সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১
জাতীয়
বাংলাদেশ পাচারের নিরাপদ রুট !
৮৫ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধার
ঢাকা অফিস :
Published : Friday, 8 January, 2021 at 6:25 PM
৮৫ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধাররাজধানীর রামপুরা থানা এলাকা থেকে ৮৫ কোটি টাকার সাপের বিষসহ আন্তর্জাতিক সাপের বিষ চোরাচালান চক্রের পাঁচ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব-৪। শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর রামপুরা থানাধীন চৌধুরীপাড়ার লোহার গেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে সাপের বিষসহ তাদের আটক করা হয়। এ উদ্ধার ও আটকের পর পাচারকারীরা বাংলাদেশকে নিরাপদ রুট হিসেবে ব্যবহারের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে বিশেষজ্ঞদের অভিমত।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক (এএসপি) ইমরান খান জানিয়েছেন, অভিযান চলছে। প্রাথমিকভাবে আসামিদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। তবে বিস্তারিত জানানো হবে।
এর আগে গত ২৫ ডিসেম্বর ৭৫ কোটি টাকার সাপের বিষসহ ছয়জন আটক হয়। পরে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ জানায়, বাংলাদেশ সাপের বিষ পাচারের আন্তর্জাতিক রুট হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।
এদিকে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ‘সাপের বিষ’ পাচারের রুট হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে বাংলাদেশ। ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত সাপের বিষ বাংলাদেশে ক্রয়-বিক্রয়ের অনুমতি নেই। তবুও একটি চক্রের হাত ধরে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে এ বিষ। সাপের বিষ পাচারের রুট হিসেবে বাংলাদেশ ব্যবহৃত হচ্ছে বলে মনে করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।
গত ২৫ নভেম্বর দিনগত রাতে গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় নয় কোটি টাকা সমমূল্যের সাপের বিষসহ পাচারকারী চক্রের মূলহোতা মো. মামুন তালুকদার (৫১) ও তার সহযোগী মামুনকে (৩৩) গ্রেফতার করে সিআইডি। এ সময় তাদের কাছ থেকে দু’টি বড় লকার, ছয়টি কাঁচের কৌটায় সংরক্ষিত সাপের বিষ উদ্ধার করা হয়।

গত ২৬ নভেম্বর রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ মো. রেজাউল হায়দার।
তিনি বলেন, গত ১৭ সেপ্টেম্বর সিআইডি ঢাকা মেট্রোর একটি টিম গাজীপুর জেলার বাসন থানা এলাকা থেকে সাপের বিষ ক্রয়-বিক্রয় ও পাচারকারী চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করে। ওই মামলার তদন্তের সূত্রে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সাপের বিষ পাচারকারী চক্রের মূলহোতা মামুন তালুকদার ও তার সহযোগী মামুনকে গ্রেফতার করা হয়।
শেখ মো. রেজাউল হায়দার বলেন, বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া-মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে এটি লেনদেন হয়। এটার অবশ্যই বৈশ্বিক মার্কেট রয়েছে। তবে বাংলাদেশে এটা বিক্রির কোনো বৈধতা নেই। আমরা এখনো নিশ্চিত না যে এগুলো কোন দেশ থেকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়েছে। যেহেতু এটা এলসির মাধ্যমে আনা হয়নি। তবে জব্দ করা বিষের কনটেইনারগুলোতে মেড ইন ফ্রান্স লেখা রয়েছে। যথা সম্ভব এ অবৈধ সাপের বিষ পাচারের জন্য বাংলাদেশকে রুট হিসেবে ব্যবহৃত করা হচ্ছিল। পুরো তদন্ত শেষ হলে কে বা কারা কোথা থেকে আমদানির পর এটা আবার পাচার করছিল বিষয়গুলো স্পষ্ট হবে বলে মনে করেন তিনি।
এ চক্রের সঙ্গে সাত থেকে আটজনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। তাদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানান সিআইডির এ কর্মকর্তা।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft