মঙ্গলবার ৩১ জানুয়ারি ২০২৩ ১৮ মাঘ ১৪২৯
                
                
☗ হোম ➤ সারাদেশ
মাদারীপুরে ডাকাত আতংক:
সাধারণ মানুষ রাত জেগে পাহারা
মাদারীপুর প্রতিনিধি :
প্রকাশ: সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ২:৩৮ পিএম |
মাদারীপুর জেলা জুড়ে রবিবার দিবাগত রাত ১১ টার পর থেকে সারারাত ডাকাত আতংকে ছিলেন সাধারণ মানুষ। এই খবর মাদারীপুরের বিভিন্ন মানুষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার করেছেন। এতে এই খবরটি ফেসবুকপাতায় জুড়ে ভাইরাল হয়। এছাড়াও ডাকাত আতংকের খবর জেলার বিভিন্ন মসজিদে মসজিদে মাইকিং করা হয়েছে। ফলে সাধারণ মানুষের মধ্যে ভয় ও আতংক দেখা দিলে, তারা রাত জেগে পাহারা দেন। এদিকে মাদারীপুর পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সচেতনমূলক পোস্ট দেয়া হয়েছে। এটা গুজব বলেও জানিয়েছেন পুলিশ। এসময় বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ টহলও দিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলা, কালকিনি, ডাসার, শিবচর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতদল হানা দিয়েছে আবার কোথাও কোথাও হানা দিবে বলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। রবিবার রাত ১১টার পর থেকে সারারাত জুড়ে এই আতংক বিরাজ করে। কোন ধরণের ডাকাতির ঘটনা না ঘটায় পরের দিন সোমবার ভোরে সাধারণ মানুষের মধ্যে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে এসেছেন।
মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর, করদি, উত্তর চিড়াইপাড়া, নয়াচর, পাকদি, খাগদী, থানতলী, পিটিআই রোড, হাজির হাওলা, ছয়না, কুকরাইল, গগণপুর, শিবচর উপজেলার নলগোড়া, কালকিনি উপজেলার সাহেবরামপুর, এনায়েতনগর, ফাসিয়াতলা, ডাসার উপজেলার নবগ্রাম, খাতিয়ালসহ প্রায় এলাকাজুড়ে এই ডাকাত আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
এই ঘটনায় আতংক হয়ে বিভিন্ন এলাকার মসজিদে মসজিদে মাইকিং করে ডাকাতের কথা জানানো হয়েছে। মাইকিং এ বলা হয়-আজ রাতে ডাকাতি হবে, তাই সবাই সাবধানে থাকবেন, সবাই জেগে পাহাড়া দিবেন। যে কোন সময় ডাকাতরা হামলা দিবে। এরপরই আরো বেশি আতংক ছড়িয়ে পড়ে জেলা জুড়ে। সেই সাথে বিভিন্ন মানুষজন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ডাকাতির খবর বিভিন্ন ভাবে শেয়ার দেন। এতে করেও সাধারণ মানুষের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই ঘর ছেড়ে লাঠিসোটা নিয়ে রাত জেড়ে ডাকাত পাহাড়ায় থাকেন।
এদিকে যখন জেলাজুড়ে আতংক ছড়িয়ে পড়ে, তখন মধ্য রাতে মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, মাদারীপুর পৌরসভার মেয়র মো. খালিদ হোসেন ইয়াদসহ বিভিন্ন প্রশাসনের লোকজন, সাংবাদিক ও সচেতন ব্যক্তিরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ডাকাতির ঘটনা গুজব বলে সচেতনমুলক পোস্ট দিয়ে সাধারণ মানুষকে আশ^স্ত করেন।
মাদারীপুর সদর উপজেলার হাজির হাওলা গ্রামের শিক্ষক নুরজাহান বলেন, রাত তিনটার সময় আমার এক আত্মীয় রেজাউল বলেন হাজির হাওলা গ্রামে ডাকাত পড়েছে। সবাইকে সাবধান হতে হবে।
মাদারীপুর সদর উপজেলার চিড়াইপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সাংবাদিক ইমদাদুল হক মিলন বলেন, আমাদের এখানে ডাকাত পড়েছে বলে মসজিদে মসজিদে মাইকিং করা হয়েছে।
মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুরের মেহেদী হাসান বলেন, রাতে মস্তফাপুর বাজার ও মস্তফাপুর বাসস্ট্যানে ডাকাতের হামলা হতে পারে বলে মসজিদে মসজিদে মাইকিং হয়েছে।
শিবচর উপজেলার নাসিরুল হক বলেন, শিবচরের নগগোড়া এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকার মসজিদে মসজিদে ডাকাত আতংকের ঘোষণা হয়েছে।
এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ডিউটি অফিসার এস. আই মিলন বলেন, এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার পর থেকেই পুলিশ ডাকাত ধরতে এবং কোথা থেকে এই খবরের সূত্রপাত ঘটেছে তা উদ্ঘাটন করতে ব্যাপক তৎপরতা চালিয়েছেন। তবে শেষে মনে হচ্ছে বিষয়টি সবই গুজব। কেননা কোথাও কোন ডাকাতি হয়েছে বা ডাকাতির চেষ্টা হয়েছে এমন কোন খবর পুলিশ পাননি।
মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনোয়ার হোসেন বলেন,  ডাকাতির ঘটনা সম্পূর্ণ গুজব। এই গুজব ছাড়া ছড়িয়েছেন তাদের খুজে বের করে আইনের আওয়াতায় আনা হবে।


গ্রামের কাগজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন


আরও খবর
সর্বশেষ সংবাদ
দৃষ্টিনন্দন বিনোদন কেন্দ্র ‘স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্ট’
পাকিস্তানে মসজিদে হামলা: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭২
বিশ্বকাপের সেরা একাদশে জায়গা করে নিলেন স্বর্ণা
কোভিড নিয়ে এখনও বড় ভয় আছে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
বিশ্বজুড়ে করোনায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত
সাবেক মেয়র, সচিব ও প্রশাসনিক কর্মকর্তার নামে মামলা
যশোর বোর্ডের একটি স্কুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সাবেক মেয়র, সচিব ও প্রশাসনিক কর্মকর্তার নামে মামলা
সভাপতি সুমন, সম্পাদক আরিফ
বাঙালির কিছু বিখ্যাত বংশ পদবীর ইতিহাস
উন্নত বাংলার স্বপ্ন দেখিয়েছেন শেখ হাসিনা: সাবেক এমপি মনির
যশোর বোর্ডের একটি স্কুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ
বেসরকারি হাসপাতালের ফি নির্ধারণ করা হচ্ছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী
বিএনপিকে জনগণ পালাবার সুযোগ দেবে না : তথ্যমন্ত্রী
আমাদের পথচলা | কাগজ পরিবার | প্রতিনিধিদের তথ্য | অন-লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য | স্মৃতির এ্যালবাম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন | সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
কপিরাইট © গ্রামের কাগজ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft