মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১
অর্থকড়ি
অর্থপাচারের দায় বাংলাদেশ ব্যাংক এড়াতে পারে না: হাইকোর্ট
ঢাকা অফিস
Published : Tuesday, 5 January, 2021 at 1:38 PM
অর্থপাচারের দায় বাংলাদেশ ব্যাংক এড়াতে পারে না: হাইকোর্টঅর্থ পাচার রোধে এবং পাচার হওয়া অর্থ ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন হাইকোর্ট। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করে বিদেশে পালিয়ে থাকা পিকে হালদারের পাচার অর্থ ও তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে মঙ্গলবার শুনানিকালে হাইকোর্ট এই প্রশ্ন উত্থাপন করেন।
শুনানিকালে হাইকোর্ট বলেন, ‘বিদেশে শত শত কোটি টাকা পাচার হচ্ছে, বাংলাদেশ ব্যাংক কী করছে। এতো কিছু হচ্ছে তারা (বাংলাদেশ ব্যাংক) কিছু করছে না কেন? তারা শুধু ওখানে (অফিসে) এসে বসে থাকবেন, কিছু করবেন না তা তো হয় না। বাংলাদেশ ব্যাংক অর্থপাচারের দায় এড়াতে পারে না।’
হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল বেঞ্চে মঙ্গলবার পি কে হালদারের বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারির বিষয়ে শুনানি চলছিল হাইকোর্টে।
রাষ্ট্রপক্ষে আদালতে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। তাঁর সাথে আছেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মেহেজাবীন রাব্বানি দিপা ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলি। দুদকের পক্ষে ছিলেন মো. খুরশীদ আলম খান। এছাড়া রয়েছেন আইনজীবী মো. মোশাররফ হোসেন।
প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করে বিদেশে পালিয়ে থাকা পিকে হালদারের কানাডার হোল্ডিংয়ের ঠিকানা ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সরকারকে জানায় কানাডা সরকার। সেদিন জানানো হয়, যে কোনো দিন পি কে হালদারের বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারি করতে পারে ইন্টারপোল।
রেড অ্যালার্ট জারি করলে পৃথিবীর একশ’ ৯৪টি দেশের যেকোনো দেশেই পি কে হালদার থাকুক না কেন, তা জানা যাবে বলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক জানিয়েছিলেন। ওই দিন (৩ ডিসেম্বর) হাইকোর্টের ভার্চ্যুয়াল বেঞ্চের কাছে দুর্নীতি দমন কমিশন জানায় কানাডায় পিকে হালদারের একটি ঠিকানা পাওয়া গেছে।
এদিকে, আদালত পি কে হালদারের প্রতারণার শিকার সাবেক প্রধান বিচারপতি মোস্তফা কামালের পরিবারসহ ভুক্তভোগী বিনিয়োগকারীদের এ মামলায় পক্ষভুক্ত করে আদেশ দেন। এ সময় তাদের আত্মসাৎ করা টাকা ফিরিয়ে দিতে আদালতের কাছে আকুতি জানিয়েছেন তারা। পরে আদালত তাদের আইনজীবী ছাড়াই মামলা পরিচালনা করার জন্য বলেছেন। দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলমকে বলেছেন তাদের (ওই চারজনের) বক্তব্য এফিডেভিট আকারে আদালতে জমা দেয়ার জন্য। আজ সেটি জমা দেয়া হবে বলে জানা গেছে।
ওই দিন আদালতে ভার্চ্যুয়াল শুনানিতে অংশ নেন পিকে হালদারের পিপলস লিজিংয়ে ক্ষতিগ্রস্ত চার বিনিয়োগকারী। যাদের মধ্যে সাবেক প্রধান বিচারপতি মোস্তফা কামালের বড় মেয়ে ড. নাশিদ কামাল, খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা শওকত-উর রহমান ও ক্যান্সারে আক্রান্ত সামিয়া বিনতে মাহবুব। তারা জীবনের শেষ সম্বলটুকু ফিরিয়ে দিতে আদালতের কাছে আবেদন জানান। এ সময় তারা পিকে হালদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ও অর্থপাচারের ঘটনায় অসহযোগিতার অভিযোগ তোলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধেও। ৫ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে বলেও সেদিন ঠিক করেন আদালত।
গত ৯ ডিসেম্বর সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচার করার অভিযোগ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে থাকা প্রশান্ত কুমার হালদারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ইন্টারপোলের কাছে পাঠানো এবং তার বিরুদ্ধে করা মামলা তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান হাইকোর্ট। ৩ জানুয়ারির মধ্যে জানাতে বলা হয়।
তথ্য সূত্র: বাংলানিউজ




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft