আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
শিরোনাম: চুড়ামনকাটিতে আ’লীগের প্রতিপক্ষ থাকতে পারেন স্বতন্ত্র প্রার্থী       উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে ভালোর আশায় শেষ হলো টাউনহল মাঠের গণসংগীত উৎসব       জেলা পুলিশ ও সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে প্রতারণা       খালেদা জিয়াকে বিদেশে না পাঠালে পালানোর পথ খুঁজে পাবেন না       কেশবপুরে শিশু রত্না হত্যা মামলায় দাদার বিরুদ্ধে চার্জশিট       ঘের থেকে কৃষকের মরদেহ উদ্ধার       যশোরের ৩৫ ইউনিয়নে ভোট রোববার       স্ত্রীকে হত্যার দায়ে আটক       ফরিদপুরে গ্রাম্য ডাক্তারকে মারপিট        জয়তী সোসাইটির মানববন্ধন       
খালী কলসি বাজে বেশী ভরা কলসী বাজে না
Published : Sunday, 17 October, 2021 at 9:58 PM, Count : 207
এক ছ্যামড়া খুব হন্তদন্ত হইয়ে তেমাতায় আইসে ইজিবাইকির জন্যি দাড়ায় আছে। তাই দেইকে একজন কচ্চে, কনে যাবি এত ত্বরা দিয়ে। ছ্যামড়াডা কচ্চে আর কইয়ে না। পেত্তেকদিন ঘোমেত্তে উটতি দেরী হইয়ে যায়। যে কারনে কাজে কম্মে যাতিও দেরি হইয়ে যাচ্চে। সব জাগায় দেরি করার জন্যি ঝাড়ি খাতি হয়। তাই যাচ্চি যুইতসই এট্টা ঘড়ি কিনতি। যিডাতে এলাম দিলি জোরে জোরে বাজবে। তাই শুইনে বিটাডা কচ্চে, ঘড়ি কিনতি যাচ্চিস বাজেট কিরাম। ছ্যামড়াডা কচ্চে মাসের শেষ, বাপের হাত টানাটানি তাই দামে সস্তা বাড়ায় আস্তা সিরাম এট্টা কিনবানে। বিটাডা তাই শুইনে কচ্চে, চালি এর চাইতেও কম দামে তোর কাজ মিটোয় নিতি পারিস। তাই শুইনে ছ্যামড়াডা কচ্চে কিরাম কইরে? বুদ্দিডা দেওদিনি। যদি দুডো পয়সা ডানি বায় করা যায় তালিতো বাপের চোক ছাপায়ে মচ্চি মুলামে খচ্চা কত্তি পারবানে। বিটাডা কলে, মাইটে হাড়ি কুড়ির দুকানে যা। স্যানে যাইয়ে ভালো দেইকে এট্টা কলসি কিনে নিয়ে বাড়ি যা। তাতেই কাজ হইয়ে যাবে নে।  ছ্যামড়াডা তাই শুইনে থ’ মাইরে যাইয়ে কলে, ঘড়ির কাজ কলসিতি মেটপে কি কইরে? বিটাডা কলে ক্যান শুনিসনি খালী কলসি বাজে বেশী। খালি কলসীডা মাতার গুড়ায় রাইকে ঘুমোবি তাতেই কিল্লা ফতে।
এক সুমায় মুরুব্বীগের মুকি হররোজ শুনতাম খালী কলসি বাজে বেশী, ভরা কলসী বাজে না। মাজেমদ্দি এই নিয়ে ভাবি। বিষয়ডা নিয়ে এক মুরুব্বীর সাতে কতা উসাইলাম। তিনি কলেন, যশোর টাউনি তো যাইস। এক সুমায় পেরেস পট্টিতি যাবি। দেকপি যে মেশিনি যত জলদি ছাপা হয় তাতে শব্দ নেই কলিই চলে। আর সিডাই ছাপা হয় আস্তের আস্তের তার খটখটানিতি কান ঝালাপালা হইয়ে যাবে। তার মুকির দিকি হা কইরে তাগায় থাকতি দেইকে কলে, চা খাতি আইছিস নে। এট্টু র’ কর। দেকপি যার কাজের ধার বেশি সে আইসে তফাতে বইসে ঝটপট চা খাইয়ে চইলে যাবেনে। আর যার কাজের গুন নেই তার চুপার কচনে হ্যানে টিকায় দুস্কর।
মুরুব্বীর কতা শুইনে ডাবি মাইরে বইসে থাকলাম। হাতে নাতে পোমান নিয়ে জ্ঞানের ডিব্বা ভারী করার নিয়তে।
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft