দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
শিরোনাম: বন্যায় সিলেটের আশ্রয়কেন্দ্রও তলিয়ে গেছে       এবার সরিষার তেল কেজিতে বাড়লো ১শ'        ইরাম ব্যারাম হলি বিপদ!       স্বপ্নের পদ্মা সেতুর টোল চূড়ান্ত        সচিব হলেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ইসমাইল হোসেন        অটো ভ্যান-রিকশা চোর সিন্ডিকেটের সদস্য আটক       ট্রাক চোর সিন্ডিকেটের সদস্য রিমান্ডে       কুষ্টিয়ায় ছাত্রীনিবাসে শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত মরদেহ       বাজেট অধিবেশন বসছে পাঁচই জুন       লোকালয়ে ১০ ফুট লম্বা অজগর উদ্ধার      
বেনাপোলে আমদানি-রফতানি বন্ধ আটকে আছে শতাধিক ট্রাক
স্টাফ রিপোর্টার, বেনাপোল থেকে
Published : Tuesday, 18 January, 2022 at 9:36 PM, Count : 165
বেনাপোলে আমদানি-রফতানি বন্ধ আটকে আছে শতাধিক ট্রাকবেনাপোলের বিপরীতে ভারতের পেট্রাপোলে পরিচয়পত্র নিয়ে জটিলতায় দ্বিতীয় দিনের মতো বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি বন্ধ রয়েছে। তবে স্বাভাবিক রয়েছে রফতানি কার্যক্রম। এর ফলে কাঁচামালসহ শত শত পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকা পড়েছে পেট্রাপোল বন্দরে। এর মধ্যে রফতানিমূখী শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালামাল রয়েছে।
সোমবার সকাল থেকে মঙ্গলবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত আমদানি বন্ধ ছিল। কখন আমদানি কার্যক্রম চালু হবে তা কেউ বলতে পারেনি। এ বিষয়ে পেট্রাপোল ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে বিএসএফ, কাস্টমস ও বন্দরের বৈঠকের পর কোন ফলপ্রসূ আলোচনা না হওয়ায় মঙ্গলবারও আমদানি বন্ধ থাকছে। নানা সমস্যায় দুই দিন পর পর এই পথে আমদানি বন্ধ করে দেওয়ায় ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।  
বনগাঁ গুডস ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক বুদ্ধদেব বিশ্বাস জানান, এতদিন আমরা সংগঠনের পরিচয়পত্র নিয়ে পেট্রাপোল বন্দরে আমদানি-রফতানির কাজ করে আসছিলাম। গত ১৫ জানুয়ারি পেট্রাপোল বিএসএফ থেকে বলা হয় ভারতীয় কাস্টমস, বন্দর, সিএন্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ও ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ স্বাক্ষরের পরিচয়পত্র ছাড়া কাউকে বন্দর এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এ কারণে শনিবার ৮ ঘন্টা বন্ধ থাকে আমদানি-রফতানি। পরে এক বৈঠকে আলোচনার পর পুনরায় চালু হয় আমদানি-রফতানি। আমরা সময় চাইলেও তারা সোমবার পর্যন্ত সময় দেন। ২ দিনের মধ্যে ৪টি সংস্থা থেকে পরিচয়পত্র সংগ্রহ করাও কঠিন। সে কারণে বাধ্য হয়ে বাংলাদেশে রফতানি পণ্য বন্ধ করে দেওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। সবার সাথে কথা বলে রফতানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবারও বৈঠক হয়েছে, তবে কোন সিদ্ধান্তে পৌছেতে পারেনি কেউ।
এদিকে আমদানি বন্ধ থাকায় ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে শত শত টাক পণ্য নিয়ে বেনাপোলে প্রবেশের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে। দ্রুত বাণিজ্য চালু না হলে ক্ষতির আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে বাণিজ্য চালু করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলছেন ব্যবসায়ী নেতারা।
বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের কার্গো বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন জানান, ভারতের বনগাঁ গুডস ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন তাদের চিঠিতে জানিয়েছে। তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়টি মিমাংসা না হওয়া পর্যন্ত বেনাপোল বন্দরের সাথে আমদানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে। তবে বাণিজ্য সচলের জন্য ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সাথে বৈঠক চলছে।
বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ওসি মো. রাজু জানান, এ পথে ভারত থেকে পণ্য আমদানি বন্ধ রয়েছে বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে জেনেছি। তবে দু‘দেশের মধ্যে পাসপোর্টধারী যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।
বেনাপোল স্থল বন্দরের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) সঞ্জয় বাড়ৈ বলেন, ভারতীয় অভ্যন্তরীণ ঝামেলায় সোমবার সকাল থেকে আমদানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। তবে যাতে বাণিজ্য চালু হয় বিভিন্ন ভাবে তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, প্রতিদিন ভারত থেকে সাড়ে ৩০০ ট্রাক বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি ও ১৫০ ট্রাক পণ্য ভারতে রফতানি হয়ে থাকে। প্রতিদিন আমদানি পণ্য থেকে সরকারের ২০ থেকে ৩৫ কোটি টাকা পর্যন্ত রাজস্ব আয় হয়। যাত্রী যাতায়াত হয় দিনে ৬০০ জনের মতো। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও দেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে বাংলাদেশ বাণিজ্য ও যাত্রী যাতায়াত সচল রাখার চেষ্টা করলেও ভারতীয়রা একের পর এক নানা সমস্যা সৃস্টি করে বাণিজ্য বন্ধ করে দিচ্ছে। এমনিতে বনগাঁ পৌর পার্কিং এ এক একটি ট্রাক এক মাসেরও অধিক সময় আটকে রাখা হচ্ছে। তারপরও আমদানি বাণিজ্যে অচলাবস্থা সৃষ্টিতে বাণিজ্যে মারাত্মক প্রভাব পড়ছে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft