শুক্রবার, ০৭ মে, ২০২১
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন
বাঘারপাড়ার ভোটাররা কাকে চাইছেন
চন্দন দাস, বাঘারপাড়া (যশোর)
Published : Monday, 9 November, 2020 at 10:25 PM
বাঘারপাড়ার ভোটাররা কাকে চাইছেন যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে সম্ভাব্য প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকরা বেশ উত্তেজনায় রয়েছেন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ হবে। এরমধ্যে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন লাভের আশায় ঢাকায় কেন্দ্রীয় নেতাদের অফিস ও বাসায় ধর্ণা দিচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীদের কেউ কেউ দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। আবার কেউ সংগ্রহ করে জমা দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আজ মঙ্গলবার দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দেয়া যাবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
গত ৭ সেপ্টেম্বর সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান এই উপজেলার চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল। এরপরই শূন্যপদের উপনির্বাচনে আলোচনায় উঠে আসে বেশ কয়েকজন নেতার নাম। তারা হলেন উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও সংসদ সদস্য রনজিৎ রায়ের বড়ছেলে রাজিব রায়, জেলা পরিষদ সদস্য, সাবেক ছাত্রলীগনেতা ইঞ্জিনিয়ার বিপুল ফারাজী, গত উপজেলা নির্বাচনের নৌকার প্রার্থী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা হাসান আলী, প্রয়াত নাজমুল ইসলাম কাজলের স্ত্রী ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রউফ মোল্লা, জহুরপুর ইউনিয়নের দু’বারের চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী এবং রায়পুর ইউনিয়নের একাধিকবারের চেয়ারম্যান মঞ্জুর রশিদ স্বপনের নাম। এরমধ্যে মুক্তিযোদ্ধা হাসান আলী, আব্দুর রউফ ও মঞ্জুর রশিদ স্বপন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নে একবার করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও কেউ জয়লাভ করতে পারেননি। তাদের অনেকে দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। অনেকে জমা দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।  
উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও এমপি রনজিৎ রায়ের বড় ছেলে রাজিব রায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। এর আগে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রতিক চেয়ে ব্যর্থ হন তিনি। তবে এবার রাজিব রায়ের পক্ষে ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছেন তার কর্মী-সমর্থকরা। অবশ্য রাজিব রায় শুধু তার বাবার পরিচয়ে নন, নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করে দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে মনে করেন তার কর্মী-সমর্থকরা। পরিস্থিতিগত কারণে সংসদ সদস্য রনজিৎ রায়ের অনুসারী সিনিয়র সম্ভাব্য প্রার্থীদের কেউ কেউ রাজিবের জন্যে ছাড় দিতে পারেন বলে জানাগেছে।
উপনির্বাচনকে সামনে রেখে আলোচনায় এগিয়ে রয়েছেন জেলা পরিষদ সদস্য, সাবেক ছাত্রলীগনেতা ইঞ্জিনিয়ার বিপুল ফারাজী। নিজস্ব একটি বলয় তৈরির মাধ্যমে বাঘারপাড়ার রাজনীতিতে চমক দেখিয়েছেন তিনি। বিপুল ফারাজী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদারের অনুসারী বলে প্রচার রয়েছে। প্রয়াত উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল স্থানীয় আওয়ামী লীগের যে গ্রুপের নেতৃত্ব দিতেন সেই গ্রুপের নেতৃত্বে এখন বিপুল ফারাজী। বিপুল ফারাজীর বাড়ি রায়পুর ইউনিয়নে। এই উপজেলার কেন্দ্রে তার অবস্থান। সে কারণে আশপাশের সব ইউনিয়নের নেতা-কর্মীর সাথে তার দারুণ সংশ্লিষ্টতা। নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ, নিজের তহবিল থেকে ব্যাপক অর্থ অর্থসহায়তা, করোনকালীন সময়ে সাধারণ মানুষকে সহায়তা প্রদান ইত্যাদি কারণে তার গ্রহণযোগ্যতা অনেক বেড়েছে।
গত উপজেলা নির্বাচনের নৌকার প্রার্থী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা হাসান আলী স্থানীয় সংসদ সদস্যর নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছেন। তিনি নিজ উদ্যোগে দলীয় মনোনয়ন লাভের আশায় তৎপরতা চালাচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে। পরিস্থিতিগত কারণে তিনি মনোনয়ন না পেলে রাজিব রায়কে মনোনয়ন পাইয়ে দিতে ভূমিকা রাখবেন বলে কেউ কেউ মনে করছেন।
আরেক সম্ভাব্য প্রার্থী মঞ্জুর রশিদ স্বপনও বিশ^াস করেন সংসদ সদস্য রনজিৎ রায় তাকেই মনোনয়ন দেবেন। সে কারণে নেতার নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছেন তিনিও।
উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রউফ মোল্লা ২০১৪ সালে দলের মনোনয়নে নির্বাচন করে পরাজিত হয়েছিলেন। এর পর তিনি রাজনীতি থেকে নিজেকে অনেকটা গুটিয়ে নেন। ২০১৮ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়লাভ করে ফের রাজনীতিতে সক্রিয় হন।
এদিকে, প্রয়াত নাজমুল ইসলাম কাজলের স্ত্রী ও বাঘারপাড়া উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথীর নামও শোনা যাচ্ছে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে। প্রথমে তিনি ব্যক্তিগতভাবে প্রার্থী হতে চাননি। এক পর্যায়ে তিনি দলীয় মনোনয়ন পেলে নির্বাচন করতে রাজি হন। ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী প্রয়াত নাজমুল ইসলাম কাজলের স্ত্রী হওয়ায় মানবিক কারণে প্রার্থী তালিকায় অগ্রভাগে রয়েছে তার নাম।
জহুরপুর ইউনিয়নের দু’বারের চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা দিলু পাটোয়ারীর নাম রয়েছে সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায়। ২০১৮ সালের উপনির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়ে ব্যর্থ হন তিনি। তখন লোক সমাগম করে ব্যাপকভাবে আলোচনায় আসেন তরুণ এই ইউপি চেয়ারম্যান।
প্রথমে আলোচনায় না থাকলেও সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক নজরুল ইসলাম। ফেসবুকের মাধ্যমে তিনি সকলের দোয়া চেয়েছেন।
উল্লেখ্য ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১০ ডিসেম্বর এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৫ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ১৭ নভেম্বর, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৩ নভেম্বর এবং প্রতীক বরাদ্ধ ২৪ নভেম্বর।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft