ওপার বাংলা
শিরোনাম: কে এই মামুনুল হক?       কলাপাড়ায় কিছুতেই থামছে না আন্ধারমানিক নদীর দখল দৌরাত্ম       গাজীপুরে পুলিশ দম্পত্তিকে মারধোর       ব্যবসায়ীদের সুযোগ-সুবিধা আরো বাড়ানো দরকার : অর্থমন্ত্রী       আনারস ফলে রয়েছে অনেক গুণাগুণ       ‘বিএনপির মিথ্যাচারের থলের বিড়াল বেরিয়েছে’       পত্র-পত্রিকায় আমার বক্তব্য বিকৃত করে ছাপা হয়েছে : মির্জা আব্বাস       আন্তঃব্যাংক লেনদেন চালু       একদিনে রেকর্ড ১০২ মৃত্যু       রাজশাহীতে বের হবার করণ দেখাতে না পারলে ফিরতে হচ্ছে উল্টো পথে      
মুখোমুখি দিলীপ-নচিকেতা, ভাইরাল ছবিতে নেটে ঝড়
কাগজ ডেস্ক:
Published : Tuesday, 2 March, 2021 at 6:45 PM, Count : 147
মুখোমুখি দিলীপ-নচিকেতা, ভাইরাল ছবিতে নেটে ঝড়এক ফ্রেমে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আর গায়ক নচিকেতা চক্রবর্তী। এই ছবিই এখন ঝড় তুলেছে নেটমাধ্যমে। তাহলে ‘প্রাইভেট কমিউনিস্ট’ ও মমতা ঘনিষ্ঠ নচিকেতার কি বিজেপি'র সঙ্গে কোনও সমীকরণ তৈরি হচ্ছে? ভোটের আগে যখন শিল্পীদের দলীয় রাজনীতিতে নাম লেখানো নিত্য ঘটনা হয়ে পড়েছে, তখন নচিকেতা-দিলীপের ছবি জন্ম দিয়েছে এই নতুন জল্পনার।
আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, বাংলা আধুনিক গানে ১৯৯০ উত্তরকালে সুমনের পরপরই যে বর্ণময় চরিত্রের নাম আসে, তিনি নচিকেতা। একসময় লিখেছিলেন, ‘তুমি আসবে বলেই দেশটা এখনও গুজরাট হয়ে যায়নি’। গুজরাটে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার পর কলমে-রাস্তায় সরব হয়েছিলেন তিনি।
তার আগে বাম আমলে মন্ত্রী সুভাষ চক্রবর্তীর বিশেষ স্নেহভাজন ছিলেন নচিকেতা। কিন্তু ২০০৯ সালের পর থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়। বাম বিরোধী বিদ্বজ্জনদের কর্মসূচিতে তিনি পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন। তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পরও নচিকেতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘কাছের লোক’ বলেই পরিচিত ছিলেন। সেই নচিকেতাকে বিজেপি রাজ্য সভাপতির সঙ্গে এক ফ্রেমে দেখে কৌতূহলের জন্ম দিয়েছে।
গায়ক জানাচ্ছেন, তিনি যাননি; দিলীপ ঘোষ এসেছিলেন তার সঙ্গে দেখা করতে। বলেন, ‘আমি একটা অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম, সেখানে অনেকেই ছিলেন। হঠাৎ দেখি দিলীপ ঘোষ আমার সঙ্গে দেখা করতে এলেন। তিনি আমার গান পছন্দ করেন। তার রাজনৈতিক আদর্শে আমি বিশ্বাস করি না। কিন্তু তাতে কী সব শেষ হয়ে গেল?
‘তার সঙ্গে আমার রাজনীতি নিয়ে কোন কথা হয়নি। কারণ আমার কোন দল নেই, আমার কোন রং নেই। আমি প্রাইভেট কমিউনিস্ট। উনি আমার গান ভালবাসেন সেই সূত্রেই আমার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন।’
এ বিষয়ে কথা বলতে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft