দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: বিশ্বকাপের স্বপ্ন বেঁচে রইলো বাংলাদেশের       যশোরাঞ্চলে কঠোর নজরদারি       প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপককে হাজির হবার নোটিশ       যশোরে নবাগত ৩৭ জন আইনজীবীকে সংবর্ধনা       চাকরির নামে সাড়ে ১৬ লাখ টাকা প্রতারণায় নারীর বিরুদ্ধে মামলা       পিচের রাস্তায় ইটের সলিং       কেশবপুরে মানববন্ধন       পরিত্যক্ত ভবনে চলছে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম, দুর্ঘটনার আশংকা        কারেন্ট পোকার আক্রমণে আমন ধান নষ্ট, দিশেহারা কৃষক       তালা ভূমি অফিসের কর্মচারীরের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ       
যশোরে পাঁচ চেয়ারম্যানের সম্পদ কত? (ভিডিও)
কাগজ সংবাদ
Published : Monday, 27 September, 2021 at 9:33 PM, Update: 27.09.2021 10:15:30 PM, Count : 1019
যশোরে পাঁচ চেয়ারম্যানের সম্পদ কত? (ভিডিও)জনপ্রতিনিধি যারা হন তাদের প্রতি স্বাভাবিকভাবেই আম জনতার আগ্রহ থাকে বেশি। মানুষের আস্থা আর ভোট জিতে তিনি কী করছেন কী বলছেন সে বিষয়ে যেমন আগ্রহ তেমনি সবাই উৎসুক থাকেন তিনি কী ছিলেন আর কী হলেন। এটি পরিমাপের প্রধান বিষয় জনপ্রতিনিধিদের সম্পদ বিবরণী। নির্বাচনের আগে হলফনামায় সম্পদের বিবরণ দিতে হলেও তা সাধারণ মানুষ খুব কমই জানতে পারেন। কী ছিলো আর নির্বাচনে পাশের পর সে সম্পদ কোথা থেকে কোথায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে এমন বস্তুনিষ্ঠ তথ্য জানতে পারলে অনেকেই স্বস্তি পান। সোমবার এমনই এক ব্যতিক্রম আয়োজন হয়েছে যশোরে। যেখানে পাঁচজন জনপ্রতিনিধি তাদের সম্পদ বিবরণী জনসম্মুখে তুলে ধরেছেন।
গত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় দেয়া সম্পদের বিবরণীতে যশোর সদরের নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যার মোদাচ্ছের আলী উল্লেখ করেছিলেন কৃষিখাতে তার বাৎসরিক আয় ছয় লাখ টাকা। ব্যবসায় আসে পাঁচ লাখ ৬০ হাজার টাকা। চাকরিজীবী স্ত্রীর আয় তিন লাখ ৩৬ হাজার এবং ব্যবসায়ী ছেলের তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা। স্থায়ী সম্পত্তির মধ্যে ৩৩ শতক পৈত্রিক বাস্তুভিটা, দুই একর কৃষি জমি এবং পৈত্রিকসূত্রে পাওয়া স্ত্রীর দশ শতক জমি আছে। ব্যাংক ঋণ চার লাখ টাকা। এরমধ্যে কৃষি ব্যাংকে এক লাখ এবং সোনালী ব্যাংকে তিন লাখ টাকা ঋণ আছে।
মোদাচ্ছের আলী জানান, যে বিবরণী তিনি নির্বাচনী হলফনামায় উল্লেখ করেছিলেন পাঁচ বছর দায়িত্ব পালনকালে তা বাড়েনি। বরং কিছুটা কমেছে।
বন্দবিলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সবদুল হোসেন খান জানান, তার বাৎসরিক আয় সাত লাখ টাকা। এরমধ্যে কৃষিখাত থেকে তিন লাখ এবং ব্যবসা থেকে চার লাখ টাকা আয় হয়। পরিবারের বাৎসরিক আয় ১৫ লাখ টাকা। নিজের জমি আছে ১৫ একর। স্ত্রীর নামে সোনার গহনা আছে সাড়ে সাতভরি। তিনি ব্যবসা সংক্রান্ত দেনা আছেন ছয় লাখ টাকা।
প্রেমবাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মফিজ উদ্দিন বলেন, ব্যবসায় তার বাৎসরিক আয় ছয় লাখ টাকা। স্ত্রীর চাকরি থেকে তিন লাখ ২১ হাজার চারশ’ আট টাকা এবং পিতার কৃষিখাত থেকে আয় চার লাখ টাকা। নিজের কৃষি জমি পাঁচ শতাংশ এবং যৌথ মালিকানার অংশী হিসেবে আরও দুই দশমিক ১৮ শতাংশ জমি আছে। অংশী হিসেবে বাড়ির সম্পত্তি ৩০ লাখ টাকার। রাজনৈতিক কারণে একটি মামলা হলেও সেটা নিষ্পত্তি হয়েছে।
কেশবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আলাউদ্দিন জানান, চাকরি সূত্রে তার বাৎসরিক আয় তিন লাখ ৮০ হাজার চারশ’ টাকা। নির্ভরশীলদের কৃষিখাত থেকে আয় দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং চাকরিজীবী স্ত্রীর আয় তিন লাখ ৬০ হাজার টাকা। নিজের নামে তিন বিঘা, স্ত্রীর নামে নয় শতক, নির্ভরশীলদের আট বিঘা এবং চার ভাইয়ের ২৫ শতক জমি আছে। তিনি নয় লাখ টাকা দেনা আছেন। কোনো লেখাপি নেই।
শার্শার বেনাপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বজলুর রহমান জানান, তার বাৎসরিক আয় ১৮ লাখ ২০ হাজার টাকা। এর মধ্যে কৃষিখাত থেকে এক লাখ ২০ হাজার, বাড়িভাড়ায় ৯৬ হাজার, ব্যবসায় সাত লাখ ২০ হাজার, সঞ্চয়পত্র থেকে আট লাখ ৩০ হাজার এবং অন্যান্য থেকে ৫৪ হাজার টাকা আয় হয়। নিজের নামে ১৩ বিঘা, স্ত্রীর এক বিঘা এবং অংশী হিসেবে দশমিক ২১ শতক জমির মালিক তিনি।
মানবাধিকার সংগঠন রাইটস যশোর ‘স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের আর্থিক সম্পদ বিবরণী প্রকাশ জোরদারকরণ’ প্রকল্পের অধীনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ডাক্তার ইয়াকুব আলী মোল্লা। দি এশিয়া ফাউন্ডেশন প্রকল্পে সহায়তা করছে। এর আওতায় যশোর জেলার আট উপজেলার মোট ১০টি ইউনিয়নে প্রকল্পটি পাইলটিং হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে।
সংস্থার নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক বলেন, চেয়ারম্যানরা স্বপ্রণোদিতভাবেই সম্পদের বিবরণী দিচ্ছেন।
অতিথিরা বলেন, জনপ্রতিনিধিরা এভাবে সম্পদের বিবরণী প্রকাশ করলে তাদের ওপর সাধারণ মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস স্থাপিত হবে। সর্বত্রই জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে।  
অনুষ্ঠানের উদ্বোধক স্থানীয় সরকার বিভাগের সহকারী পরিচালক হুসাইন শওকত বলেন, সম্পদের বিবরণী প্রকাশ জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সাধারণ মানুষের সন্দেহ, সংশয় দূর করবে। এর মাধ্যমে দুর্নীতিও অনেকাংশে কমে আসবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, দুদক যশোরের সহকারী পরিচালক মাহফুজ ইকবাল এবং প্রেসক্লাব যশোরের সম্পাদক এস এম তৌহিদুর রহমান। শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন দি এশিয়া ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম অফিসার হাচিনুর রেজা, রাইটস যশোরের প্রদীপ দত্ত ও এসএম আজহারুল ইসলাম।






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft