দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না যশোরের বিভিন্ন ব্যাংকের গ্রাহকরা       ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নজর দিতে হবে নাস্তায়        যশোরের দু’ নির্বাচন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের দাবিতে সাংবাদিকদের স্মারকলিপি প্রদান       সাতটি বোমাসহ একজন আটক       রাজারহাটে এমপি নাবিলের পক্ষে কম্বল বিতরণ       মাকে চেতনানাশক খাইয়ে সোনা ও টাকা চুরি        বান্ধবীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় কিশোরকে ছুরিকাঘাত        চট্টগ্রামকে হারাল খুলনা       প্রথম জয় সূর্য সংঘের       বিএনপি-জামায়াত দেশের উন্নয়নে ভীত : তথ্যমন্ত্রী      
ভেঙে পড়েছে রাজারহাট-কচুয়া ব্রিজের এক অংশ
যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতে যাচ্ছে ৪৪ গ্রামের মানুষের
শিমুল ভূইয়া
Published : Friday, 14 January, 2022 at 12:04 AM, Count : 588
যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতে যাচ্ছে ৪৪ গ্রামের মানুষেরমূল পিলারে ফাঁটলের পর এবার যশোরের রাজারহাট-কচুয়া ব্রিজের এক অংশ ভেঙে পড়েছে। ভাঙা এই ব্রিজের ওপর দিয়েই চলছে ছোট যানবাহন। চলাচল করছে লোকজনও। মাস পেরিয়ে বছর পার হলেও ব্রিজ সংস্কার কিংবা পুনঃনির্মাণের কোনো উদ্যোগ নেই। যেকোনো মুহূর্তে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে ৪৪ গ্রামের হাজারো মানুষের।  
ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ছোট যানবাহন ও সাধারণ মানুষ চরম ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। যেকোনো সময় ব্রিজটি সম্পূর্ণ ভেঙে বড় ধরনের ক্ষতির আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।
যশোর-খুলনা মহাসড়কে পাশে রাজারহাট বাজার। দেশের অন্যতম বৃহৎ এ চামড়ার হাটের বিপরীত দিকের রাস্তা ধরে একটু সামনে এগিয়ে গেলেই চোখে পড়বে ভৈরব নদের ওপর নির্মিত এ ব্রিজটি। যশোর সদর উপজেলার ফতেপুর, কচুয়া ও রামনগর ইউনিয়নের ৪৪ গ্রামের মানুষকে ব্রিজটি এক সুতোয় বেঁধেছে। প্রতিদিন এই ব্রিজের ওপর দিয়ে চলাচল করে হাজার হাজার মানুষসহ পণ্যবাহী যানবাহন। প্রায় চার যুগ ধরে মানুষ আর যানবাহনের ভার বইতে বইতে জরাজীর্ণ দশা ব্রিজটির। বছর পাঁচেক আগেই ব্রিজের মূল পিলারে ফাঁটল ধরে। এছাড়া, ভৈরব নদ খননের সময় এটি আরও ঝুঁকির মধ্যে পড়ে। বসে যায় ব্রিজের একাংশ। সেই সাথে রাজারহাট অংশের সংযোগ সড়কও পড়েছিল ভাঙনের মুখে। স্থানীয়দের উদ্যোগে বাঁশের পাইলিং আর মাটি ভরাট করে সেসময় ঠেকানো হয় ভাঙন। তাও প্রায় দু’ বছরের বেশি হতে চলেছে। সর্বশেষ, গত কয়েকদিন আগে ব্রিজটির মাঝখান থেকে এক অংশ ভেঙে পড়ে একপাশ উঁচু আরেকপাশ নীচু হয়ে যায়। এরপর থেকেই ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
শরিফুল ইসলাম, আবুল কাশেম ও আশরাফুল আজাদ নামে স্থানীয় কয়েকজন বলেন, নতুন ব্রিজের দাবিতে মানববন্ধন, সড়ক অবরোধ, বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করা হয়েছে। সকল দপ্তর থেকে আশ্বাস মিলেছে কিন্তু এখনো কোনো উদ্যোগ চোখে পড়েনি। আশ্বাসের ফুলঝুরিতে এখন আর বিশ্বাস রাখতে পারছেন না বলে উল্লেখ করেন তারা।
সবুজ হোসেন নামে এক ইজিবাইক চালক জানান, অনেক ঝুঁকি নিয়ে তারা এ বিজের ওপর দিয়ে যাতায়াত করেন। বিকল্প পথ না থাকায় যাত্রী ও নিজের বড় ধরনের ক্ষতির আশঙ্কা নিয়ে তারা ব্রিজে ওঠেন। এটি ভেঙে পড়লে জনভোগান্তির শেষ থাকবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।  
হালিমা বেগম নামে এক নারী বলেন, ‘এক বছর ধরে শুনছি নতুন ব্রিজ পাস হয়েছে। কিন্তু কাজ শুরু হতি দেকচিনে। উপরতে দেকলি মনে হচ্ছে কিচু না। কিন্তু ভালো করে কাছেত্তে দেখলি বুঝাযাবে কিরাম রিস্কির মদ্দি পার হতি হয়।’
এ বিষয়ে এলজিইডি যশোরের নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম আনিসুজ্জামান বলেন, নতুন ব্রিজের জন্য ইতিমধ্যে টেন্ডার করে ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে। খুব শিগগির কাজ শুরু হবে।   





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft