বৃহস্পতিবার ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২০ মাঘ ১৪২৯
                
                
☗ হোম ➤ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
কৃষি মেলায় দৃষ্টি কেড়েছে ‘কৃষিতে বঙ্গবন্ধু’
এম. আইউব
প্রকাশ: সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ১২:২১ এএম |
‘বেশি শস্য উৎপাদনের জন্য আমাদের সবার সমন্বিত কৃষি ব্যবস্থার প্রতি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে।’ দীর্ঘ ৫০ বছর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ কথা বলেছিলেন। ৫০ বছর পরে এসে বাংলাদেশের কৃষিতে সেই বাস্তবতা দেখা দিয়েছে।
যশোর সদর উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে আয়োজিত তিনদিনব্যাপী কৃষি মেলায় বঙ্গবন্ধুর এই বাণী অনেকের দৃষ্টি কেড়েছে। দৃষ্টি কেড়েছে ‘কৃষিতে বঙ্গবন্ধু’ স্টলটি। যে স্টলে কৃষি নিয়ে বঙ্গবন্ধুর গুরুত্বপূর্ণ অনেক বাণী স্থান পেয়েছে।
বাংলাদেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধুর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্যের মধ্যে ছিল, ‘কৃষি বিপ্লবের মাধ্যমেই আমাদের দেশ খাদ্যশস্যে স্বনির্ভর হয়ে উঠবে। দেশের এক ইঞ্চি পরিমাণ জমি যাতে পড়ে না থাকে এবং জমির ফলন যাতে বৃদ্ধি পায় তার জন্য দেশের কৃষক সমাজকেই সচেষ্ট হতে হবে।’ বঙ্গবন্ধুর সেই সময়ের ভবিষ্যৎ বাণী এখন অক্ষরে অক্ষরে ফলছে। দেশের বর্তমান বাস্তবতায় পড়ে থাকা জমি ব্যবহারের প্রতি সরকার ব্যাপক গুরুত্ব দিচ্ছে। সদর উপজেলা কৃষি অফিসের তিনদিনের মেলায় সেই গুরুত্ব তুলে ধরা হয়েছে। কেবল তাই না, কৃষিতে কীভাবে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে, কীভাবে ফসল সংরক্ষণ করতে হবে, কীভাবে আধুনিক কৃষি বাস্তবায়ন করা হবে এরকম ২০ টি স্টল দেওয়া হয়েছে। কন্দাল ফসল উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় তিনদিনব্যাপী এই কৃষি মেলা শুরু হয়েছে রোববার থেকে। মেলায় নানা বিষয়ে ধারণা নিতে সাড়ে ৩০০ কৃষক-কৃষাণী উপস্থিত হন।
সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত মেলার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, যশোরের মাটি উর্বর। এখানকার মাটিতে সব ধরনের ফসল ফলে। এ কারণে সকলের উচিৎ বাড়ির আঙিনা, অফিসের খালি জায়গায় কোনো না কোনো ফলের গাছ লাগানো। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ দেশের কোনো জায়গা অনাবাদী থাকবে না। এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে হবে। এটি করতে পারলে সবাই উপকৃত হবে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোরের উপপরিচালক মঞ্জুরুল হক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী। সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনুপ দাশ।
এ সময় আরও বক্তৃতা করেন বিএডিসির যুগ্ম পরিচালক (সার) রোকনুজ্জামান ও সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শেখ সাজ্জাদ হোসেন।
কন্দাল ফসলের মেলা নিয়ে কৃষি অফিসার শেখ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, মেলা আয়োজনের উদ্দেশ্য, কন্দাল ফসলের চাষাবাদ বৃদ্ধি করা। কন্দাল ফসলে খরচ কম, লাভ বেশি বলে জানান তিনি। উদাহরণ হিসেবে তিনি সব ধরনের আলু, সব ধরনের কচু, কচুর লতি ও ওলের কথা বলেন।
কৃষি অফিসার বলেন, অন্যান্য ফসলে যে পরিমাণ খরচ হয় কন্দাল ফসলে সেই তুলনায় কম। বিষয়টি কৃষক-কৃষাণীকে ভালো করে বোঝানো দরকার। আগামীকাল কৃষি মেলার শেষ দিন।



গ্রামের কাগজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন


সর্বশেষ সংবাদ
যমেকে এক ইন্টার্নের হাত-পা ভেঙে দিয়েছে অপর ইন্টার্নরা
যশোর মাতিয়ে গেলেন চিত্র নায়িকা পূজা চেরি
যশোর শহরসহ দু’ উপজেলায় আ’লীগের কমিটি গঠন
বেতন নিচ্ছে না তিন মাদ্রাসা !
যশোরের মাইশা-পপলুর ৯ম হত্যাবার্ষিকী আজ
বেলুয়া নদীতে ভাসমান সবজির হাট
লালপুরে একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
বেশি টাকা দিলেই মিলছে গ্যাস
এবার সংবাদ সম্মেলনে নিজের নিরাপত্তাহীনতার কথা জানালেন সাবেক চেয়ারম্যান মুন্না
গ্রাহক পর্যায়ে ইউনিটপ্রতি বিদ্যুতের দাম বাড়ল ২০ পয়সা
যৌন নিপীড়নের অভিযোগে একজন আটক
পাতাল মেট্রোট্রেন চলবে ১০০ সেকেন্ড পরপর
কঠোর কর্মসূচি না, নির্বাচনী প্রস্তুতি বিএনপির
জামায়াতে ইসলামীকে দেওয়া নিবন্ধন অবৈধ
আমাদের পথচলা | কাগজ পরিবার | প্রতিনিধিদের তথ্য | অন-লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য | স্মৃতির এ্যালবাম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন | সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
কপিরাইট © গ্রামের কাগজ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft