আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
শিরোনাম: হাসপাতালে স্বেচ্ছাসেবক লেবাসধারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি প্রতিমন্ত্রীর       যমেক হাসপাতালে আইসিইউ উদ্বোধন        আ’লীগ নেতা কাজী বর্ণ মানবতা ভ্যানের ২১ দিনে ৮ হাজার প্যাকেট খাবার বিতরণ       এমপি নাবিলের পক্ষে ঈদ উপহার ও ইফতারি বিতরণ       শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি       গঠণতন্ত্র সংশোধনের সিদ্ধান্ত, নির্বাচন ২৬ জুন       দেড় হাজার পিস ইয়াবাসহ ৪ কারবারী আটক        সংবাদপত্র হকার্স ইউনিয়নের উৎসব ভাতা প্রদান সোমবার       ভারত থেকে বিপজ্জনক বার্তা পাওয়া যাচ্ছে : কাদের       খাদ্যশস্য সংগ্রহে ধানকে প্রাধান্য দিতে হবে : খাদ্যমন্ত্রী      
ধম্মডা কনে!
Published : Tuesday, 20 April, 2021 at 9:26 PM, Update: 20.04.2021 9:27:04 PM, Count : 139
ধম্মডা কনে!এক গিরামে এক বিশাল নাম করা চোর ছিলো। তার দাপটে মানুস সব সুমায় ভয়তি ভয়তি থাইকতো। সবাই জাইনতো সেই চুরি কইরেচে, কিন্তুক হাতেনাতে কোনদিন তারে ধত্তি পাইত্তো না বিলে সিরাম কিচু কতিও পাইত্তো না। চুরি কইরেও সে বুকির সিনে ফুলোয় চইলতো। মাজে মদ্দি বাইর গিরামেত্তেও তারে হাইয়ের কত্তি আইসতো অন্যের বাড়ি চুরি করানোর জন্যি। চোর হইয়েও তার ছিলো অইন্য রকম রুয়াব। ইরাম কইরে বহুত দিন চলার পর, হটাস সেই চোর সব ছাড়ান কাড়ান দিয়ে বাপের থুইয়ে যাওয়া যট্টুক জমি জিরেত ছিলো তাতে চাষবাষ করার দিকি খিয়াল দেচে। সুংসার ধম্ম আর চাষবাস ছাড়া কোন কিচুর সাতে পাচে সে আর নেই। স¹লি অবাক, কেতে কি হইলো, হটাস কইরে চোর ভালো হইয়ে গ্যালো। তার কি মরার সুমায় ঘুনায় আইসলো ইরাম ভালো হইয়ে গ্যালো!
একদিন সেই সাবেক চোর তার ভুই নিংড়োচ্চে ইরাম সুমায় এক মুরুব্বী আইসে তারে কলে, দ্যাখ আল্লাহ যারে সুমতি দেয় তারে ইরাম কইরেই দেয়। তোরে কত বুজ দিচি কুকম্ম ছাইড়ে দিয়ে সুপতে আয়, আমার কতাডা শুনিচিস। যাক আল্লা তোরে হেদায়েত দেচে তাতেই হাজার শোকর। মুরুব্বীর এইরাম কতা শুইনে টিকতি না পারে কচ্চে, কেউ আমারি হিদায়েতও করিনি, আর কারো ভয়তেও আমি চুরি বিদ্যে ছাড়িনি। আমি ইডা ছাইড়ে দিচি মনের তিক্ষেয়। এই কতা শুইনে মুরুব্বী কলে কিসের তো তিক্ষে ক’দিন এট্টু শুনি। লোকটা কচ্চে, চুরি করবো কি, মানসির গেচে ইমান নষ্ট হইয়ে, তা চুরি করা যায়! এই শুইনে মুরুব্বী পইড়েচে ঘোরের মদ্দি, মানুসর ইমান নষ্ট হলি ওর চুরিতি সমিস্যা কনে। মুরুব্বী কচ্চে, এট্টু ক্লিয়ারকাট ক’দিনি কি কতি চাচ্চিস। লোকটা কচ্চে, আগে চুরি কল্লি লোকে সত্যি কতা কইয়ে থানায় মামলা দিতো। থানায় আমার তলশুড়া যুগাযোগ ছিলো। যা চুরি কত্তাম তার আদ্দেক থানায় দিয়াসতি হইতো। দিয়ে থুইয়ে যা থাইকতো তাই দিয়ে কইরে কাম্মে খাচ্চিলাম। একন মানসির গেচে ইমান নষ্ট হইয়ে। দশ হাজার চুরি কল্লি এক লক্ক টাকা চুরি কইয়ে মামলা করে। তার আদ্দেক দিতি না পাল্লি মাইর গুতোনের শেষ নেই। ফাউ কাজে কত মাইর খাব পুলিশির হাতে! তাই ওই সব ছাড়ান কাড়ান দিচি।
গল্পডা মনে পইড়ে গ্যালো, ধম্ম নিয়ে বহুত মানসির মুকি বহুত কতা শুনি। খাইন বাইদলি তকন বুজা যায় ধম্মডা কনে।
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft