শিরোনাম: যশোর জেলা পরিষদের মামলায় ১৩ আসামী        রামনগরের সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত       শুক্রবার যশোরের বিভিন্ন এলাকায় দুপুর একটা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে       দুক্কির কতা কবো কারে !       যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যানকে শিক্ষক সমিতির সংবর্ধনা       ফের রিমান্ডে পুলিশ কনস্টেবল দেব প্রসাদ       যশোরে হামলা মারপিট ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে পৃথক মামলা       বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন প্রত্যেককে দিতে হবে : জিএম কাদের       যশোরে মহিলা পরিষদের সংবাদ সম্মেলন        যশোরে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সমাবেশ ও মানববন্ধন       
যশোর দুদকের মামলা
অডিটর রসুল দম্পতির ১৫ বছরের জেল
কাগজ সংবাদ
Published : Tuesday, 27 October, 2020 at 9:26 PM

অডিটর রসুল দম্পতির ১৫ বছরের জেল দুর্নীতির পৃথক মামলায় যশোর জেলা হিসাবরক্ষণ অফিসের সাবেক অডিটর গোলাম রসুলকে আট বছর ও তার স্ত্রীকে সাত বছর কারাদন্ড ও অর্থদন্ড দিয়েছে আদালত। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মণিরামপুরের মনোহরপুর গ্রামের মৃত মোবারক আলী সরদারের ছেলে শহরের পূর্ব বারান্দিপাড়ার বাসিন্দা গোলাম রসুল ও তার স্ত্রী আয়েশা খাতুন। মঙ্গলবার স্পেশাল জজ  (জেলা ও দায়রা জজ) আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সামছুল হক পৃথক রায়ে এ সাজা দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত গোলাম রসুল বর্তমানে ঢাকার সেগুনবাগিচার ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ের পিএ-৫ শাখার অডিটর হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন দুদকের স্পেশাল পিপি জিএম জুলফিকার আলী।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ১৯৯৭ সালে গোলাম রসুল যশোর জেলা হিসাবরক্ষণ কার্যালয়ের অডিটর হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ওই সময় শহরের পূর্ববারান্দিপাড়ায় স্বামী-স্ত্রীর নামে ১০.১০ শতক জমি কেনেন তিনি। ২০১২ সালের ৩১ জানুয়ারির মধ্যে তারা এ জমিতে একটি তিনতলা বাড়ি নির্মাণ করেন। বাড়িটি নির্মাণে তাদের ব্যয় হয় ৬৪ লাখ ১৮ হাজার চারশ’ ৯৪ টাকা। এ জমি ও বাড়ির অর্ধেক অর্থ্যাৎ ৫ দশমিক ৫ শতক জমির মালিক তার স্ত্রী আয়েশা খাতুন। আয়েশা খাতুন ২০১২ সালের ৩১ জানুয়ারি দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রাপ্ত নোটিশের জবাবে তার আয় ও বাড়ি নির্মাণে ব্যয় দেখান ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এরপর দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিত কার্যালয় যশোর বিষয়টি তদন্ত শুরু করে। পরে গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলী দিয়ে বাড়ি নির্মাণের খরচ নিরুপণ করা হয়। বাড়ি নির্মাণে এবং আয়েশা খাতুনের সম্পদের হিসাব বিবরণীতে ১৯ লাখ ২৩ হাজার পাঁচশ’ ৬৮ টাকা ৫০ পয়সার সম্পত্তি গোপন করেন। এ ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশন যশোরের সহকারী পরিচালক আমিনুর রহমান ২০১৪ সালের ২৮ এপ্রিল জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও দুর্নীতির অভিযোগে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। এ মামলার তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৫ সালের ৩০ এপ্রিল আয়েশা খাতুনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেওয়া হয়।
অপরদিকে, গোলাম রসুল যশোরে চাকরিকালীন তার স্ত্রী আয়েশা খাতুনের সাথে যৌথভাবে ১০ দশমিক ১০ শতক জমি কেনেন। যার মধ্যে তার নিজের অংশ ৫ দশমিক ৫ শতক। ওই জমিতে তারা যৌথভাবে তিনতলা একটি ভবন নির্মাণ করেন। গোলাম রসুল তার সম্পদ বিবরণীতে তিনতলা বাড়ি নির্মাণের কথা উল্লেখ করে ব্যয় দেখান ২৭ লাখ ৬১ হাজার তিনশ’ ৭৫ টাকা।
দুদকের অনুসন্ধানে ও গণপূর্ত বিভাগকে দিয়ে নিরীক্ষণ করে ভবনের নির্মাণ খরচ পাওয়া যায় ৬৪ লাখ ১৮ হাজার চারশ’ ৯৪ টাকা। অর্ধেক হিসেবে গোলাম রসুলের সম্পদ বিবরণীতে ৩২ লাখ ৯ হাজার দুশ’ ৪৭ টাকা দেখানোর কথা। সেই হিসেবে তিনি চার লাখ ৪৭ হাজার আটশ’ ৭২ টাকার সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন করেন।
এছাড়া, তিনি আয়কর নথিতে বাড়ি নির্মাণের ব্যয় ১৪ লাখ ১১ হাজার তিনশ’৭৫ টাকাসহ সর্বমোট ২১ লাখ ৮৪ হাজার পাঁচশ’ টাকার হিসাব দেখান। দুদকে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণী যাচাইকালে তার মোট ৩৭ লাখ ১৪ হাজার একশ’ ৮০ টাকা স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ পাওয়া যায়। যার বিপরীতে তার কোনো ঋণ নেই। এতে তিনি ১৫ লাখ ২৯ হাজার ছয়শ’ ৮০ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেন। এ ব্যাপারে দুদক যশোর সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুর রহমান বাদী হয়ে ২০১৪ সালের ১৬ জুলাই কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। এ মামলার তদন্ত শেষে ২০১৫ সালের ১৭ আগস্ট গোলাম রসুলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন তদন্ত কর্মকর্তা।
আলদা এ মামলায় দীর্ঘ সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামি আয়েশা খাতুনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় একটি ধারায় তিন বছর সশ্রম কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং আরেকটি ধারায় চার বছর সশ্রম কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে চার মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক। একইসাথে সম্পদের তথ্য গোপন করায় ১৯ লাখ ২৩ হাজার পাঁচশ’ ৬৮ টাকা ৫০ পয়সা জরিমানা করা হয়েছে।
অপরদিকে, গোলাম রসুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় একটি ধারায় তিন বছর সশ্রম কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং আরেকটি ধারায় পাঁচ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে চার মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক। একইসাথে সম্পদের তথ্য গোপন করায় ১৫ লাখ ২৯ হাজার ছয়শ’ ৮০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সাজাপ্রাপ্ত গোলাম রসুল ও তার স্ত্রী আয়েশা খাতুন বর্তমানে কারাগারে আটক রয়েছেন।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft