সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
উন্নয়ন নিশ্চিত করতে ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব আয় বৃদ্ধির বিকল্প নেই : ডিডিএলজি
কাগজ সংবাদ :
Published : Tuesday, 24 November, 2020 at 2:07 PM
উন্নয়ন নিশ্চিত করতে ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব আয় বৃদ্ধির বিকল্প নেই : ডিডিএলজিএলজিএসপি-৩ প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে গেলে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের প্রাপ্ত বরাদ্দ আরও কমে যাবে। স্থানীয় পর্যায়ে উন্নয়ন নিশ্চিত করতে এ কারণে ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব আয় বৃদ্ধির বিকল্প নেই। নানা কারণে যথাযথভাবে কর আদায় বা নির্ধারণে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উদাসীন। অথচ সমন্বিত বিশেষ পরিকল্পনা এবং স্বচ্ছতার সাথে কাজ করে সীমিত সাধ্যের মধ্যেই ইউনিয়নবাসীর যথাযথ সেবা নিশ্চিত করে সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব। এ ক্ষেত্রে ডিজিটালাইজেশন বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে। এ কারণে কর আদায়ে প্রশাসনিক বিধি মেনে চলার পাশাপাশি সার্বিক বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীলতার সাথে সচেতন হতে হবে।
সচেতন নাগরিক কমিটি যশোর সনাকের উদ্যেগে ‘স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও জনঅংশগ্রহণমূলক স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন যশোরের স্থানীয় সরকার বিষয়ক উপপরিচালক হুসাইন শওকত।
সদর উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং সচিবদের অংশগ্রহণে এ সভার আয়োজন করা হয়। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতায় ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে মঙ্গলবার বেলা ১১ টা থেকে একটা পর্যন্ত সভা চলে। সনাক যশোরের সভাপতি সুকুমার দাসের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুজ্জামান। সম্মানিত আলোচক ছিলেন টিআইবির সিভিক এনগেজমেন্ট বিভাগের পরিচালক ফারহানা ফেরদৌস। মূল ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন সিভিক এনগেজমেন্ট বিভাগের সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার কাজী শফিকুর রহমান। পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করেন প্রোগ্রাম ম্যানেজার ফিরোজ উদ্দিন। সনাক সহসভাপতি মবিনুল ইসলাম মবিনের পরিচালনায় মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন ইছালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন, হৈবতপুরের সিরাজুল ইসলাম, নরেন্দ্রপুরের মোদাচ্ছের হোসেন, কাশিমপুরের মশিয়ার রহমান সাগর, লেবুতলার আলিমুজ্জামান মিলন, হৈবতপুর ইউনিয়নের  সচিব সাবিনা ইয়াসমিন, চুড়ামনকাটির ইউপি সচিব এসএম রেজাউল কবীর প্রমুখ। সভায় অন্যান্য ইউপি চেয়ারম্যান, সচিব এবং সনাক, স্বজন, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডসগ্রুপের সদস্যরা যুক্ত ছিলেন।
আলোচনায় চেয়ারম্যানরা বলেন, চাহিদা অনুযায়ী বরাদ্দ কম থাকায় বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমে তাদের বেগ পেতে হয়। ইউপি চেয়ারম্যানদের সম্মানী সময়োপযোগী এবং মানসম্মত না বলে দাবি করে তারা বলেন, তাদের একক সিদ্ধান্তে উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কোনো সুযোগ নেই। স্থানীয় সরকারকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সার্বিক উন্নয়ন কর্মকান্ড গ্রহণের জন্যে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তারা।    




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft