বিনোদন
শিরোনাম: বন্যায় সিলেটের আশ্রয়কেন্দ্রও তলিয়ে গেছে       এবার সরিষার তেল কেজিতে বাড়লো ১শ'        ইরাম ব্যারাম হলি বিপদ!       স্বপ্নের পদ্মা সেতুর টোল চূড়ান্ত        সচিব হলেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ইসমাইল হোসেন        অটো ভ্যান-রিকশা চোর সিন্ডিকেটের সদস্য আটক       ট্রাক চোর সিন্ডিকেটের সদস্য রিমান্ডে       কুষ্টিয়ায় ছাত্রীনিবাসে শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত মরদেহ       বাজেট অধিবেশন বসছে পাঁচই জুন       লোকালয়ে ১০ ফুট লম্বা অজগর উদ্ধার      
চলে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের নাট্যব্যক্তিত্ব শাঁওলি মিত্র
বিনোদন ডেস্ক :
Published : Monday, 17 January, 2022 at 3:03 PM, Count : 143
চলে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের নাট্যব্যক্তিত্ব শাঁওলি মিত্রপশ্চিমবঙ্গের নাট্য দুনিয়ার প্রথম সারির অভিনেত্রী শাওলি মিত্র চিরবিদায় নিলেন। রবিবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় শম্ভু-তৃপ্তি মিত্রের এই কন্যার। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।
কলকাতার সিরিটি শ্মশানে অনাড়ম্বরভাবে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় তার।
জানা গেছে, হাসপাতালের যাওয়া বা চিকিৎসা পরিষেবা নেওয়ার বিষয়ে তার তীব্র অনিহা ছিল। অসুস্থতা সত্ত্বেও হাসপাতালে ভর্তি হতে চাননি। এমন কী মৃত্যুর পর, তার মরদেহ যাতে প্রকাশ্যে না আনা হয়, সেই বিষয়েও একটি ইচ্ছাপত্র লিখে গিয়েছিলেন বাংলার আধুনিক যুগের অন্যমত শক্তিশালী নাট্য ব্যক্তিত্ব।
ঋত্বিক ঘটকের ছবি ‘যুক্তি তক্কো আর গপ্পো’ ছবি অভিনয় করেন শাঁওলি মিত্র। ২০০৩ সালে সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কার পান তিনি। ২০০৯ সালে পদ্মশ্রী পান তিনি। ২০১২ সালে ‘বঙ্গবিভূষণ’ সম্মানে ভূষিত হন তিনি।
কবি-লেখক তসলিমা নাসরিন শাঁওলি মিত্রের মৃত্যুতে শোক জানিয়ে ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘শাঁওলি মিত্র’র মৃত্যুসংবাদ আমাকে বড় হতবাক করলো। চেনা মানুষগুলো, যাঁদের ভালোবাসি, শ্রদ্ধা করি, তাঁদের যেন হই রই করে চিরকাল বেঁচে থাকার কথা। কার যে গোপনে বয়স বাড়ে, কার যে অসুখ করে, জানা হয় না।
২০০৭ সালে আমাকে যখন কলকাতা থেকে বের করে দিয়ে দিল্লিতে গৃহবন্দি করা হয়েছিল, ক’জন শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ তখন অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছিলেন, শাঁওলি মিত্র ছিলেন তাঁদের একজন। তিনি আমাকে ফোন করতেন, মনে সাহস দিতেন। আমি চিরকালই তাঁর গুণমুগ্ধ।’
শাঁওলি মিত্রের অভিনয় প্রতিভার উল্লেখ করে তসলিমা নাসরিন লিখেছেন, ‘মনে আছে, আমাদের ময়মনসিংহের বাড়িতে সেই কতকাল আগে অডিও ক্যাসেটে তাঁর নাথবতী অনাথবৎ শুনতাম। শুনতাম আর তার জন্য বুকের মধ্যে একটু একটু করে ভালোবাসা জমা হতো। সেই শুরু। তারপর তো মঞ্চে তা নাটক দেখেছি, তাঁর অভিনয় দেখেছি অপলক। এমন অবিশ্বাস্য প্রতিভা নিয়ে খুব মানুষই জন্মায়!’
বাংলাদেশের প্রথিতযশা নাট্যাভিনেত্রী ‘মঞ্চকুসুম’ শিমুল ইউসুফ লিখেছেন, ‘নাথবতী অনাথবত-১৯৮৫ রবীন্দ্র সদন মঞ্চ। সেই মুগ্ধতা এখনও কাটেনি শাঁওলী দি। তুমি আমাদের অনাথ করে মা তৃপ্তি মিত্র, বাবা শম্ভু মিত্রের কাছে চলে গেলে।’




« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft