দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: চুড়ামনকাটিতে আ’লীগের প্রতিপক্ষ থাকতে পারেন স্বতন্ত্র প্রার্থী       উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে ভালোর আশায় শেষ হলো টাউনহল মাঠের গণসংগীত উৎসব       জেলা পুলিশ ও সেনাবাহিনীতে চাকরির নামে প্রতারণা       খালেদা জিয়াকে বিদেশে না পাঠালে পালানোর পথ খুঁজে পাবেন না       কেশবপুরে শিশু রত্না হত্যা মামলায় দাদার বিরুদ্ধে চার্জশিট       ঘের থেকে কৃষকের মরদেহ উদ্ধার       যশোরের ৩৫ ইউনিয়নে ভোট রোববার       স্ত্রীকে হত্যার দায়ে আটক       ফরিদপুরে গ্রাম্য ডাক্তারকে মারপিট        জয়তী সোসাইটির মানববন্ধন       
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অ্যাকশানে পুলিশ
যশোরাঞ্চলে কঠোর নজরদারি
দেওয়ান মোর্শেদ আলম
Published : Tuesday, 19 October, 2021 at 9:58 PM, Count : 1135
যশোরাঞ্চলে কঠোর নজরদারিসম্প্রতি কুমিল্লার অনাকাঙ্খিত ঘটনা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে দেশব্যাপি কঠোর অ্যাকশানে নেমেছে পুলিশ। যশোরাঞ্চলের বিভিন্ন স্পট কঠোর নজরদারিতে রেখেছে যশোর জেলা পুলিশ।
বড় বড় স্থাপনা ও ব্যস্ত মার্কেটসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান এলাকায় পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে। কোনো প্রকার উস্কানি, গুজব ও শান্তি ভঙ্গের চেষ্টা করা হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও পুলিশের পক্ষে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।
পুলিশ হেড কোয়ার্টার্স থেকেও এ ব্যাপারে কঠোরতা প্রদর্শনের নির্দেশনা এসেছে। কোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনা বরদাস্ত করা হবে না বলেও জানানো হয়েছে পুলিশের পক্ষে।
যশোর জেলা পুলিশ ও থানা সূত্র থেকে তথ্য মিলেছে, সম্প্রতি  সরকার ও আইনশৃংখলা বাহিনীকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলার অপচেষ্টা হিসেবে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার চেষ্টা করা হয় কুমিল্লায়। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার মত কর্মকান্ড চালিয়ে পরিবেশ বিনষ্ট করার চেষ্টা চলে। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি আরো বিনষ্ট করার চেষ্টা করা হয়। ওই সব ঘটনায় জড়িত ও তাদের মদদ দাতা ও উস্কানিদাতাদের খোঁজে মাঠে নেমেছে পুলিশ। ইতিমধ্যে ওই চক্রের ৪শ’৫০ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ৭১ টি মামলা করা হয়েছে।
এদিকে ওই অনাকাঙ্খিত ঘটনায় সম্পৃক্তদের কোনো রেশ বা প্রভাব যশোরাঞ্চলে না পড়ে সে ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে জেলা পুলিশ।
# অযাচাইকৃত সংবাদ বিশ্বাস না করতে অনুরোধ
# মদদদাতা ও উস্কানিদাতাদের খোঁজা হচ্ছে
# ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রিক গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি
সূত্র জানিয়েছে, পুলিশ সুপারের পক্ষে জেলার সকল থানা ও পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটকে এলার্ট করা হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। যশোরাঞ্চলে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো কুমিল্লাসহ বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া বিচ্ছিন্ন ঘটনার প্রতিবাদ করছে, মানববন্ধন  করছে। একইসাথে ওই সম্প্রীতি বিনষ্টকারী চক্র এ অঞ্চলে কাজ করছে কিনা বা মাঠে রয়েছে কিনা সে ব্যাপারে খোঁজ খবর নিতেও গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। শহরের দড়াটানা, নিউমার্কেট, মণিহার এলাকা, চাঁচড়া চেকপোস্ট, ধর্মতলা, আরবপুর মোড়, পালবাড়ী মোড়, মুজিব সড়ক, গাড়ীখানা রোড, এম.কে রোড, আর এন রোড, রেলরোড, জেনারেল হাসপাতাল রোড, চিত্রা মোড়, ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট, জর্জ কোর্ট মোড়, জেলখানা  মোড়, কাঠেরপুল-বড়বাজার এলাকাসহ শহরের অধিকাংশ এলাকা ও শহরের প্রবেশদ্বারগুলোতে নজরদারি রাখতে দেখা গেছে পুলিশকে। এছাড়া বড় বড় স্থাপনা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রিক গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে।
এদিকে বাংলাদেশ পুলিশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি তুলে ধরে যশোর জেলা পুলিশ জানিয়েছে, দেশে বিদ্যমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে কতিপয় ব্যক্তি ও গোষ্ঠি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা করছে। অনেক ক্ষেত্রে চক্রান্তকারীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পোস্ট কিংবা বিভিন্ন তথ্য বিকৃত বা অপব্যাখ্যা করে তা বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে সংঘাতমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের এআইজি (মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস) এর পাঠানো ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ পুলিশের সংশ্লিষ্ট ইউনিটসমূহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীদের মনিটর করছে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত রয়েছে।
ওই বিজ্ঞপ্তিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ যে কোনো মাধ্যমে গুজব বা বিভ্রান্তি না ছড়াতে এবং অযাচাইকৃত সংবাদ বিশ্বাস না করতে সকলের প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। একই সাথে যে কোনো অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনগণের সার্বিক সহযোগিতাও প্রত্যাশা করা হয়েছে। সাম্প্রতিক অপ্রীতিকর ঘটনায় ৭১টি মামলা দেয়াসহ আটক করা হয়েছে মোট ৪শ’৫০ জনকে। দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপ কেন্দ্রিক অপ্রীতিকর ঘটনায় এই মামলা হয়েছে। আর আটককৃতরা ঘটনায় জড়িত বলে সন্দেহ করছে পুলিশ।
বাংলাদেশ পুলিশের এআইজি (মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) কামরুজ্জামান স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ওই সব অপ্রীতিকর ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে আরও কয়েকটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে পুলিশের আটক অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে, যশোর কোতোয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, যশোরে যাতে কোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনা না ঘটে সে ব্যাপারে পুলিশ সতর্কাবস্থানে রয়েছে। পুলিশ টহল বাড়ানো হয়েছে। পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সের নির্দেশনা অনুযায়ী সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়িয়ে নজরদারিতে রাখা হয়েছে অনেক কিছুই।  সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করা কিংবা কোনো গুজব ছড়ানো কোনো ঘটনা বরদাস্ত করা হবে না। কঠোরভাবে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে কোনো তথ্য থাকলে তাকে জানানোরও আহবান জানান তিনি।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft