আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
শিরোনাম: স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না যশোরের বিভিন্ন ব্যাংকের গ্রাহকরা       ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নজর দিতে হবে নাস্তায়        যশোরের দু’ নির্বাচন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের দাবিতে সাংবাদিকদের স্মারকলিপি প্রদান       সাতটি বোমাসহ একজন আটক       রাজারহাটে এমপি নাবিলের পক্ষে কম্বল বিতরণ       মাকে চেতনানাশক খাইয়ে সোনা ও টাকা চুরি        বান্ধবীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় কিশোরকে ছুরিকাঘাত        চট্টগ্রামকে হারাল খুলনা       প্রথম জয় সূর্য সংঘের       বিএনপি-জামায়াত দেশের উন্নয়নে ভীত : তথ্যমন্ত্রী      
সুমাজ সিবার গাবা লাইগেচে!
Published : Saturday, 27 November, 2021 at 8:32 PM, Count : 125
এক সুমায় সারা গিরাম তলাশ কইরে এট্টুা সুমাজ সেবক পাওয়া যাইতো। যারা এই সব কইত্তো তাইগের উল্টো বহুত লোক টিটকেরী কইরে কইতো কাজ নেই বাড়ির খাইয়ে বনির মোইষ তাবড়ায় বেড়াচ্চে। তেবে আইশো পাইশো লোকে যে যায় কোক সুমাজে সেই সব সেবকগের ম্যালা কদর ছিলো। তারা সুমাজ সিবা কইত্তো মনের তাগিদি। কোনটোয় কিচু পাওয়ার আশায় না।
আগে ইরাম বহুত সেবক পাওয়া যাইতো যারা মানসির সিবা কত্তি যাইয়ে সুংসার ধম্মই কত্তি পারিনি, চিরকুমার থাইকে গেচে। কিম্বা পরের সিবা কত্তি যাইয়ে উল্টে বাপের ভিটেও বেচতি হইয়েচে। সেই সব কতা উসালি একনকের ছিলেপিলে ভাববে যারা এই সব কইত্তো তাইগের মতো বুকাকান্টা আর নেই।
একন জামেনা পাইল্টে গেচে। সুমাজ সিবা আর নিশা নেই একন কারো কারো পিশা। পিশাডা কেউ পোকাশ্য দিবালোকে করে কেউ করে ভুকসি মাইরে, তলশুড়া কইরে। তেবে কিডা কত বড় সুমাজসেবক সিডা জানতি হলি এট্টা গোন আছে। সিডা হচ্চে ভোট আসা। ভোট আসলিই সুমাজ সেবকগের গাবা লাগে। পুকোর বা গাঙে গাবা লাগলি যিরাম খইলসে উজোয় চ্যাং উজোয় সিরাম ব্যাঙও উজোয়। ভোটের গাবা লাগলি সুমাজ সেবকগের মাতায় মাতায় ঠুল খাওয়ার জুগাড়। ইরাম জাগাও দেকিচি নিশাপানি কইরে পাটায় থাকে তারাও পুস্টার ঝুলোয় দেচে এলেকার বিশিষ্ট সুমাজ সেবক। যারা হাস্তানি মুস্তানি মাটি কাটা, টিরাক্টারের কাটি গুইনে টাকা নিয়ে, জুমাজুমি কিনা বিচায় হিস্যে, নালিশ শালিস দকল হ্যানো কোন কাজ নেই কত্তি বিরাম আচে তারাও ভোট আসলি সুমাজসেবক। কি সব্বেরাশে কতা কওদিনি বাপু! পোস্টারের তলায় লিকে দেচ্চে সুমাজসেবক অমুক ভাইরে তমুক পদে দেকতি চায়, পোচারে এলেকাবাসী।
আমি একজনরে ডাইকে কলাম, তুই যে সুমাজ সেবক সাইজে ভোট কত্তি উললি ফ্যারাডা কি! সে কলে চাচা আমি তো কত্তি চাইনি, লোকে শুনতেচে না তাই বাইদ্য হইয়ে থিয়ে হলাম। আমি কলাম যারা তোরে ভোটে দাড় করায়েচে তাইগের দুই এট্টার নাম ক’দিনি। ইবার আর তার মুকি রা নেই। কলাম নাম না কতি পারিস এট্টা দুডো সুমাজসেবার কতা ক’দিনি। আমার দিকি খাররা হইয়ে তাগায়ে দেলে হাটা।
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft