দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: হাসপাতালে স্বেচ্ছাসেবক লেবাসধারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি প্রতিমন্ত্রীর       যমেক হাসপাতালে আইসিইউ উদ্বোধন        আ’লীগ নেতা কাজী বর্ণ মানবতা ভ্যানের ২১ দিনে ৮ হাজার প্যাকেট খাবার বিতরণ       এমপি নাবিলের পক্ষে ঈদ উপহার ও ইফতারি বিতরণ       শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি       গঠণতন্ত্র সংশোধনের সিদ্ধান্ত, নির্বাচন ২৬ জুন       দেড় হাজার পিস ইয়াবাসহ ৪ কারবারী আটক        সংবাদপত্র হকার্স ইউনিয়নের উৎসব ভাতা প্রদান সোমবার       ভারত থেকে বিপজ্জনক বার্তা পাওয়া যাচ্ছে : কাদের       খাদ্যশস্য সংগ্রহে ধানকে প্রাধান্য দিতে হবে : খাদ্যমন্ত্রী      
মুক্তেশ্বরী পাড়ের গাছ কাটা নিয়ে দু’পক্ষে দ্বন্দ্ব
দেওয়ান মোর্শেদ আলম
Published : Tuesday, 4 May, 2021 at 9:28 PM, Count : 150
মুক্তেশ্বরী পাড়ের গাছ কাটা নিয়ে দু’পক্ষে দ্বন্দ্বযশোরের কৃষ্ণবাটি বি পতেঙ্গালি এলাকার মুক্তেশ্বরী নদী পাড়ের গাছ কাটা নিয়ে ভূমি বিভাগ ও স্থানীয় একটি মহলের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। স্থানীয় ওই পক্ষের দাবি গাছ তাদের জায়গায় এবং তাদের লাগানো। অপরদিকে ভূমি বিভাগের দাবি গাছগুলো সরকারি জায়গায় পড়েছে। তাদের নিষেধ সত্বেও মাপজোক ছাড়াই গাছ সাবাড় করছে ওই মহল। ইতিমধ্যে ২০ টি গাছ কেটেছে তারা।
যশোরের কৃষ্ণবাটি বি পতেঙ্গালি এলাকায় মেদিয়া মৌজায় মুক্তেশ^রী নদী পাড়ের সরকারি অংশের গাছ স্থানীয় একটি পক্ষ কাটছে বলে অভিযোগে ওঠে। ২ মে স্থানীয়দের অভিযোগে সহকারী ভূমি কমিশনারের নির্দেশনায় সহকারি ভূমি কর্মকর্তা আজিম উদ্দিন ও সার্ভেয়ার সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান। এই টিম খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারেন কৃষ্ণবাটি গ্রামের আবুল সরদারের ছেলে টুনু সরদার ও রফিক সরদারের নির্দেশনায় গাছ কাটা হয়েছে ৫টি। আরো একটি বড় গাছ কাটা চলছে। শ্রমিকদের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে সহকারি ভূমি কর্মকর্তা টুনু সরদার পক্ষ ও তার লোকজনকে পরিষ্কার জানিয়ে আসেন জায়গা সরকারি নদী অংশে। কাজেই মাপজোক ছাড়া গাছ কাটা  যাবে না। আগামিতে উভয় পক্ষের সার্ভেয়ার দিয়ে মেপে পরবর্তী ব্যবস্থা নিতে হবে। কিন্তু ভূমি বিভাগের কথায় কর্ণপাত না করে আরো একটি গাছ কাটা হয়েছে। এমনকি স্থানীয় যারা ভূমি বিভাগকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেছেন তাদের শাসাচ্ছে ওই মহল। এমনটি তাদের বিরুদ্ধে থানায় বা আদালতে বানোয়াট তথ্য দিয়ে মামলা করবেন বলে হুংকার ছেড়েছে ওই পক্ষ।
স্থানীয়দের মধ্যে রিপন হোসেন ও মুকুল হোসেনসহ অনেকেই জানিয়েছেন, সরকারি জায়গার গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে এটা ফাঁস করে দেয়ায় তাদের নিয়ে এ ষড়যন্ত্র হচ্ছে। এর আগেও অনেক গাছ কাটা হয়েছে। আরো কয়েকটি বড় গাছ কাটার টার্গেট রয়েছে টুনু সরদারের। সরকারি জায়গা আবার টুনু সরদার প্রচার করছে তার লাগানো। তার লাগানো হলেও তা সরকারি বিধি মোতাবেক কাটতে হবে। এব্যাপারে  ভূমি বিভাগকে সংশ্লিষ্ট থাকতে হবে।
এব্যাপারে কথা হয় যশোর পৌর ভূমি অফিসের সহকারি ভূমি কর্মকর্তা আজিম উদ্দিনের সাথে। তিনি জানিয়েছেন, সরকারি সার্ভেয়ারের মাপ অনুযায়ী গাছগুলো সরকারি জায়গায় পড়েছে। এরপরও টুনু সরদার ও তার লোকজন গাছগুলো কাটছে। যাহোক সরেজমিনে গিয়ে তারা বাধা দিয়ে এসেছেন। তিনি বলে এসেছেন, মাপজোক করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু এখন শুনছি তাদের কথা মানা হচ্ছে না, গাছ টাকা হচ্ছে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft