দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: মণিরামপুরে গাঁজাসহ যুবক আটক       যুক্তরাষ্ট্রে অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের বৈধ করার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর       ‘বিএনপির ৭ মার্চ পালন দেশের রাজনীতিতে ইতিবাচক’       ২৬ মার্চ থেকে চলবে ঢাকা-জলপাইগুড়ি ট্রেন       জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আলটিমেটাম       মুজিবনগর-কলকাতা ‘স্বাধীনতা সড়ক’ খুলছে মার্চের শুরুতে       টিকা নিয়েও আক্রান্ত, স্বাস্থ্য অধিদফতরের ব্যাখ্যা       চুয়াডাঙ্গায় দেয়াল চাপায় শিশুর মৃত্যু       মাদারীপুরে জমজমাট নির্বাচনী প্রচারণা       অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশের নারীরা পিছিয়ে      
ঝিনাইদহ মাগুরা ও নড়াইলে ৫১ একর জমিতে কর্মযজ্ঞ
এগিয়ে চলেছে হাউজিং এস্টেটের প্লট বরাদ্দের বিশাল প্রকল্প
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Friday, 22 January, 2021 at 8:55 PM, Count : 365
এগিয়ে চলেছে হাউজিং এস্টেটের প্লট বরাদ্দের বিশাল প্রকল্পঝিনাইদহ, মাগুরা ও নড়াইল জেলা শহরে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ (হাউজিং এস্টেট) যশোরের উদ্যোগে এগিয়ে চলেছে প্লট বরাদ্দের বিশাল প্রকল্প। তিন জেলা শহরে ৫১ একর জমি কিনে ৩ কাঠা, ৪ কাঠা ও ৫ কাঠার প্লট বিক্রি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে মাগুরা ও নড়াইলে জমি বরাদ্দের কাজ প্রায় শেষ। ঝিনাইদহে প্লট বিক্রির কাজ শুরু হতে যাচ্ছে।
হাউজিং সূত্রের দাবি, বাজার ছাড়া প্লটের মূল্য একটু বেশি হলেও ৬০ ফিট রাস্তা রয়েছে। বিদ্যুৎ সংযোগও আগাম দেয়া হচ্ছে।
হাউজিং এস্টেট সূত্র জানিয়েছে, জনসাধারণের আবাসন সুবিধা বাড়াতে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ বিশেষ অর্থ বরাদ্দ দিয়ে ঝিনাইদহ, মাগুরা ও নড়াইলে ৫১ একর জমি ক্রয় করে। ওই এলাকার পাবলিকের কাছ থেকে বাজার মূল্যে ওই জমি কিনে কাঙ্খিত প্লট প্রকল্প শুরু করে। মাগুরার পারনোন্দোয়ালি এলাকা, ঝিনাইদহের গয়েশপুর, লক্ষীকুল এলাকা ও নড়াইলের মহিশখোলা এলাকায় মোট ৫১ একর জমি ক্রয় করে প্লট তৈরি করা হয়।  ঝিনাইদহের গয়েশপুর ও লক্ষীকুল মৌজার সাড়ে ১৬ একর জমিতে ১৪৫ থেকে ১৬০টি প্লট তৈরি হচ্ছে। ৬০ ফিট রাস্তার পাশের ওই প্লটের প্রতি কাঠা জমির দাম ধরা হয়েছে ৬ লাখ থেকে ৭ লাখ টাকা। প্লট যথাক্রমে ৩ কাঠা, ৪ কাঠা ও ৫ কাঠা করা হয়েছে। মাগুরার পারনোন্দোলিতেও সাড়ে ১৬ একর জমিতে তৈরি করা হয়েছে প্লট। কাঠা প্রতি ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা বিক্রি হয়েছে। এছাড়া নড়াইলের মহিশখোলায় সাড়ে ১৬ একর জমিতে প্লট করে বিক্রি প্রায় শেষের পথে।  ৬০ ফিট রাস্তার পাশের ওই প্লটের জমি কাঠা প্রতি ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা ধার্য্য করা হয়েছে বলে হাউজিংয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে।
তবে হাউজিং প্লটের দাম বেশি ধরেছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেছেন। যে এলাকায় প্লট করা হয়েছে সে এলাকায় জমির দাম আরো কম বলেও তাদের দাবি। এছাড়া প্লট বরাদ্দের বিষয়টি বহুলভাবে প্রচার হয়নি। অনেকেই জানেননা প্লট বিক্রি হচ্ছে বা হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে স্ব স্ব জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন সংশ্লিষ্ট এলাকার প্লট প্রত্যাশীরা।
এ ব্যাপারে জাতীয় গৃহায়ন কর্তপক্ষ যশোরের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী রিদুয়ার হোসেন গ্রামের কাগজকে জানিায়েছেন, হাউজিং সময় উপযোগী অনেকগুলো প্রকল্প নিয়ে এগুচ্ছে। যশোর জেলা শহরে ফ্ল্যাট প্রকল্প শেষ হয়েছে। এর আগে প্লট বরাদ্দ হয়েছে কয়েকটি প্রকল্পে। এছাড়া বর্তমানে মার্কেট প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এখন ঝিনাইদহে প্লট বরাদ্দ কার্যক্রম চলছে। এছাড়া ইতিমধ্যে নড়াইল ও মাগুরায় প্লট বিক্রি কার্যক্রম শেষ হয়েছে। স্ব স্ব জেলা প্রশাসক মহোদয় ওই তিন জেলায় প্লট বিক্রি ও বরাদ্দের  কার্যক্রম তদারকি করছেন। মানুষের জীবনযাত্রার মানের উপর  মানসম্মত আবাসন সুবিধা দিতে কিস্তি আকারে প্লট বরাদ্দ কার্যক্রম নিঃসন্দেহে সরকারের ভাল উদ্যোগ। এসব প্রকল্পে ভাল সাড়া পাওয়া যাচ্ছে।







« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft