়াদ আত্মহত্যা করছে তা জানা নেই।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft