সোমবার, ১০ মে, ২০২১
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
জিনুসির দাম বাড়চে, কমচে মানসির দাম !
Published : Friday, 27 November, 2020 at 9:47 PM
জিনুসির দাম বাড়চে, কমচে মানসির দাম !ইশকুলি এক মাইস্টের তার এক ছাত্তররে কলেন, ক’দিনি পাচেত্তে দুই বিয়োগ দিলি কত থাকে? ছাত্তর মাতা চুইলকোয় কচ্চে স্যার হবেন্না। মাইস্টের রাইগে কচ্চে তুই এট্টা আস্ত গরু। ছাত্তর অমনি কলে, স্যার আপনার এট্টু ভুল ছিড়ে গেচে, আমি তো ছোট মানুস, গরু হবো কিরাম কইরে, আমারে বাছুর কতি পাত্তেন। তাই শুইনে মাইস্টেরের মিজাজ খাররা।
ইশকুল কলেজ ইরাম কোন মাইস্টের পাওয়া যাবেনা যাগের মুকি শুনা যায় নি গরু পিটোয় কি কোনদিন মানুস করা যায়! অপিস আদালতেত্তে শুরু কইরে সব জাগায় কারো অপমান কত্তি হলিই তারে গরু কওয়া হয়। দুইজন একই রকম খারাপ হলি লোকে কয় এক গয়লির গরু। সারাজীবন খাইটে মল্লিও তার সুনাম নেই, কবে শালা কলুর বলদ। এ রকম কোনটোয় খুজদি গেলি গরু খুজা, আমার মতো জ্ঞানের বহর খাটো হলি গোমূরখো, গবোর গনেশ, মাতা ভত্তি গবোর আবার কাজকম্মে জড়াবিস্টি হলি লেজেগবোরে ইরাম নানা কটু কতা কওয়া হয়। শুদু কি গরু, অপমান কত্তি ছাগলও কওয়া হয়। কোনটোয় কাজে এট্টু ভুল হলিই স¹লি কয় ছাগল দিয়ে কি হাল চাষ করা যায়। কেউ কয় ইডা তুমার কাজ না, তুমি যাইয়ে কাটালের পাতা চাবাওগে।
টিটকেরি করার জন্যি গরু ছাগলের নাম নিলিও তাগের যে কত গুরুত্ত সিডা শুক্কুরবার আসলি বুজা যায়। লম্বা লাইন পইড়ে যায় গোস্তের দুকানের সুমকি। গরুর গোস্তের দাম কুচকুচ কত্তি কত্তি সেই পাচশ’র ঘরেই উটবোস কত্তেচে। আর ছাগলের গোস্ততো সাড়ে সাতশ আটশ’র ঘরে। সাধারন মানুস কি কইরে গোস্ত কিনে খাবে কওদিনি বাপু। এই সব দুক্কির কতা উসাতিই একজন কলে, গোস্তের দাম পাচশ’ হলিই কি বা হাজার হলিও কি, যত বাড়ে বাড়ুক তাতে কি! এইটুক কতিই একজন কলে, ক্যান তোর টাকায় এতো জোর হইয়েচে যে পাচশ’ হাজার কেজি হলিও তাতে তোর কিচু যায় আসে না। তাই শুইনে সে টানা হাই ফেইলে কলে, ভাইরে যা আমাগের কিনার ক্ষেমতার মদ্দিই নেই, তার দাম কুইমলো না বাইড়লো তাতে আমাগের কি যায় আসে! ওকি আমাগের পাতে পড়ে?
কতাডা শুইনে জানের মদ্দি কাইন্দে দেলে। দিন দিন গরু ছাগলসহ সব জিনুসির দাম বাড়চে শুদু কমচে আমাগের মতো মানসির দাম।
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft