শনিবার ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২২ মাঘ ১৪২৯
                
                
☗ হোম ➤ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
ডাকাতির ঘটনায় আরো ৮ জন আটক
খায়রুজ্জামান আকাশ, রোহিতা:
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২২, ১:১৪ পিএম আপডেট: ০১.১২.২০২২ ১:১৯ পিএম |
যশোরের মণিরামপুরের কোদলাপাড়ায় মেঘনা বেকারির মালিকের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ৮ জনকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গত ২-৩ দিনে অভিযান চালিয়ে খুলনার তেরখাদা, গোপালগঞ্জ ও মাদারিপুর থেকে তাদের গ্রেফতার করেছে ডিবি। 
বুধবার রাত ৯টার দিকে ডাকাতদের দুই জনকে সঙ্গে নিয়ে ডাকাতি হওয়া বাড়িতে যায় পুলিশ। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ঘটনাস্থলের ৩ কিলোমিটার দূরে টেংরামারী বিলের বকুলের মাছের ঘের থেকে ডাকাতি হওয়া দুটি মোবাইল ফোন উদ্ধার হয়। 
এ সময় মণিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান, ডিবির ওসি রুপন কুমার সরকার, রোহিতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন, ইউপি সদস্য মেহেদী হাসান, রেজাউল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
গ্রেফতার ৮ ডাকাতের মধ্যে ৫ জনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন, ঢাকার মিন্টু, মাদারিপুরের লিটন, খুলনার কালু, ঝিনাইদহের কবির ও গোপালগঞ্জের ভ্যান চালক সুরুজ।
গ্রেফতার লিটন স্বীকার করেছেন, একটি চুরির মামলায় তিনি মাদারিপুর জেলে ছিলেন। সেখানে ডাকাতদের একে অপরের পরিচয় হয়। এরপর বাইরে এসে ডাকাতির পরিকল্পনা করি। একপর্যায়ে যশোর রেল স্টেশন এলাকার ভ্যান চালক সুরুজের সাথে পরিচয় হয়। সুরুজের দেওয়া সূত্র ধরে তারা ৭ জন মণিরামপুরে বেকারি মালিকের বাড়িতে ডাকাতি করেন।
লিটন বলেছেন, ৫ দিন আগে গত শুক্রবার রাত ২টায় ডাকাতি করার পর বিল দিয়ে নেমে তারা বকুলের মাছের ঘেরের পাড়ে এসে বিশ্রাম নেন। সেখানে ওই বাড়ি থেকে আনা দুটো মোবাইল ফেলে যান তারা।
লিটন আরো বলেন, আমরা ৩৯ হাজার টাকা ও দুটো স্বর্ণের চেইন, একজোড়া কানের দুল ও একটি আংটি নিয়েছি। পরে সর্দার কালুর সহায়তায় খুলনায় একটা দোকানে ১ লাখ ৮ হাজার টাকায় অলঙ্কারগুলো বিক্রি করেছি। 
পুলিশ ও বেকারি মালিক মশিয়ার রহমান জানান, যশোরের একটি দোকান থেকে বেকারির জন্য কেনা মালামাল দীর্ঘদিন ভ্যানে করে মেঘনা বেকারিতে আনতেন রেল স্টেশন এলাকার সুরুজ নামে এক চালক। সে সূত্রে বেকারির মালিকের সাথে তার ভাল জানাশোনা হয়। গত সপ্তাহে বেকারির মালামাল এনে মালিকের রান্না ঘরে তুলে দেয় সুরুজ। এরপর শুক্রবার বিকেলে ডাকাত মন্টু ও লিটনকে ভ্যানে করে এনে বেকারিতে ঢোকে। সেখান থেকে বেরিয়ে আশপাশের এলাকায় ঘুরে বেড়ায়। এরপর রাতে এসে তারা ডাকাতির ঘটনা ঘটনায়।
গত শুক্রবার দিনগত রাতে মণিরামপুরের কোদলাপাড়ায় মেঘনা বেকারি মালিকের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এসময় ডাকাতরা বাড়ির লোকজনকে বেঁধে মারপিট করে ৪ লাখ টাকা,  ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও দুটি মোবাইল লুট করে। এরপর ডিবি এ ঘটনার তদন্তে নামে। বেকারি মালিক মশিয়ারের দেওয়া তথ্যের সূত্র ধরে ঘটনার একদিন পরে সুরুজকে আটক করে ডিবি। এরপর তার দেওয়া সূত্র ধরে বাকি ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে ডিবি।
ডিবির ওসি রুপন সরকার বলেন, মন্টু ও লিটন পেশাদার ডাকাত। তারা বৈদ্যুতিক বাল্ব বা লাইট হকারি করে বিক্রির মাধ্যমে ডাকাতির পরিকল্পনা করে। এ দুজন সুরুজের ভ্যানে ঘোরাফেরা করার সময় তার মোবাইল নম্বর নেয়। এরপর তারা একসাথে কয়েকটি স্থানে ডাকাতি করেছে।
ডিবির ওসি বলেন, ১৭ বছর যশোরে থাকার কারণে এ অঞ্চলের সব রাস্তা সুরুজের চেনা। গত ২৫ নভেম্বর বিকেলে সে লিটন ও মন্টুকে নিয়ে মেঘনা বেকারিতে আসে। সুরুজকে আটকের পর তার মোবাইলের কল লিস্ট থেকে এ তথ্য প্রমাণ হয়েছে।
ওসি রুপন বলেন, তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ৮ জনকে গ্রেফতার করেছি।
এর আগে মঙ্গল ও বুধবার ডাকাতির অভিযোগে আটক হয় দশ জন।



গ্রামের কাগজ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন


সর্বশেষ সংবাদ
যশোরে আ’লীগের ছয় বহিষ্কৃত পেয়েছেন ক্ষমা পাওয়ার চিঠি
বিদায়ী এডির পদায়ন বাণিজ্য
যমেক হোস্টেল যেন টর্চার সেল
প্রথম মিশন ট্রেন দুর্ঘটনার স্থান
বেড়েছে ডিম ও মুরগির দাম, কমেছে জিরায়
যে কারণে প্যারিস অলিম্পিক বয়কট করতে পারে ৪০ দেশ
কাঠবোঝাই নসিমন উল্টে চালক নিহত
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সারাদেশের নজর এখন যশোরে
কেন্দ্রে অভিযোগ জানাবেন স্থানীয় এমপি ও সভাপতি
মণিরামপুরে নতুন কমিটিতে আসলেন যারা
যশোরে আ’লীগের ছয় বহিষ্কৃত পেয়েছেন ক্ষমা পাওয়ার চিঠি
লামা ফাইতং এ ভ্রাতৃঘাতী হামলায় চোখ হারালেন বিয়াই
নাজিরপুরে ইঁদুর মারার বৈদ্যুতিক ফাঁদে কৃষকের মৃত্যু
যমেক হোস্টেল যেন টর্চার সেল
আমাদের পথচলা | কাগজ পরিবার | প্রতিনিধিদের তথ্য | অন-লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য | স্মৃতির এ্যালবাম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন | সহযোগী সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০২৪৭৭৭৬২১৮২, ০২৪৭৭৭৬২১৮০, ০২৪৭৭৭৬২১৮১, ০২৪৭৭৭৬২১৮৩ বিজ্ঞাপন : ০২৪৭৭৭৬২১৮৪, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
কপিরাইট © গ্রামের কাগজ সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft