ক্রীড়া সংবাদ
শিরোনাম: বিশ্বকাপের স্বপ্ন বেঁচে রইলো বাংলাদেশের       যশোরাঞ্চলে কঠোর নজরদারি       প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপককে হাজির হবার নোটিশ       যশোরে নবাগত ৩৭ জন আইনজীবীকে সংবর্ধনা       চাকরির নামে সাড়ে ১৬ লাখ টাকা প্রতারণায় নারীর বিরুদ্ধে মামলা       পিচের রাস্তায় ইটের সলিং       কেশবপুরে মানববন্ধন       পরিত্যক্ত ভবনে চলছে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম, দুর্ঘটনার আশংকা        কারেন্ট পোকার আক্রমণে আমন ধান নষ্ট, দিশেহারা কৃষক       তালা ভূমি অফিসের কর্মচারীরের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ       
একটি মাত্র টুর্নামেন্ট দিয়েই সতেরটি ক্লাবের অ্যাফিলিয়েশন
বঞ্চিতদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার
ক্রীড়া সংবাদ
Published : Monday, 27 September, 2021 at 7:18 PM, Update: 27.09.2021 7:23:09 PM, Count : 81
বঞ্চিতদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চারসর্বশেষ অনুষ্ঠিত খো খো টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া অধিকাংশ ক্লাবগুলোকে না জানিয়ে নিজেদের পছন্দনীয় ক্লাবগুলোকে অ্যাফিলিয়েশন দিয়েছে যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা। এক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছে গোপনীয়তা ও মিথ্যাচার,- এমনটিই দাবি অনেক ক্রীড়া সংগঠকদের।
এর ফলে বঞ্চিত ক্লাব কর্মকর্তাদের মাঝে বিরাজ করছে ক্ষোভ। তারা এ বিষয়ে আইনগত দিক নিয়ে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করেছেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্তা ব্যক্তিরা।
যশোরে খো খো খেলার প্রচলন খুব বেশি নেই। ২০০৫ সালে শামস্-উল হুদা স্টেডিয়ামে প্রথম অনুষ্ঠিত হয়েছিল দ্বিতীয় জাতীয় মহিলা খো খো চ্যাম্পিয়নশিপ। এরপর ২০২০ সালের ডিসেম্বরে জেলা ক্রীড়া সংস্থার খো খো পরিষদ সম্পূর্ন নিজ উদ্যোগে একটি টুর্নামেন্টের আয়োজন করে। যার সাথে জেলা ক্রীড়া সংস্থার কোন সম্পর্ক ছিল না।
যার ফলে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সেই সময়ে অ্যাফিলিয়েশন ভুক্ত ক্লাবগুলোর মধ্যে দুই একটি ক্লাব ছাড়া অন্যরা খেলতে অপরগতা প্রকাশ করে। অ্যাফিলিয়েশন ভুক্ত নয় এমন অনেক ক্লাব তখন স্বপ্রোনোদিত ভাবে সেই সময় খো খো টুর্নামেন্টে অংশ নেয়।
বালক গ্রুপে অংশ নেওয়া দলগুলো ছিলো রিল্যায়েন্স স্পোর্টিং ক্লাব, কারবালা যুব সংঘ, আর কে স্পোর্টিং ক্লাব, যশোর ট্রায়থলন ক্লাব, কামাল সিরাজ স্মৃতি সংঘ, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ক্রীড়া চক্র, সৌখিন ক্রীড়া সংসদ, ভাষা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংসদ, ডেন্টাল কেয়ার, সবুজ সংঘ ও কসবা যুব সংঘ।
বালিকা গ্রুপে অংশ নেওয়া দল গুলো ছিল বাংলাদেশ লাইফ সেভিং সোসাইটি, নাইনটি স্পোর্টিং ক্লাব, যশোর অ্যাকোয়াটিক অ্যাসোশিয়েশন, রিকার্ভ আরচ্যারি ক্লাব, শেখ কামাল অ্যাথলেটিকস একাডেমি ও ওয়ান্ডার্স খো খো ক্লাব।
অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টে যে সব খেলোয়াড়রা খেলায় অংশ নিয়েছিলেন তারা কেউ খো খো খেলার প্রতিষ্ঠিত খেলোয়াড় ছিলেন না। যশোরে কখনই অনুষ্ঠিত হয়নি খো খো লিগ। সে কারণে নেই খো খো’র প্রতিষ্ঠিত কোন খেলোয়াড়। ফুটবল, ভলিবল, বাস্কেটবল, বক্সিং, অ্যাথলেটিকস, হকি, কাবডিসহ বিভিন্ন ইভেন্টের খেলোয়াড়রাই খেলেছেন।  
সম্প্রতি কোন গণমাধ্যমে কিংবা প্রকাশ্যে কোন ঘোষণা ছাড়াই অত্যান্ত গোপনীয়তা বজায় রেখে নিজেদের ঘরাণা ও পছন্দমাফিক ক্লাব কারবালা যুব সংঘ, সৌখিন ক্রীড়া সংসদ, ডেন্টাল কেয়ার, সবুজ সংঘ, কসবা যুব সংঘ, নাইনটি স্পোর্টিং ক্লাব, সালেহা স্পোর্টিং ক্লাব ও শেখ কামাল অ্যাথলেটিকস একাডেমিকে অ্যাফিলিয়েশনের পাশাপাশি যারা কখনই খো খো খেলার ধারে কাছেই ছিল না এমন আরো নয়টি ক্লাবকে অ্যাফিলিয়েশন দিয়েছে। এসব ক্লাব হচ্ছে উপশহর ব্রাদার্স ইউনিয়ন, স্বপ্ন সাথী বন্দর স্পোর্টিং ক্লাব, রূপকথা স্পোর্টিং ক্লাব, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংঘ, শহীদ স্মৃতি স্মরণ ক্রীড়া চক্র, সপ্তডিঙ্গা স্পোর্টিং ক্লাব, বাঘারপাড়া স্পোর্টিং ক্লাব, নীল বিদ্রোহ দিগম্বর বিশ্বাস স্মৃতি সংসদ ও ফ্রেন্ডস ক্লাব।
টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া যে সব ক্লাবগুলোকে অন্ধকারে রেখে দিয়ে অ্যাফিলিয়েশন থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে সেই ক্লাবগুলো হচ্ছে রিল্যায়েন্স স্পোর্টিং ক্লাব, আর কে স্পোর্র্টিং ক্লাব, যশোর ট্রায়থলন ক্লাব, কামাল স্মৃতি সংঘ, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ক্রীড়া চক্র, ভাষা শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংসদ, বাংলাদেশ লাইফ সেভিং সোসাইটি, যশোর অ্যাকোয়েটিভ অ্যাসোসিয়েশন, রিকার্ভ আরচ্যারি ক্লাব ও ওয়ান্ডার্স খো খো ক্লাব।
যশোর অ্যাকোয়েটিভ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মমতাজ খাতুন জানান, সর্বশেষ খো খো টুর্নামেন্টে অংশ নিলেও কেন অ্যাফিলিয়েশনের ক্ষেত্রে আমাদের জানানো হয়নি তা বোধগম্য নয়।
রিকার্ভ আরচ্যারি ক্লাবের সভাপতি বাহাউদ্দিন আহমেদ জানান, যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার ভিআইপি গ্যালারিতে টিনের আচ্ছাদনের জন্য এক লক্ষ টাকা দিয়েছিলাম। ক্রীড়াঙ্গনকে ভালবাসি বলেই তো এটি করেছি। আমার ক্লাবকে অন্ধকারে রেখে যারা খো খো খেলায় কখনই অংশ নেয়নি তাদের অ্যাফিলিয়েশন দেওয়া হল, অথচ আমাদের ক্লাবকে বঞ্চিত করা করা হয়েছে অ্যাফিলিয়েশন থেকে। এটা ক্রীড়াঙ্গনের অমঙ্গল ছাড়া আর কিছুই নয়।
বাংলাদেশ লাইফ সেভিং সোসাইটি ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ ইব্রাহিম জানান, খো খো খেলা জাগ্রত করার ক্ষেত্রে আমার ক্লাবের বড় একটা ভূমিকা রয়েছে। সর্বশেষ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের জন্য আমার ক্লাবের খেলোয়াড়রা প্রতিযোগিতার বেশ আগেভাগেই প্রতিদিন অনুশীলন করেছে। প্রতিযোগিতায় আমরা মোটামুটি ভাল পারফরম্যান্স প্রদর্শন করেছি। আমাদের কোন কিছু না জানিয়ে অ্যাফিলিয়েশন থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে, এটা ভাল কোন দিক নয়। তারা গোপনীয়তা ও মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়ে রাতারাতি নিজেদের ঘরের লোক দিয়ে ক্লাব তৈরি করে অ্যাফিলিয়েশন দিয়েছে। এটা ক্রীড়াঙ্গনের জন্য অশনি সংকেত।
রিল্যায়েন্স স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তা জানান, ভোটের রাজনীতিকে প্রাধান্য দিতেই অনিয়মতান্ত্রিকতার পরিচয় দিয়েছে জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্তা ব্যক্তিরা। একটু কিছু হলেই তারা প্রেস রিলিজ দিয়ে গণমাধ্যমকে অবহিত করে। যার মাধ্যমে সবাই বিষয়টি জানতে পারে। এ ব্যাপারে তো কোন কিছুই তারা করেনি। কেন এ গোপনীয়তা তা সবাই বোঝে। আমরা প্রয়োজনে আইনগতভাবে বিষয়টি মোকাবেলা করবো।
জেলা ক্রীড়া সংস্থার অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক এম এ আকসাদ সিদ্দিকী শৈবাল জানান, গত ১০ সেপ্টেম্বর কার্যনির্বাহী পরিষদের সভায় বিষয়টি উত্থাপন করা হয়। পরবর্তীতে একটি কমিটি গঠন করা হয়। গঠিত সেই কমিটির সুপারিশের আলোকেই তাদের অ্যাফিলিয়েশন প্রদান করা হয়েছে।
জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব কবির বলেন, গঠনতন্ত্রের সকল ধারা অনুসরণ করে নিয়মতান্ত্রিকভাবেই কার্যনির্বাহী পরিষদের সভায় বসে ক্লাবগুলোকে অ্যাফিলিয়েশন দেওয়া হয়েছে। এখানে অনিয়মের কোন প্রশ্ন ওঠার কোন সুযোগ নেই।    
 
 




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft